কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চেলসির সৌভাগ্যপ্রসূত ড্র পিএসজির বিরুদ্ধে

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফুটবলের নকআউট পর্বের শুরুর দুটি ম্যাচই ড্র হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচ দুটিতে কোন দলই জয়ের হাসি হাসতে পারেনি। প্যারিসে স্বাগতিক প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে ইংলিশ ক্লাব চেলসি। আর ইউক্রেনে স্বাগতিক ক্লাব শাখতার ডোনেস্ক গোলশূন্যভাবে রুখে দেয় জার্মান পরাশক্তি বেয়ার্ন মিউনিখকে।

অতিথি চেলসির বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে শুরু থেকেই দারুণ খেলতে থাকে পিএসজি। কিন্তু খেলার ধারার বিপরীতে ম্যাচের ৩৬ মিনিটে এগিয়ে যায় চেলসি। জন টেরির ক্রস থেকে বল পান গ্যারি কাহিল। এরপর অসাধারণ এক ফ্লিকে তিনি বল পৌঁছে দেন ব্রানিসøাভ ইভানোভিচের কাছে। দারুণ এক হেডে সার্বিয়ান ডিফেন্ডার ইভানোভিচ বল জালে জড়ান। বিরতির পর শুরুর দিকেই চেলসির গোলটি ফিরিয়ে দেন এডিনসন কাভানি। ৫৪ মিনিটে ব্লাইস মাটুইদির অসাধারণ শট থেকে হেডের মাধ্যমে গোল করেন এডিসন কাভানি। এরপর পিএসজি খেলায় আরও কয়েকটি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে না পারলে শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দু’দল। বিশেষ করে ম্যাচটিতে চেলসির বেলজিয়াম গোলরক্ষক থিবাউট আসাধারণ কয়েকটি গোল করে দলকে রক্ষা করেন।

ম্যাচ শেষে চেলসি কোচ জোশে মরিনহো মোটেও সন্তুষ্ট হতে পারেননি। তিনি অকপটে স্বীকার করেছেন, ম্যাচে জয় প্রাপ্য ছিল পিএসজির। তবে এ্যাওয়ে গোলে এগিয়ে থাকার সুবিধাটা হয়ত স্বস্তি দিচ্ছে স্পেশাল ওয়ানকে। তবে শিষ্যদের খেলায় মন ভরেনি চেলসি পর্তুগীজ লৌহমানবের। ম্যাচের ফলাফল অন্য রকমও হতে পারত। হাসির বদলে হতাশায় ডুবতে পারতেন দ্য ব্লুজ সমর্থকেরা। ম্যাচের যখন শেষ দশ মিনিট বাকি, তখন দারুণ এক সুযোগ হাতছাড়া করে স্বাগতিকেরা। থিবাউট কর্টোয়াকে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হন কাভানি। সোনালি সুযোগ হাতছাড়া করার মাশুল পিএসজিকে ফিরতি লেগে গুনতে হয় কিনা সেটাই দেখার। মরিনহো বলেন, প্রথমার্ধ ছিল আমাদের। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে পিএসজি ভাল খেলেছে। তারা জয় পেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকত না। পিএসজি কোচ লরেন্ট ব্ল্যাঙ্ক খুশি তার দলের পারফর্মেন্সে। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, আমাদের জন্য এই স্কোর মোটেও ভাল কিছু নয়। তবে আমি খুশি দলের পারফর্মেন্সে। এটি ধরে রাখতে পারলে স্টামফোর্ড ব্রিজ থেকে ভাল কিছু আশা করা যায়।

শক্তিশালী বেয়ার্ন মিউনিখকে রুখে দিয়ে চমক দেখিয়েছে শাখতার ডোনেস্ক। শাখতারের ঘরের মাঠ এল’ভিভ এ্যারানায় গোলশশূন্য ড্র করে দু’দল। ম্যাচের ৬৫ মিনিটে লালকার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন বেয়ার্নের স্প্যানিশ মিডফিল্ডার জাবি এ্যালোনসো। এদিন নিজের ১০০তম চ্যাম্পিয়নস লীগ ম্যাচ খেলতে নামেন সাবেক রিয়াল তারকা। কিন্তু ম্যাচের ২৪ ও ৬৫ মিনিটে দু’বার ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন তিনি। এর আগে বেয়ার্ন তাদের সর্বশেষ ম্যাচে বুন্দেসলিগায় হামবার্গকে ৮-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল। ম্যাচে তাই স্পষ্ট ফেবারিট হয়েই মাঠে নেমেছিল সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু হতাশা নিয়েই ফিরতি হয়েছে বাভারিয়ানদের। এর মধ্য দিয়ে বেয়ার্ন কোচ পেপ গার্ডিওলার কথাই সত্যি হয়েছে। ম্যাচের আগে তিনি বলেছিলেন, শাখতার ইউরোপের অন্যতম সেরা দল। ম্যাচ শেষে গার্ডিওলা বলেন, শেষের দিকে আমরা কিছুটা কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলাম। ওরা আমাদের থেকে একজন বেশি নিয়ে খেলেছে। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ আমাদের হাতেই ছিল। কিন্তু আমরা যথেষ্ট সুযোগ সৃষ্টি করতে পারিনি। আমি মনে করি, দ্বিতীয় লেগে আমরাই জিতব। ফিরতি লেগে আগামী ১১ মার্চ নিজেদের মাঠ এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায় খেলবে বেয়ার্ন মিউনিখ।

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৯/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: