মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উইন্ডিজ বধে আইরিশ চমক

প্রকাশিত : ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ৩৪ রান করেও আয়ারল্যান্ডের কাছে ৪ উইকেটে পরাজিত

শাকিল আহমেদ মিরাজ ॥ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ড যেন চমকের নাম, অঘটনঘটনপটিয়সী! অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে চলমান ১১তম আসরে কাল সাবেক চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৪ উইকেটে হারিয়ে আরও এক ইতিহাস রচনা করল পুঁচকে আইরিশরা। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩০৪ রানের চ্যালেঞ্জ গড়ে জেসন হোল্ডারের উইন্ডিজ। পল স্টারলিং, এড জয়েস ও নাথান ও’ব্রায়েনের তিন-তিনটি ম্যারাথন হাফ সেঞ্চুরির কাছে শেষ অবধি সে চ্যালেঞ্জ আর চ্যালেঞ্জ থাকেনি! ৪৫.৫ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় আয়ারল্যান্ড। ৮৪ বলে ৯ চার ও ৩ ছক্কায় ৯২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে নায়ক স্টারলিং।

এ নিয়ে এবারের আসরে প্রথম ও বিশ্বকাপের ইতিহাসে তিনবার তিন শতাধিক রান টপকে জয় পেল আয়ারল্যান্ড। মজার বিষয়, ক্রিকেটের বিশ্বযজ্ঞে এমন ঘটনা মাত্র পাঁচটি, যার তিনটিতেই নাম লেখাল আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশটি! গতবার ১০ম বিশ্বকাপেই দুইবার। ব্যাঙ্গালোরে ৩২৭ রান অতিক্রম করে কুলিন ইংল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারিয়েছিল তারা। একই আসরে আরেক সহযোগী হল্যান্ডকে ৬ উইকেটে উড়িয়ে দিয়েছিল ৩০৬ রান টপকে! এবার ৩০৪ রান অতিক্রম করে অনায়াস জয়, এও কী ভাবা যায়? বিশ্বকাপে তিন শতাধিক রান তাড়া করে জয়ের বাকি দুটি রেকর্ড শ্রীলঙ্কা (১৯৯২, জিম্বাবুইয়ের সঙ্গে) ও ইংল্যান্ডের (২০০৭, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে)।

নেলসনে আরও এক ইতিহাস রচনার পথে এক সময়ের পরাক্রমশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে স্রেফ উড়িয়ে দিল আয়ারল্যান্ড। স্টারলিং-জয়েসরা রাস্তার ফকির বানালেন ক্রিস গেইল-ড্যারেন সামিদের! ম্যাচে ক্রিকেটীয় রসদের কমতি ছিল না। একপর্যায়ে দলীয় ৭৮ রানে চতুর্থ ও ২৩.৩ ওভারে ৮৭ রানে পঞ্চম উইকেট হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে উইন্ডিজ। সেখান থেকে তিন শ’র ওপরে যাওয়ার রূপকার লেন্ডল সিমন্স ও ড্যারেন সামি। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ২১.১ ওভারে ১৫৪ রান যোগ করে তারা। সর্বোপরি বিশ্বকাপে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে তৃতীয় সর্বাধিক রান সংগ্রহের নজির এটি।

সর্বোচ্চ আইরিশদেরইÑ এআর কুশক ও কেভিন ও’ব্রায়েনের (২০১১ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে)! ৮৪ বলে ৯ চার ও ৫ ছক্কায় ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেয়া সিমন্স ফেরেন ১০২ রান করে। সামির ব্যাট ছিল আরও ধারালো। ৬৭ বলে ৯ চার ও ৪ ছক্কায় ৮৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাবেক অধিনায়ক। আউট হলেও বিশ্বকাপে নতুন রেকর্ড গড়েন সামি। সাত নম্বরে নামা কোন ব্যাটসম্যানের এটিই সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। আগেরটি ছিল পাকিস্তানের শহীদ মাহবুবের, ১৯৮৩ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৭৭ রান। বড় তারকা ক্রিস গেইল ফেরেন ৩৬ রান করে। আয়ারল্যান্ডের হয়ে স্পিনার জর্জ ডকরেল নেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট। যে করেই হোক, ক্যারিবীয়রা যখন ৩০৪ রান করে ফেলে, অনেকেই ধারণা করেছেন ম্যাচটি ওয়েস্ট ইন্ডিজ একতরফাভাবে জিতে নেবে!

অনুমান ভুল প্রমাণ করে ম্যাচটা উল্টো আইরিশরা নিজেদের পক্ষে একতরফা বানিয়ে ফেলল। এমনভাবে ব্যাটিং করল, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কখনও মনে হয়নি তারা হারতে পারে! উদ্বোধনী জুটিতে ১৩ ওভারে এলো ৭১ রান, এরপর ২ উইকেটে ১৭৭, ৩ উইকেটে ২৭৩!! আরও বড় ব্যবধানেই জেতা উচিত ছিল আয়ারল্যান্ডের। ম্যাচের নায়ক স্টারলিং ৯২, অপর দুই তারকা এড জয়েস ৬৭ বলে ৮৪ ও নাথান ও’ব্রায়েন ৬০ বলে অপরাজিত থাকেন ৭৯ রানে। উইন্ডিজের হয়ে জেরমো টেইলর নেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট।

প্রকাশিত : ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৭/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: