কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গণজাগরণ মঞ্চে আনন্দ মিছিল, মুক্তিযোদ্ধা ওজনতার উল্লাস

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪
গণজাগরণ মঞ্চে আনন্দ মিছিল, মুক্তিযোদ্ধা ওজনতার উল্লাস

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াতের এটিএম আজহারুল ইসলামের ফাঁসির রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্টজন থেকে শুরু করে প্রজন্ম সেনা, সেক্টর কমা-ার্স ফোরাম সহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। প্রতিক্রিয়ায় তাঁরা মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আপীলের রায় দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান। পাশাপাশি বিচার প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করারও তাগিদ দেন তাঁরা। এদিকে কামারুজ্জামানের মৃত্যুদ- কার্যকরের দাবিতে প্রতি শুক্রবার বিকেল চারটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত শাহবাগে গণঅবস্থান কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চ।

বিশিষ্টজনদের প্রতিক্রিয়া ॥ রায়ের পর প্রতিক্রিয়ায় অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, এই রায়ের মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম তাদের অপরাধের কথা জানতে পারবে। বীরাঙ্গনাদের অবদানের কথা রায়ে বলা হয়েছে। রাষ্ট্রকে বলা হয়েছে তাদের স্বীকৃতি ও পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়ার জন্য। এটা একটি যুগান্তকারী ঘটনা। এ রায়ে তিনি সন্তুষ্ট বলেও জানিয়েছেন।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক বলেন, একাত্তরের এই ঘৃনিত যুদ্ধাপরাধীর সর্বোচ্চ সাজার রায়ে ন্যায়ের স্বীকৃতি পেলাম। দেশবাসীর সঙ্গে আমিও আনন্দিত। তিনি আরও বলেন, আপীলের নামে যাতে রায় কার্যকরে বিলম্ব না হয় সেই প্রত্যাশা করছি। রায়ে বীরাঙ্গনাদের রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেয়ার বিষয়েও সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা বিচ্ছু জালাল বলেন।

দ্রুত দ- কার্যকর দাবি সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের ॥ জামায়াত নেতা আজহারুলের মৃত্যুদ-ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১। মঙ্গলবার ফোরামের পক্ষ থেকে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়, ফোরাম মনে করে অনেক বিলম্বে হলেও এই রায়ের মধ্য দিয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কারণ মুক্তিযুদ্ধের সময় সাবেক ইসলামী ছাত্র সংঘ ও আলবদর নেতা আজহারুলের ইসলাম রংপুর অঞ্চলের ত্রাস হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিল। সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম একই সঙ্গে চূড়ান্ত বিচার প্রক্রিয়া শেষে প্রত্যেক যুদ্ধাপরাধীর দ- কার্যকরের দাবি জানাচ্ছে।

রায় কার্যকরের দাবিতে প্রজন্ম চত্বরে অবস্থান নেবে গণজাগরণ মঞ্চ ॥ এটিএম আজহারের বিরুদ্ধে ফাঁসির রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। রায়ের প্রতিক্রিয়া মঞ্চের মুখপাত্র ডাঃ ইমরান এইচ সরকার বলেন, দেশবিরোধী কুখ্যাত এই খুনীর প্রাপ্যদ- পাওয়ার মাধ্যমে দায়মুক্তির পথে আরেক ধাপ এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। আমরা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার এই ঐতিহাসিক রায়কে স্বাগত জানাই। একইসঙ্গে কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের চূড়ান্ত রায় কার্যকরে অনাকাক্সিক্ষত বিলম্বে গণজাগরণ মঞ্চ উদ্বেগ প্রকাশ করছে। নতুন ষড়যন্ত্রে যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের রায় কার্যকরে কালক্ষেপণ করার চেষ্টা করলে আবারও রাজপথে অবস্থান নেবে গণজাগরণ মঞ্চ।

আজহারের রায় কেন্দ্র করে সকাল থেকে প্রজন্ম চত্বরে অবস্থান নেয় মঞ্চের কর্মীরা। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংগঠন, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা এতে অংশ নেন। রায়ের খবর প্রজন্ম চত্বরে আসা মাত্রই আনন্দ উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন সবাই। বিজয়সূচক চিহ্ন দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। অনেকে আকাশে তুলে ধরেন জাতীয় পতাকা। সমস্বরে সেøাগান ওঠে এইমাত্র খবর এলো আজহারের ফাঁসি হলো/জয় হলো রে জয় হলো- শাহবাগের জয় হলো। এরপর বের জয় বিজয় মিছিল। মিছিলটি শাহবাগ থেকে টিএসসি হয়ে আবারও প্রজন্ম চত্বরে ফিরে আসে।

সমাবেশ শেষে ঘোষণা দেয়া হয়- অবিলম্বে রাজাকার কামারুজ্জামানের মৃত্যুদ- কার্যকরের দাবিতে প্রতি শুক্রবার বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত শাহবাগে গণঅবস্থান কর্মসূচী পালন করবে গণজাগরণ মঞ্চ। এছাড়া একই দাবিতে দেশব্যাপী গণসংযোগ কর্মসূচীও অব্যাহত থাকবে। ইমরান বলেন, এরই মধ্যে যুদ্ধাপরাধী সংগঠন জামায়াতে ইসলাম সারাদেশে নাশকতার চেষ্টা শুরু করেছে। যার ধারাবাহিকতায় ২ দিনের হরতালের কর্মসূচী ঘোষণা করেছে। আমরা সন্ত্রাসী ও যুদ্ধাপরাধী সংগঠন জামায়াত-শিবিরের হরতাল প্রত্যাখ্যান করছি এবং সকল দেশপ্রেমিক জনতাকে এই হরতালের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণের বিনীত আহ্বান জানাচ্ছি।

আজ বুধবার ও বৃহস্পতিবার পূর্বঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী গণজাগরণ মঞ্চ সকাল ১১টা থেকেই শাহবাগে হরতালবিরোধী অবস্থান গ্রহণ করবে। ইমরান বলেন, সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই প্রতিশ্রুতি মোতাবেক অবিলম্বে বাংলাদেশবিরোধী, পাকিস্তানপন্থী যুদ্ধাপরাধী সংগঠন জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করে জাতিকে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির ভয়াল থাবা থেকে রক্ষা করুন।

সন্তুষ্ট সিপিবি ॥ আজহারুল ইসলামের মৃত্যুদ-ের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে সিপিবি। সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেছেন, জামায়াত নেতা আজহারের মৃত্যুদ-ের যে রায় ঘোষিত হয়েছে, তা ন্যায়বিচারের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। এই মৃত্যুদ-ের রায়ে দেশবাসী সন্তুষ্ট। এ রায়ে জনগণের আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটেছে। রায় দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, এই রায়ে দেশবাসী সন্তুষ্ট হলেও এ রায় আদৌ কার্যকর হবে কিনা, নানা কারণে তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। অতীতের ঘটনাবলী এ সংশয় সৃষ্টি করেছে। এই রায় যাতে রাষ্ট্রপতি লাঘব বা মওকুফ করতে না পারেন, তার জন্য দ্রুতই সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ কাজটি করতে হবে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ যুদ্ধাপরাধী ও সন্ত্রাসী সংগঠন জামায়াত-শিবিরের বিচার এবং নিষিদ্ধের দাবি জানান।

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪

৩১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: