আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রিয়াদের ব্যাটে পারিবারিক অনুপ্রেরণা!

প্রকাশিত : ১১ মার্চ ২০১৫
রিয়াদের ব্যাটে পারিবারিক অনুপ্রেরণা!
  • সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীর চোখে তামিম-সাকিবের চেয়ে সেরা ব্যাটসম্যান
  • মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রতিটি ম্যাচের আগে জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হয়। বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময় যখনই বাজতে থাকে, ‘মা তোর মুখের বাণী আমার কানে বাজে সুধার মতো...’ তখনই মায়ের কথা খুব মনে পড়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের। পরিবারের কাছ থেকে গত ২৪ জানুয়ারি হতে দূরে আছেন তিনি। আর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচ শুরুর আগে ওই লাইনগুলো আরও বেশি করে তাঁকে মায়ের মুখ মনে করিয়ে দিয়েছে। স্বপ্ন অনেক আগে থেকেই ছিল বিশ্বকাপে শতক হাঁকানোর। ক্যারিয়ারের প্রথম শতকটা পেলেন বিশ্বকাপে এসেই। বাংলাদেশের পক্ষে বিশ্বকাপের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হওয়ার গৌরব অর্জনও করেছেন। আর সেটা হওয়ার পরই তিনি উড়ন্ত চুমু ছুড়ে দিয়েছেন। জানিয়েছেন সেটা ছিল তাঁর স্ত্রী ও সন্তানের উদ্দেশে। পারিবারিক অনুপ্রেরণাই তাঁকে শতক পাইয়ে দিয়েছে বলে দাবি করেছেন মাহমুদুল্লাহ। শক্তিশালী ইংল্যান্ডকে কুপোকাত করার মতো সংগ্রহ বাংলাদেশ পেয়েছে তাঁর সময়োপযোগী এ শতকের কারণেই। আর সেটা দেখে মুগ্ধ হয়েছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীও। তাঁর দাবি এই মুহূর্তে তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের চেয়েও ভাল ব্যাটসম্যান মাহমুদুল্লাহ।

ক্যারিয়ারের দীর্ঘ সময় মাহমুদুল্লাহ ব্যাট করেছেন ৬/৭ নম্বরে নেমে। কিন্তু তাঁকে এখন নিয়মিতই ৪ নম্বরে ব্যাট করছেন। আগের ১১৩ ওয়ানডেতে ১২ অর্ধশতক হাঁকালেও সেঞ্চুরির দেখা পাননি। অবশেষে সেটা পেয়ে গেছেন বিশ্বকাপে। চাপের মধ্যে থেকে খেলেছেন দলের বিপদের মুহূর্তে দারুণ এক ইনিংস। ১৩৮ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ১০৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান তিনি। তাঁর ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ গাঙ্গুলী বলেন, ‘তামিম এবং সাকিব খুব ভাল ব্যাটসম্যান। কিন্তু ধারাবাহিকতার দিক থেকে বিবেচনা করলে মাহমুদুল্লাহ তাঁদের চেয়ে ভাল। বাংলাদেশ দলের জন্য তিনি অনেক বড় খেলোয়াড়। আগে তাঁকে পরের দিকে ব্যাটিংয়ে নামানো হতো। কিন্তু এখন তাঁকে টপঅর্ডারে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা অনেক ভাল হয়েছে।’ আস্থার জবাবটা ভালভাবেই দিয়েছেন মাহমুদুল্লাহ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে। বিশ্বকাপে দেশের পক্ষে প্রথম শতক হাঁকানোর গর্বিত ব্যাটসম্যান এখন তিনি। এদিন ম্যাচের আগে জাতীয় সঙ্গীত বাজার সময়ই মায়ের কথা অনেক মনে পড়েছিল তাঁর। এ বিষয়ে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘উড়ন্ত চুমুটা ছিল আমার স্ত্রী ও সন্তানের জন্য। তাঁরা মাঠে আসতে পারেনি, হোটেলে বসেছিল। আমি আজ মাকে অনেক মনে করেছি। যখন জাতীয় সঙ্গীতের দ্বিতীয় অন্তরা বাজছিল তখন খুবই মনে পড়ছিল। অনেকদিন তাঁকে দেখিনি। যতদিন ধরে আমি বাংলাদেশের হয়ে খেলেছি এই ইনিংসটি আমার জন্য বিশেষ কিছু। এটা আমার প্রথম ওয়ানডে শতক। স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধেই এটা হতে পারত, কিন্তু হয়নি। তবে আজ সেঞ্চুরি নিয়ে চিন্তাই করিনি, স্বাভাবিকভাবে ব্যাট করতে চেয়েছি। চেষ্টা করেছি জুটি গড়তে। আমার মনে হয় যাদের সঙ্গে ব্যাটিং করেছি তাঁদের অনেক বড় ভূমিকা আছে আমার সেঞ্চুরির পেছনে।’

শুরু থেকেই আগুন বোলিং করছিলেন জেমস এ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড। বিশেষ করে প্রথমদিকে দুটি উইকেট নিয়ে আরও দুরন্ত হয়ে উঠেছিলেন এ্যান্ডারসন। এ বিষয়ে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘বিশেষ করে এ্যান্ডারসনের বিরুদ্ধে খেলা সহজ ছিল না। আমি আশায় ছিলাম আলগা বলের এবং সেটাকে উচিত শিক্ষা দিতে। সেটা যখন ঘটতে শুরু করল ব্যাট করাটা সহজ হয়ে গেল। বাজে বলকে মারাও বিশেষ এক দক্ষতা। সুতরাং আমার মনে হয় ওই সময় আমি ভাল ব্যাটই করেছি। আজ (সোমবার) ব্যাটিং করতে খুব ভাল লেগেছে।’ দলের শ্রীলঙ্কান কোচ চান্দিকা হাতুরাসিংহেকে বিশেষ ধন্যবাদ দিয়েছেন তিনি। কারণ হাতুরাসিংহে দলের সবাইকে পরামর্শ দিয়েছেন একই সঙ্গে দু’ধরনের মানসিকতা না রাখতে। আর সেটাই কার্যকরী হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘গত ১২ মাস আমি প্রত্যাশা অনুসারে নৈপুণ্য দেখাতে পারিনি, খুব কঠিন সময় গেছে। সেটাই আমার ক্যারিয়ারের শিক্ষার সময় ছিল। নিজের সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছি এ সময়ে। অনেক সমালোচনাও শুনতে হয়েছে। এটা আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে অনুপ্রাণিত করেছে। আমি ভাল করতে পারি সেটা দেখাতে পেরে এখন খুব ভাল লাগছে।’

প্রকাশিত : ১১ মার্চ ২০১৫

১১/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: