আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঢাকা ওয়াসার ৩৭৬ কি.মি পানির লাইন মেরামত শুরু আগামী মাসে

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫
  • কোরীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি সই

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা ওয়াসা ফকিরাপুল, মালিবাগ, মগবাজার, মৌচাক, রামপুরা ও সংলগ্ন এলাকা প্রায় ৩৭৬ কিলোমিটার পানির লাইন পুনর্বাসন ও সম্প্রসারণের কাজ আগামী মাস থেকে শুরু করতে যাচ্ছে। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) আর্থিক সহায়তায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে সাড়ে তিন বছর সময় লাগবে। ১৬ ডিএমএর (ডিস্ট্রিক্ট মিটারিং এরিয়া) আওতায় প্রকল্পে নতুন লাইন স্থাপনের মাধ্যমে পানির গুণগত মান নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। একই সঙ্গে ঢাকা ওয়াসার সিস্টেম লসও অনেকাংশে কমে যাবে।

প্রকল্পের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগের জন্য রবিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ঢাকা ওয়াসা ও কোরিয়ার কুনহুয়া ইঞ্জিনিয়ারিং এ্যান্ড কন্সালটিং কোম্পানি লিমিটেডের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান ও কুনহুয়া কোম্পানি লিমিটেডের বাংলাদেশ শাখার প্রতিনিধি উই জে কিম চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। বাংলাদেশে কোরীয় দূতাবাসের চার্জ দ্য এ্যাফেয়ার্স কিম হুয়ান জু অনুুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। ঢাকা ওয়াসার ‘পরিবেশবান্ধব টেকসই পানি সরবরাহ প্রকল্পের’ (ডিইএসডব্লিউএসপি) আওতায় ইতোমধ্যে ছয় পর্যায়ের কাজ শেষ হয়েছে। ৭ম পর্যায়ে মড্স জোন-৬ এর আওতায় এই ৩৭৬ কিলোমিটার পানির লাইনের কাজ শুরু হচ্ছে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে কোরীয় দূতাবাসের চার্জ দ্য এ্যাফেয়ার্স কিম হুয়ান জু তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশ ও কোরিয়ার মধ্যে চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেন। বিশেষ করে পানি সরবরাহ ব্যবস্থায় দুদেশের প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের উল্লেখ করে তিনি এক্ষেত্রে অব্যাহত সহযোগিতার আশ্বাস দেন। ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান তাঁর বক্তব্যে বলেন, সাম্প্রতিক কয়েক বছরে ঢাকা ওয়াসা তার কার্যক্রম এবং পানি সরবরাহ ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। ঢাকা ওয়াসা ক্রমেই একটি টেকসই, পরিবেশবান্ধব ও গণমুখী পানি সরবরাহ ব্যবস্থাপনার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বর্তমান সরকারের আমলে ঢাকা ওয়াসার সক্ষমতা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে রাজধানীতে পানির কোন সঙ্কট নেই বলে তিনি উল্লেখ করেন। ওয়াসার কার্যক্রমে কোরিয়ার অব্যাহত সহায়তার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান তিনি। এই প্রকল্পে কোরীয় পরামর্শক প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে সর্বোচ্চ সেবা পাওয়া যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

ঢাকা ওয়াসা বর্তমানে রাজধানীর দৈনিক ২৩০ কোটি লিটার পানির চাহিদার বিপরীতে দৈনিক ২৪২ কোটি লিটার পানি উৎপাদন ও সরবরাহের সক্ষমতা অর্জন করেছে।চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের সিনিয়র আরবান ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট মনোজ শর্মা, কুনহুয়া কোম্পানি লিমিটেডের বাংলাদেশ শাখার প্রতিনিধি উই জে কিম এবং ঢাকা ওয়াসার ডিইএসডব্লিউএসপি প্রকল্পের পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ মাহমুদুল হাসানও বক্তব্য রাখেন।

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

৩০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: