কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

প্রবৃদ্ধির সঙ্গে আপোস না করে সমাজ ও পরিবেশবান্ধব পুঁজি প্রবাহের স্বীকৃতি

প্রকাশিত : ৭ জানুয়ারী ২০১৫
প্রবৃদ্ধির সঙ্গে আপোস না করে সমাজ ও পরিবেশবান্ধব পুঁজি প্রবাহের স্বীকৃতি
  • সেরা গবর্নর পদক উৎসর্গ করা হলো প্রধানমন্ত্রী ও মুক্তিযোদ্ধাদের
  • এশীয়-প্যাসিফিক অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি স্থিতিশীল বাংলাদেশের অর্থনীতি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সেরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকার নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান। প্রবৃদ্ধি ও সামষ্টিক অর্থনীতির স্থিতিশীলতার পাশাপাশি সামাজিক ও পরিবেশবান্ধব উদ্যোগে পুঁজির প্রবাহ বাড়ানোর স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁকে এ সম্মাননা জানানো হয়। অর্জিত এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের সেরা গবর্নর পদক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি উৎসর্গ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান। মঙ্গলবার দুপুরে পদক পাওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ পদকটি উৎসর্গ করেন। এদিকে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সেরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকার নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া, প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ।

গত সোমবার লন্ডনভিত্তিক ফাইন্যান্সিয়াল টাইমস গ্রুপের অর্থবিষয়ক ম্যাগাজিন দ্য ব্যাংকার এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল থেকে আতিউর রহমানকে ২০১৫ সালের ‘সেন্ট্রাল ব্যাংকার অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণা করে। এতে বলা হয়, প্রবৃদ্ধি বা সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার সঙ্গে কোন আপোস না করে পরিবেশবান্ধব ও সমাজসচেতন উন্নয়নে পুঁজি সরবরাহ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গবর্নর আতিউর রহমান। এই স্বীকৃতি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরতে মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংক এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। গবর্নর তাঁর অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, এই অর্জন আমার একার নয়। পুরো আর্থিক খাতের সম্মিলিত প্রয়াসে দেশের অর্থনীতিতে যে স্থিতিশীলতা তৈরি হয়েছে এটি তারই স্বীকৃতি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গবর্নরের মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি দায়িত্বে বহাল করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এই পুরস্কার সরকার প্রধানকে উৎসর্গ করেন গবর্নর।

তিনি বলেন, এটি আমার একক সাফল্য নয়। আমি এবার আমার এই সাফল্যের স্বীকৃতিটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উৎসর্গ করছি, যিনি আমাকে পর পর দু’বার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গবর্নরের দায়িত্ব দিয়ে বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতকে বিশ্ববাসীর নজরে আনার সুযোগ করে দিয়েছেন। একই সঙ্গে গবর্নর মুক্তিযুদ্ধে যাঁরা শহীদ হয়েছেন সেইসব বীরাঙ্গনার প্রতি উৎসর্গ করেন এই পুরস্কার। পাশাপাশি পরিবারের সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ড. আতিউর রহমান। গবর্নর বলেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থায়ন, আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সিএসআর কর্মকাণ্ড ও সবুজ অর্থায়ন- এই ত্রিধারার নতুন উদ্যোগ মিলে অর্থনীতিতে যে স্থিতিশীলতা তৈরি হয়েছে, তা কেবল সম্মিলিত প্রয়াসের কারণে সম্ভব হয়েছে। আতিউর রহমান বলেন, এই স্বীকৃতি প্রমাণ করে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন সবচেয়ে বেশি স্থিতিশীল। দ্য ব্যাংকারের ওয়েবসাইটে আর্থিক সেবাবঞ্চিত ক্ষুদ্র কৃষকদের সহায়তাকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নরের প্রধান পদক্ষেপ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক ১০ লাখ ক্ষুদ্র কৃষককে ৫০০ কোটি টাকার ঋণ দিয়েছে, যাঁদের ৫৫ শতাংশই নারী। এই প্রকল্পের আদায়ের হার ৯৯ শতাংশ। ছিন্নমূল শিশুদের আর্থিক সেবার আওতায় নিয়ে আসাকেও তার অন্যতম পদক্ষেপ বলে বিবেচনা করা হয়েছে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ২০০ কোটি টাকার পুনর্অর্থায়ন তহবিল গঠন করেছে, যার আওতায় ১ কোটি ৪০ লাখ ছিন্নমূল শিশুর সঞ্চয়ী হিসাব খোলা হয়েছে। দ্য ব্যাংকার আরও বলেছে, ২০০৯ সালে আতিউর রহমান গবর্নর হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে বাংলাদেশের আর্থিক খাতে সামাজিক ও পরিবেশবান্ধব অর্থায়নের তাগিদ সৃষ্টির উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তাঁর দায়িত্ব পালনকালে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ তিনগুণ বেড়েছে ২২ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র ম. মাহফুজুর রহমানের পরিচালনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে চার ডেপুটি গবর্নর আবুল কাশেম, রাজী হাসান, এস কে সূর চৌধুরী ও নাজনীন সুলতানা, চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট এডভাইজার আল্লাহ মালিক কাজমী ও প্রধান অর্থনীতিবিদ বীরুপাক্ষ পাল বক্তব্য রাখেন।

এদিকে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সেরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকার নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার এক অভিনন্দন বার্তায় প্রধানমন্ত্রী কৃষিবান্ধব ও গ্রিন ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রবর্তন, সামষ্টিক অর্থনীতি ও সার্বিক ব্যাংকিং ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা পুনর্প্রতিষ্ঠায় আতিউরের বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। ‘সেরা ব্যাংকার নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর আতিউর রহমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া এবং প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ। মঙ্গলবার এক অভিনন্দনবার্তায় স্পীকার বলেন, ড. আতিউর সামষ্টিক অর্থনীতি ও সার্বিক ব্যাংকিং ব্যবস্থাপনায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন এবং কৃষিবান্ধব ও গ্রিন ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রবর্তনে তার বলিষ্ঠ ভূমিকা রয়েছে। ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া তাঁর অভিনন্দন বার্তায় বলেন, ড. আতিউর এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সেরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকার নির্বাচিত হয়ে জাতিকে অত্যন্ত গৌরবান্বিত করেছেন। এ অর্জন ব্যাংকিং জগতে বাংলাদেশের অবস্থানকে আরও সুদৃঢ় করবে। গবর্নরকে অভিনন্দন জানিয়ে প্রধান হুইপ ফিরোজ বলেন, ড. আতিউর এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল থেকে ‘সেন্ট্রাল ব্যাংকার অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হয়ে আমাদের জন্য আনন্দ ও সম্মান বয়ে এনেছেন। ব্যাংকিং খাতে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল থেকে শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার কার্যালয় থেকে পাঠানো এক অভিনন্দন বার্তায় রওশন এরশাদ বলেন, এই বিশ্ব মন্দার মধ্যেও গবর্নর ড. আতিউর রহমান তাঁর মেধা, প্রজ্ঞা, জ্ঞান ও দক্ষতা দ্বারা বাংলাদেশে স্থিতিশীল অর্থনীতি বজায়, অন্তর্ভুক্তিমূলক ব্যাংকিং, গ্রিন ব্যাংকিং এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন। এর আগেও তিনি অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কল্যাণে বিশেষ অবদান রেখেছেন। বার্তায় তিনি আরও বলেন, ড. আতিউর রহমান বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতকে বিশ্ববাসীর নজরে আনার সুযোগ করে দেয়ায় আমরা গর্ববোধ করছি। ড. আতিউর রহমানের উত্তরোত্তর সাফল্য ও মঙ্গল কামনা করেন বিরোধীদলীয় নেতা। এর আগে আতিউর রহমান ভারতের ইন্দিরা গান্ধী স্বর্ণ স্মারক, ফিলিপিন্সের গুসি শান্তি পুরস্কারসহ বিভিন্ন পুরস্কার পেয়েছেন।

প্রকাশিত : ৭ জানুয়ারী ২০১৫

০৭/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: