আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চট্টগ্রামে নাছির ও মনজুরের জোর প্রচার ॥ দুই দলের মর্যাদার লড়াই

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

মোয়াজ্জেমুল হক, চট্টগ্রাম অফিস ॥ সিটি নির্বাচনের ভোটের হাওয়ায় সরগরম হয়ে উঠেছে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের রাজনৈতিক অঙ্গন। জাতীয় রাজনীতির মতো স্থানীয় সরকারের মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচন নিয়েও যথারীতি মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা। এরমধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত দুই প্রার্থী যথাক্রমে আ জ ম নাছির উদ্দিন ও মনজুর আলম ১৪ ও ২০ দলের সমর্থনও পেয়েছেন। নির্বাচনের আর মাত্র ১৮ দিন বাকি। এরই মধ্যে আ জ ম নাছির উদ্দিন গত মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক প্রচারে নেমেছেন। পক্ষান্তরে মনজুর আলম নামছেন আজ শুক্রবার থেকে। এর আগে স্ব স্ব দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই মাঠে নেমে প্রচারণা চালাতে গিয়ে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন। এ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ছাড়াও সরকারের এক মন্ত্রী ও দুই প্রতিমন্ত্রী অভিযুক্ত হয়েছেন। এদের কাউকে কাউকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। আবার মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা মেলেনি বলে সর্বশেষ রিটার্নিং অফিস সূত্রে জানানো হয়েছে।

এদিকে, নগর জুড়ে এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটার মহল সরব হয়ে উঠছে। বিশেষ করে দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত মূল প্রতিদ্বন্দ্বী দুই মেয়র প্রার্থীকে নিয়ে ভোটার মহলে বিভক্তি আসতে শুরু করেছে। তবে অন্যবারের চেয়ে এবার দুই দলের প্রার্থিতা নিয়ে গ্রুপিংয়ের সীমারেখাটা অনেকাংশে হ্রাস পেয়েছে। তবে এর যে একেবারে শতভাগ অবসান হয়েছে তা কোনভাবেই বলা যাবে না। বিরোধিতায় যাঁরা রয়েছেন তাঁরা প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও এদের ভেতরকার তৎপরতা নিয়ে একগ্রুপ অন্য গ্রুপকে সন্দেহজনক চোখে দেখছে। তবে এ নিয়ে কোন ধরনের বাড়াবাড়ি কোন দলেই নেই। এভাবে চলতে থাকলে চট্টগ্রাবাসী আগামী ২৮ এপ্রিল সুন্দর একটি স্থানীয় সরকারের নির্বাচন দেখতে পাবে বলে মনে করছে।

সরকারবিরোধী আন্দোলনরত বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ২০১০ সালের মতো মনজুর আলমের বিজয় ধরে রাখতে তৎপর হয়েছে। পক্ষান্তরে, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট তাদের হারানো গৌরব ফিরে পেতে অনেকটা মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে। এ ক্ষেত্রে বলা যায় এ পর্যন্ত প্রচারে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন বেশ এগিয়ে রয়েছেন। অপরদিকে, বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মনজুর আলমের পক্ষে কেন্দ্রীয় কয়েক নেতা গত সপ্তাহ থেকে মাঠে নেমেছেন। এর আগে গ্রাউন্ডওয়ার্ক করেছেন। এখন করছেন গণসংযোগ। তাদের প্রার্থী মনজুর আলম আজ বাদজুমা মা-বাবার কবর জিয়ারতের পর বিকেলে পতেঙ্গা এলাকার ৪০ ও ৪১নং ওয়ার্ডে গণসংযোগের মাধ্যমে প্রচারণার আনুষ্ঠানিকতার সূচনা ঘটাবেন। তবে তাঁর পক্ষে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান ও নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও স্থানীয় দল ও এর অঙ্গ সংগঠনসমূহের শীর্ষ নেতারা গণসংযোগে রয়েছেন। অপরদিকে, আ জ ম নাছির উদ্দিনের সমর্থনে দলের কেন্দ্রীয় নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক, ড. হাছান মাহমুদ, আলাউদ্দিন নাসিম এবং চট্টগ্রামের এমপিদের বড় একটি অংশ সার্বক্ষণিকভাবে কাজ করে চলেছেন।

এ দুই প্রধান প্রার্থীর পক্ষে চট্টগ্রামের প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা নিরসন নিয়ে বলা হচ্ছে বেশি। পাশাপাশি নগর উন্নয়নসহ বিভিন্ন ধরনের নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধির কথাও ভোটারদের কানে পৌঁছানো হচ্ছে। তবে দুই প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার এখনও প্রচার করা হয়নি। এ নিয়ে কাজ চলছে বলে জানা গেছে। অতীতে মনজুর আলম যেসব দফা বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করে নির্বাচিত হন তার বাস্তবায়ন না হওয়ায় সমালোচনার মুখে রয়েছেন। এ ক্ষেত্রে প্লাস পয়েন্টে রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত আ জ ম নাছির উদ্দিন। কেননা, তিনি মেয়র পদে প্রথমবারের মতো প্রার্থী হয়েছেন। চট্টগ্রামে ক্রীড়াঙ্গনসহ অন্যান্য সামাজিক কার্যক্রমে তাঁর অবদান তুলে ধরা হচ্ছে প্রচার কাজে। তিনি গত ৩ দিন ধরে বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনী প্রচারণায় চট্টগ্রামকে একটি মেগাসিটিতে পরিণত করতে প্রয়াস নেয়াসহ জলাবদ্ধতা দূরীকরণে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানোর অঙ্গীকার করে যাচ্ছেন।

ড. হাছান মাহমুদ ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বৃহস্পতিবার নগরীর ওয়াসা মোড়ে রাঙ্গুনিয়া নাগরিক কমিটির উদ্যোগে মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিনের নির্বাচনী প্রচার কার্যক্রম উদ্বোধন করতে গিয়ে বলেছেন, সরকারের মন্ত্রী, এমপিদের প্রটোকল নিয়ে নিজ দলের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিতে নির্বাচন কমিশনের বিধিনিষেধ বৈষম্যমূলক। তিনি বলেন, পার্শ¦বর্তী দেশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে স্থানীয় সিটি নির্বাচনে মন্ত্রীরা প্রটোকল নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন। কিন্তু বাংলাদেশে এ নিয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। বাংলাদেশ বিচ্ছিন্ন কোন দেশ নয়। তিনি বলেন, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে দলের সব সিনিয়র নেতা এমনকি দলের চেয়ারপার্সনও প্রচারণায় নামবেন বলে শোনা যাচ্ছে। কিন্তু মন্ত্রী পদে থাকার কারণে আওয়ামী লীগের কোন সিনিয়র নেতা দল সমর্থিত মেয়র প্রার্থীর পক্ষে অংশ নিতে পারছেন না।

মহিউদ্দিন চৌধুরী ॥ আসন্ন চসিক নির্বাচনে জাতীয় অস্তিত্ব লড়াইয়ে সফল হওয়ার পরীক্ষা বলে মন্তব্য করেছেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। বৃহস্পতিবার সকালে দক্ষিণ-মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী হাজী গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী তার কাছে দোয়া প্রার্থনা করতে গেলে তিনি একথা বলেন। তিনি সিটি মেয়র পদে আ জ ম নাছির উদ্দিনের পক্ষে ভোট দিয়ে দলীয় সমর্থিত প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, স্থানীয় পর্যায়ে জনগণের আস্থা অর্জন করে মানুষের ঘরে ঘরে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিতে হবে। কেননা, এ নির্বাচন কোন ব্যক্তি সাফল্য অর্জনের জন্য নয়। এটি জাতিসত্তার অস্তিত্ব রক্ষার পরীক্ষা। এ পরীক্ষায় অবশ্যই উত্তীর্ণ হতে হবে। এর আগে ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী চট্টগ্রাম চেম্বার পরিচালক এসএম হাবিবুল হক মহিউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে সাক্ষাত করে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এছাড়া ৩৪নং পাথরঘাটা ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আশফাক আহমেদ মহিউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে সাক্ষাত করে দোয়া কামনা করেন।

হাসিনা মহিউদ্দিন ॥ চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিনকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীদের মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে গণসংযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি প্রয়াত মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী নিলুফা কায়সারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার আয়োজিত আলোচনায় এ কথা বলেন।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চেয়ারম্যান ॥ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হেলাল মোরশেদ বীর বিক্রম বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছিরকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সূতিকাগার চট্টগ্রাামে একজন সত্যিকার দেশপ্রেমিক ও যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। নগরীর মুসলিম হলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ইউনিট কমান্ডের উদ্যোগে আয়োজিত এ সমাবেশে হেলাল মোরশেদ বলেন, চট্টগ্রামের আজ বেহাল দশা।

চারদিকে আজ আবর্জনার স্তূপ। জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগ বাড়ে চট্টগ্রামবাসীর। তাই চট্টগ্রামে যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে আ জ ম নাছিরকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে আখ্যা দিয়ে তাকে মেয়র পদে নির্বাচিত করার জন্য চট্টগ্রামবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

আবদুল্লাহ আল নোমান ॥ ২০ দলীয় জোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মনজুর আলমের পক্ষে নির্বাচনী গণসংযোগ ও পথসভায় কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সরকারকে জনগণ ব্যালট বিপ্লবের মাধ্যমে রেড সিগন্যাল দেখাবে যাতে অবিলম্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে সরকার জাতীয় সংসদ নির্বাচন দিতে বাধ্য হয়। চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে এই নির্বাচনে আমরা অংশগ্রহণ করছি। সকালে নগরীর হালিশহর বি-ব্লক এলাকায় নির্বাচনী পথ সভায় বক্তব্যদান কালে তিনি একথা বলেন।

নোমান বলেন, নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড এখনও তৈরি হয়নি। তাই অবিলম্বে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করার জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান। এই নির্বাচনে জনগণ ভোটের বাক্সকে সরকারের বিরুদ্ধে গণঅনাস্থা প্রকাশের বাক্স হিসেবে ব্যবহার করবে। সরকারের বিরুদ্ধে জনগণের মনে জমে থাকা ভোটাধিকার হরণের পুঞ্জীভূত ক্ষোভ জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে প্রকাশ করবে।

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ॥ ৫ জানুয়ারির ভোট ডাকাতির প্রতিবাদে আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে চট্টগ্রামের জনগণ প্রতিবাদী ভোট দেবে বলে মন্তব্য করেছেন নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, নগরবাসী মনজুর আলমকে ভোট দিতে উন্মুখ হয়ে আছে। চট্টগ্রামের ভোটাররা আগামী ২৮ এপ্রিল নীরব বিপ্লব ঘটাবে। বৃহস্পতিবার নগরীর সুপারিওয়ালাপাড়া সুলতান কলোনি, খান বাড়ি, চৌমুহনীসহ বিভিন্ন স্থানে মনজুর আলমের পক্ষে গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ভোটের দিন চট্টগ্রামের জনগণই ভোট কেন্দ্র পাহারা দেবে। ঐ দিন সন্ত্রাস ও মস্তানদের চট্টগ্রামের জনগণ প্রতিহত করবে।

সেভ দ্য স্পোর্টস চিটাগং ॥ বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আলহাজ মনজুর আলমের সমর্থনে সেভ দ্য স্পোর্টস চিটাগাং নেতৃবৃন্দ নির্বাচনী প্রচারণায় বলেন, আসন্ন সিটি নির্বাচনে চট্টগ্রামের ভোটাররা মনজুর আলমকেই নির্বাচিত করবে। সংগঠন নেতারা বলেন, ভোটাররা সৎ, যোগ্য ও শিক্ষানুরাগী প্রার্থীকে চিনতে ভুল করবে না। বৃহস্পতিবার নগরীর মোহরা ওয়ার্ডের কামাল বাজার এলাকায় মনজুর আলমের পক্ষে গণসংযোগকালে সংগঠন নেতারা এসব কথা বলেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন সংগঠন নেতা এমএ হাশেম রাজু, এসএম নজরুল ইসলাম, আলহাজ মোহাম্মদ আজম, সৈয়দ মোস্তফা আলম মাসুম, মোঃ জসিম উদ্দিন, নুর মোহাম্মদ প্রমুখ।

এলডিপি ॥ এলডিপি চট্টগ্রামের নেতৃবৃন্দ আসন্ন মেয়র নির্বাচনে ২০ দলীয় জোট মনোনীত প্রার্থী মনজুর আলমকে বিপুল ভোটে জয়ী করার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে নন্দন কাননের দলীয় কার্যালয়ে গণতান্ত্রিক শ্রমিকদল আয়োজিত সভায় এলডিপি নেতৃবৃন্দ এ আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, মনজুর আলম অত্যন্ত দক্ষ, সৎ ও নিরপেক্ষ মেয়র হিসেবে প্রমাণ দিয়েছেন। তাই তাঁকে মেয়র পদপ্রার্থী করা হয়েছে। তিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে দলীয়করণ, স্বজনপ্রীতি, দুর্নীতি, সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে দূরে রেখেছেন। নেতারা মনজুর আলমের পক্ষে ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট প্রার্থনার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এলডিপি নেতা নুরুল আজগর চৌধুরী, পারভিন আক্তার চৌধুরী, সৈয়দ আহমদ রেজা, মোঃ আমিন, মোঃ বেলাল হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, হাবিবুল্লাহ বাহার প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

১০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: