মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রচারে টিভি ও বেতারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে ॥ তথ্যমন্

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

সংসদ রিপোর্টার ॥ বিএনপি-জামায়াত জোটের পেট্রোলবোমা নিক্ষেপ ও জ্বালাও-পোড়াওসহ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরকারী ও বেসরকারী টিভি চ্যানেলসমূহ প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে সকল টেলিভিশন চ্যানেল ও বেতার কেন্দ্রকে মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইলেক্ট্রনিক গণমাধ্যমসমূহের প্রধান নির্বাহীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তাঁরা স্বপ্রণোদিত হয়ে মানুষ হত্যা, জ্বালাও-পোড়াওয়ের নিন্দা জানান এবং এ বিষয়ে প্রচার বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দেন।

রবিবার স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে মনোয়ারা বেগমের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর অনুপস্থিতিতে তাঁর পক্ষে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এ তথ্য জানান। তিনি এ প্রসঙ্গে আরও জানান, বিএনপি-জামায়াত জোট আন্দোলনের নামে সারাদেশে মানুষ হত্যা ও জ্বালাও-পোড়াও করে মানুষের জানমালের যে ক্ষতি করেছে তার বিরুদ্ধে জনগণকে সচেতন করতে বিটিভির সংবাদে ধ্বংসযজ্ঞের ওপর প্রামাণ্যচিত্র প্রচার ছাড়াও নিয়মিতভাবে ডকুমেন্টারি অনুষ্ঠান ও ফিলার প্রচার করছে।

সরকারী দলের এমএ মালেকের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বর্তমানে দেশে পত্রিকার সংখ্যা সর্বমোট ১ হাজার ৯৬৭। তবে মিডিয়া তালিকাভুক্ত পত্রিকার সংখ্যা ৫০৪টি। প্রচারসংখ্যার শীর্ষে থাকা দশটি পত্রিকা হচ্ছেÑ বাংলাদেশ প্রতিদিন, প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, আমাদের সময়, যুগান্তর, ইত্তেফাক, জনকণ্ঠ, সমকাল, মানবকণ্ঠ ও আলোকিত বাংলাদেশ।

সেলিনা বেগমের প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান নূর জানান, গত অর্থবছরে বাংলাদেশ টেলিভিশন করসহ মোট ৮৮ কোটি ৩৮ লাখ ৮৭ হাজার টাকা রাজস্ব আয় করেছে। চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত গত ৮ মাসে সর্বমোট আয় ৬১ কোটি ৭১ লাখ ৮ হাজার টাকা মাত্র। আর বাংলাদেশ বেতার হতে বছরে রাজস্ব আয় গড়ে ১০ কোটি টাকা।

মন্ত্রী জানান, বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলসমূহ স্বাধীনভাবে কাজ করে থাকে। তবে তাদেরও সামাজিক দায়বদ্ধতা রয়েছে। বিভিন্ন সময় সরকারী উন্নয়ন কর্মকা- প্রচারের বিষয়ে তাদের সহায়তা চাওয়া হয়ে থাকে। অনেক বেসরকারী চ্যানেল স্ব-উদ্যোগে সরকারী উন্নয়ন কর্মকা- প্রচার করে থাকে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান নূর জানান, বাংলা চলচ্চিত্রের মান উন্নয়ন ও মানসম্পন্ন করতে সরকার চলচ্চিত্র নির্মাতাগণকে প্রতিবছর পূর্ণদৈর্ঘ্য ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য সর্বোচ্চ ৩৫ লাখ টাকা এবং স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের জন্য সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা সরকারী অনুদান প্রদান করা হচ্ছে। অনুদানের আর্থিক পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য অর্থ বিভাগে প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি জানান, চলচ্চিত্রের পুরনো ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে ৩ এপ্রিলকে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস’ হিসেবে ঘোষণার পাশাপাশি চলচ্চিত্রকে ‘শিল্প’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও হল মালিকগণ আর্থিক সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

বিএনপি-জামায়াত জোট অবরোধ-হরতালের নামে শুধু মানুষকে পুড়িয়ে হত্যাই নয়, সন্ত্রাসী ও জঙ্গীবাদী কর্মকা-ের মাধ্যমে দেশের বিদ্যুত প্রকল্প ও তেল শোধনাগারেও আক্রমণের ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। সম্প্রতি চট্টগ্রামে একটি তেল শোধনাগারে হামলার পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত জঙ্গীদের গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা আটক করে তা বানচাল করে দিতে সক্ষম হয়। আগামীতে যাতে সন্ত্রাসী-জঙ্গী ও নাশকতাকারীরা বিদ্যুতকেন্দ্র কিংবা তেল শোধনাগারে হামলা করতে না পারে সেজন্য সরকার সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় থেকে সুরক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

রবিবার স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারী দলের সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট তারানা হালিমের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন বিদ্যুত ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, আপাতত যানবাহনে সিএনজি গ্যাস প্রদান বন্ধ করার কোন পরিকল্পনা নেই। তবে নতুন করে সিএনজি স্টেশনের অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। ভবিষ্যতে এলপিজি গ্যাসের মাধ্যমে যানবাহন চালানো যায় কিনা, সে ব্যাপারে চিন্তাভাবনা চলছে।

সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, গভীর ও অগভীর সমুদ্রাঞ্চলে তেল ও গ্যাস অনুসন্ধানের জন্য বর্তমান সরকারের গত মেয়াদ ও বর্তমান মেয়াদে এ পর্যন্ত ৫টি কোম্পানির সঙ্গে ৫টি ব্লকে ৪টি উৎপাদন বণ্টন চুক্তি (পিএসসি) স্বাক্ষরিত হয়েছে। কোম্পানিগুলো হচ্ছেÑ যুক্তরাষ্ট্রের কনোকো ফিলিপস, ভারতের ওএনজিসি এ্যান্ড ওয়েল এবং অস্ট্রেলিয়া ও সিঙ্গাপুরের সান্তোষ সাঙ্গু ফিল্ড লিমিটেড ও ক্রিস এনার্জি। একাধিক সংসদ সদস্যের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী জানান, বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের জ্বালানি খাতে অপরিকল্পিত প্রকল্পের খেসারত বর্তমান সরকারকে দিতে হচ্ছে। তবে বর্তমানে আবাসিক খাতে গ্যাসের লাইন দেয়ার প্রকল্প স্থগিত রাখা হয়েছে। শুধু বাণিজ্যিক ও শিল্প খাতে গ্যাস প্রদান করা হচ্ছে। আবাসিক খাতে লাইনের মাধ্যমে নয়, এলপিজি সিলিন্ডারের মাধ্যমে জ্বালানি গ্যাস সরবরাহের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

৩০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: