মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

চরফ্যাশনের চরাঞ্চলে বাড়ছে শিক্ষাবঞ্চিত শিশু

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী ২০১৫

এ আর এম মামুন, চরফ্যাশন, ভোলা ॥ যে বয়সে বইপত্র নিয়ে বিদ্যালয়ে যাওয়ার কথা, সে বয়সে নদীতে মাছ ধরে বাবা-মাকে সহযোগিতা করছে শিশু আফজাল (১০)। তার বাড়ি ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার চরফারুকী গ্রামে। আফজালের মতো চরফ্যাশনের ২৫টি দুর্গম চরাঞ্চলে প্রায় দুই হাজার শিশু শিক্ষাবঞ্চিত রয়েছে।

জানা গেছে, চরফ্যাশনের দুর্গম জনবসতিপূর্ণ চরাঞ্চলগুলোতে পর্যাপ্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না থাকা, অভিভাবকদের অর্থনৈতিক সঙ্কট ও অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে চরাঞ্চলের কোমলমতি শিশুরা শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

আবার যেসব চরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে সেগুলোতে নিয়মিত পাঠদান হয় না বলে অভিযোগ রয়েছে। বিভিন্ন এনজিও শিক্ষা কার্যক্রম চালালেও দুর্গম চরাঞ্চলগুলোতে এ কার্যক্রম চালাচ্ছে না। ফলে চরাঞ্চলের শিশুদের ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও বিদ্যালয়ে যেতে পারছে না।

চরফ্যাশন উপজেলায় জনবসতিপূর্ণ চর রয়েছে প্রায় অর্ধশত। এগুলোর মধ্যে- চরকুকরী-মুকরী, চরকচ্ছপিয়া, চরপাতিলা, ঢালচর, চরমনোহর, সিকদারচর, চরলিউলিন, চরফারুকী, চরহাসিনা ও লক্ষ্মীরচর চরফ্যাশনের মূল ভূখ- থেকে একেবারই বিচ্ছিন্ন। এসব চরের অধিকাংশ এলাকাতেই প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। যেসব চরে বিদ্যালয় রয়েছে তাও প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। চরের সাবেক ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, ইউপি সদস্য গিয়াসউদ্দিনের সঙ্গে কথা বললে তাঁরা জানান, চরে বিদ্যালয় না থাকা, শিক্ষক সঙ্কট, দুর্গম যোগাযোগ ব্যবস্থা ও শিক্ষকদের অনুপস্থিতিই শিশুদের বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ার মূল কারণ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রেজাউল করিম বলেন, চরফ্যাশনের অধিকাংশ চর দুর্গম এবং বিদ্যালয় সঙ্কট থাকায় বিদ্যালয়বহির্ভূত শিশুর সংখ্যা বাড়ছে।

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী ২০১৫

২৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: