কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের কোন সম্ভাবনা নেই ॥ পুতিন

প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধের কোন সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। এ ধরনের একটি যুদ্ধকে তিনি ‘মহাবিপর্যয়কর ঘটনা’ হিসেবে অভিহিত করেন। খবর বিবিসি ও এএফপির।

পুতিন মিনস্কে স্বাক্ষরিত পূর্ব ইউক্রেনের শান্তিচুক্তির প্রতিও তাঁর সমর্থন ব্যক্ত করেছেন এবং বলেছেন, এই চুক্তিই পূর্ব ইউক্রেনে শান্তি ফিরিয়ে আনার সর্বোত্তম উপায়। রুশ টেলিভিশনে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এ কথা বলেছেন। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদও এই চুক্তিতে সমর্থন দিয়েছে। ইউক্রেন বলেছে, রুশ বাহিনী ইউক্রেনে লড়াই করছে- এ কথা আবারও প্রত্যাখ্যান করে পুতিন বলেছেন, ইউক্রেন সরকার রুশ বাহিনীর কথা বলছে। কারণ তাদের কাছে হারাটা সাবেক খনিশ্রমিক ও ট্রাক্টরচালকদের কাছে হারার চেয়ে কম লজ্জাজনক।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে যে সঙ্কট চলছে তার জন্য রাশিয়াকে বিভিন্ন সময়ে বার বারই দায়ী করেছে ইউক্রেন এবং পশ্চিমা বিশ্ব। কিন্তু তাদের এই দাবি প্রথম থেকেই নাকচ করে এসেছে রাশিয়া। তবে এই উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে দেশ দুটির মধ্যে যুদ্ধের হুমকি আছে কিনা, এমন প্রশ্ন করা হলে পুতিন আশ্বস্ত করে বলেছেন, প্রতিবেশী এই দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। যদি মিনস্ক চুক্তি বাস্তবায়িত হয় তাহলেই ধীরে ধীরে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে স্থিতিশীলতা ফিরে আসবে।

ইউরোপ যেমন এ ব্যাপারে আগ্রহী, তেমনই রাশিয়াও আগ্রহী। কেউই ইউরোপের প্রান্তে সংঘর্ষ চায় না, বিশেষ করে সশস্ত্র সংঘর্ষ। এদিকে কিয়েভ সোমবার বলেছে, ইউক্রেনের বন্দর শহর মারিওপোলে সরকারী বাহিনীর অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছে রুশপন্থী বিদ্রোহীরা। এর ফলে জাতিসংঘ সমর্থিত মিনস্ক চুক্তির ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বেগ বেড়েছে। দেশটির কর্মকর্তারা বলেছে, এ অবস্থায় ভারি অস্ত্র প্রত্যাহারের প্রশ্নই উঠে না।

বিদ্রোহীদের হামলা বন্ধ না হলে এ প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে না। ১২ ফেব্রুয়ারি বেলারুশের রাজধানীতে সই হওয়া অস্ত্রবিরতি চুক্তির আওতায় দু’পক্ষরই গোলাবারুদ এবং ট্যাঙ্ক রণক্ষেত্র থেকে সরিয়ে নেয়ার জন্য দু’সপ্তাহ সময় হাতে আছে।

প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: