কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজশাহীতে হাসি ফুটেছে ২শ’ ছিন্নমূল শিশুর মুখে

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫
  • নতুন বছর উদযাপনের টাকায়

মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী ॥ বছরের প্রথম দিনের সোনালি রোদ্দুর ছড়ানো দুপুর। পথের ধারে রাজশাহী নগরীর ছিন্নমূল মানুষের আবাসস্থল ভদ্রাবস্তি। ছোট ছোট একঝাঁক শিশু। সংখ্যায় প্রায় দু’শ’। খুপরিঘর থেকে বেরিয়ে সূর্যের আলোয় শীত নিবারণের চেষ্টা। এদের কারও শরীরে সামান্য পোশাক। কেউ খালি গায়ে। বছরের প্রথম দিনে অভাবী এই শিশুদের মধ্যে হঠাৎ উপচে পড়ল আনন্দের ঢেউ। বছরের প্রথম দিনে তাদের এই আনন্দের পেছনে রয়েছে একদল তরুণ-তরুণীর প্রচেষ্টা।

বস্তিতে বসবাস করা এই শিশুদের মুখে হাসি ফোটানোর চেষ্টায় ছুটে এসেছেন তারা। সবার জন্য শীত নিবারণের গরম কাপড় সঙ্গে দুপুরের উন্নতমানের খাবার। শেষে মিষ্টিমুখ করে হাসি ফোটানোর চেষ্টা ওদের। তরুণদের এই দলের লক্ষ্য বছরের প্রথমদিন অভাবী এই শিশুদের মুখে একচিলতে হাসি ফোটানো। হাসি দিয়েই শুরু হোক তাদের নতুন বছরের প্রথম দিন। তাই সবাইকে উন্নতমানের খাওয়ার দেয়ার পর মুখে তুলে দেয়া হয় মিষ্টি। উদ্যমী এই তরুণদের এ প্রচেষ্টায় বৃহস্পতিবার হাসিমুখেই বছর শুরু হলো অভাবী পরিবারের অন্তত দু’শ’ শিশুর। শুধু তারাই নয়, এ উদ্যোগে খুশি তাদের অভিভাবকরাও। ওই বস্তির শিশু নাহিদ, সীতারা ও অনন্ত জানায় তারা খুব খুশি। নতুন কিংবা পুরনো বছর তারা বোঝে না। ঈদের পর অনেক ভাল খাবার ও শীতের জামা-কাপড় পেয়ে অনেক খুশি লাগছে বলে জানায়। জানা গেছে, থার্টিফার্স্ট ও নতুন বছর উদযাপন না করে সেই টাকা দিয়ে এ ব্যতিক্রমী উদ্যোগের আয়োজন করেছে রাজশাহীর ড্রেম মেকিং প্রডাক্টশন নামের একটি চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। তারা নিজেদের অনুষ্ঠানের জন্য না ভেবে শিশুদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য এ উদ্যোগ গ্রহণ করে। এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক শাহরিয়ার চয়ন এবং শিল্প নির্দেশক নার্গিস সোমা জানান, অভাবী শিশুদের মুখে হাসি দিয়ে নতুন বছর শুরুর লক্ষ্য নিয়ে তারা এ উদ্যোগ নিয়েছেন। নিজেরা থার্টিফার্স্ট ও নতুন বছর বরণের আনন্দে না মেতে শিশুদের মুখের হাসি ফোটানোর মধ্যেই নতুন বছরের পথচলায় আনন্দ ভাগাভাগি করতেই এ উদ্যোগ।

ফরিদপুরে পল্লীকবি জসীম উদ্দীনের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ১ জানুয়ারি ॥ ফরিদপুরে নানা আয়োজনে পল্লীকবি জসীমউদ্দীন-এর ১১২তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার পল্লীকবির মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর কবরস্থানের পাশে জেলা প্রশাসন ও জসীম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ, আলোচনা সভা ও মিলাদ এবং দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সকালে জেলা প্রশাসন, জসীম ফাউন্ডেশন, ফরিদপুর প্রেসক্লাব, ফরিদপুর সাহিত্য পরিষদ, ফরিদপুর সাহিত্য ও সংস্কৃতি উন্নয়ন সংস্থা, আনসারউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পল্লী কবির কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আব্দুর রশীদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আনোয়ারুল ইসলাম, অধ্যাপক এমএ সামাদ, অধ্যাপক আলতাফ হোসেন, মু. আবুল ফয়েজ শাহনেওয়াজ ও হাসানউজ্জামান।

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫

০২/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: