হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বি’বাড়িয়ায় সংঘর্ষে আহত অর্ধ শতাধিক

প্রকাশিত : ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে অগ্নিসংযোগ, লুট

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ সদর উপজেলার রাজঘর গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। সংঘর্ষের সময় দাঙ্গাবাজরা একটি মার্কেটের ৭টি দোকান, ৮টি বাড়ি ঘর আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। এছাড়া আরও ৪টি দোকান ভাংচুর ও লুটপাট চালায় দাঙ্গাবাজরা। পুলিশ জানায়, নাটাই উত্তর ইউনিয়নের রাজঘর গ্রামের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ ও একই গ্রামের আইনজীবী আলী আজমের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। গত শুক্রবার বিকালে রাজঘর-থলিয়ারার মাঝখানে নতুন সূর্যোদয় নামে একটি যুব সংগঠনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করে এ্যাডঃ আলী আজমের সমর্থকরা। এ সময় একটি ছেলে পটকা (বাজি) ফোটালে তাকে মারধর করে আলী আজমের সমর্থকরা। এর জের ধরে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রায় দু’ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে এলাকায় বাড়িঘর, দোকানপাটে আগুন দেয়াসহ ব্যাপক ভাংচুর, লুটপাট হয়। শনিবার সকালে জিলন মার্কেট এলাকায় ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল মিয়াসহ এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা দু’পক্ষকে নিয়ে মীমাংসার জন্য বসে। এ সময় ফের উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে পুরো দুটি গ্রামই রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। দু’দিনের সংঘর্ষে জিলন মার্কেটের ৭টি দোকানে আগুন, ৪টি দোকান ভাংচুর, আবুজান মার্কেটের কয়েকটি দোকান, কুদ্দুস মিয়ার মার্কেটের কয়েকটি দোকানে, হাসির মেম্বার, পরশ মিয়া, কাউসার, হাবিব মোল্লা, ফারুক মিয়ার বাড়িসহ বেশ কয়েকটি বাড়িতে আগুন দেয় দাঙ্গাবাজরা। আগুনে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়। এছাড়া বেশ কয়েকটি বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের শিকার হয়।

প্রকাশিত : ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০১/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: