আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এক বছরে মোবাইল গ্রাহক বেড়েছে ৬৭ লাখ

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ এক বছরে মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে ৬৬ লাখ ৭৫ হাজার। ইন্টারনেট গ্রাহক বেড়েছে ৭২ লাখ ৯০ হাজার ৪০৮ জন। তবে মোবাইল ফোন অপারেটর এয়ারটেল ও সিটিসেল গ্রাহক হারাচ্ছে। গত এক বছরে এয়ারটেলের চার লাখ ১৮ হাজার ও সিটিসেলের এক লাখ ৩৫ হাজার গ্রাহক কমেছে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন গত ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট গ্রাহকদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। বিটিআরসির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশে মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা ১২ কোটি ২৬ লাখ ৫৭ হাজার। গত বছরের একই সময়ে এ সংখ্যা ছিল ১১ কোটি ৫৯ লাখ ৮২ হাজার। অপারেটরদের মধ্যে গত এক বছরে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক বেড়েছে গ্রামীণফোনের (জিপি)। জিপির গ্রাহক বেড়েছে ৩৩ লাখ ৮৬ হাজার। বাংলালিংকের গ্রাহক বেড়েছে ২৪ লাখ ৬৪ হাজার, রবির ছয় লাখ ৬৯ হাজার। রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন কোম্পানি টেলিটকের গ্রাহক বেড়েছে সাত লাখ ১০ হাজার। গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে এয়ারটেলের গ্রাহক সংখ্যা ছিল ৮৩ লাখ ৬২ হাজার, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি নাগাদ এ সংখ্যা হয় ৭৯ লাখ ৪৪ হাজার। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিটিসেলের গ্রাহক সংখ্যা ছিল ১৩ লাখ ৯৮ হাজার, যা চলতি বছরের একই সময়ে হয়েছে ১২ লাখ ৬৩ হাজার। ফেব্রুয়ারিতে জিপির গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ কোটি ১৫ লাখ ৯৯ হাজার, বাংলালিংকের তিন কোটি ১৫ লাখ ১৫ হাজার, রবির দুই কোটি ৬৪ লাখ ১৪ হাজার, এয়ারটেলের ৭৯ লাখ ৪৪ হাজার, সিটিসেলের ১২ লাখ ৬৩ হাজার ও টেলিটকের ৩৯ লাখ ২২ হাজার। গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ইন্টারনেটের গ্রাহক হয়েছে চার কোটি ৩৪ লাখ ১৯ হাজার। ২০১৪ সালের একই সময়ে গ্রাহক ছিল তিন কোটি ৬১ লাখ ২৮ হাজার ৫৯২ জন। এক বছরে মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা বেড়েছে ৭৩ লাখ ৫৫ হাজার ৫১০ জন। মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক এক বছর আগে তিন কোটি ৪৬ লাখ তিন হাজার ৪৯০ থাকলেও এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার কোটি ১৯ লাখ ৫৯ হাজার।

মানবনির্মিত বাংলাদেশের মানচিত্র প্রদর্শন করল এক্সিম ব্যাংক

একতার শক্তিকে তুলে ধরতে এক্সিম ব্যাংকের নির্বাহী ও কর্মকর্তাবৃন্দ ঐক্যবদ্ধভাবে নির্মাণ করল বাংলাদেশের লাল-সবুজের মানচিত্র। শনিবার ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে ব্যাংকের নির্বাহী ও অফিসারবৃন্দের বার্ষিক গেট টুগেদার ২০১৫ উপলক্ষে আয়োজিত দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শুরুতেই মানবনির্মিত এই মানচিত্র প্রদর্শন করা হয়। ব্যাংকের প্রায় দুই হাজার নির্বাহী ও অফিসার কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়ে তৈরি করেন বাংলাদেশের মানচিত্র। এ সময় বিজিএমইএ-গর্ব সঙ্গীত প্রতিযোগিতার সেরা ১০ শিল্পী জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিচালনা পর্ষদের সদস্যবৃন্দ। সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোহাম্মাদ হায়দার আলী মিয়া। -বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫

০৫/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: