কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আবুল হাসানের অগ্রন্থিত কবিতা

প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৪

[স্বল্প সময়ের কাব্য জীবনে অকাল প্রয়াত কবি আবুল হাসান প্রচুর কবিতা নির্মাণ করেছেন। সব যে ছাপা হয়েছে, তা নয়। স্বাধীনতার পূর্বাপর সময়ে পত্র-পত্রিকার সংখ্যা সীমিত থাকায় ছাপার ক্ষেত্র ছিল সীমিত। তদুপরি প্রায় সব কাগজেই হাসানের কবিতা ছাপা হতো। গদ্যও লিখতেন। যে কোন স্থানে বসে যে কোন সময়ে কবিতা নির্মাণের সক্ষমতা ছিল তাঁর একান্ত নিজস্ব। তবে প্রকাশিত কাব্য বা পা-ুলিপি সংরক্ষণে যতœ-আত্তি কখনও নিয়েছেন তা নয়। ফলে তাঁর অনেক লেখাই নিরুদ্দেশের তালিকায়। পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত লেখা নিয়ে ১৯৮৬ সালে প্রকাশ করেছিলাম প্রকাশনা সংস্থা নসাস থেকে। ‘আবুল হাসানের অগ্রন্থিত কবিতা’ শিরোনামে প্রকাশিত হয়। প্রন্থটির সব কবিতাই সংবাদপত্র, সাময়িকী, একুশের সংকলন, লিটল ম্যাগাজিনে প্রকাশিত। গ্রন্থটি প্রকাশের পর আরও কবিতা পাওয়া যায়। ব্যক্ষমান

কবিতাটি ১৯৭৩ সালে সাপ্তাহিক ‘গণবাংলা’ কবিতার বিজয় দিবস সংখ্যায় প্রকাশিত। Ñজাফর ওয়াজেদ]

এক বিপ্লবীর আত্মকথন

আবুল হাসান

বন্দুক আমার বালিশ, বারুদ আমার বিখ্যাত বিশ্বাস।

আর পিস্তল আমার সরল সংকল্প, গ্রেনেড গর্বিত গোলাপ ভেবে

আমি আলিঙ্গন করি। আর কে তুমি প্রেমিক

রাত্রিবেলা নিদ্রার নরক বেছে নাও, নারীর শরীরে যখোন যুদ্ধ?

কে তুমি ধার্মিক, সামান্য ধর্মের শোকে শান্তি চাও,

যখন ধ্বংসের ধিতাং রোল সংসারের সর্বত্র ধ্বনিত?

হরিণের কানের মতোন কম্পমান কোমলতা চাও, কে তুমি কুমারী,

যখোন কোমলতা বোলতে পৃথিবীতে আর কিছুই অবশিষ্ট নেই?

হাওয়া বোলতে চতুর্দিকে এখন আমরা বুঝি

আগুনের হুলস্থূল শিখা।

সম্ভাষণ বোলতে বুঝি

মৃত্যুমুখ আত্মার ক্রন্দন।

আমাকে আর অন্ধকার কি দেখাবে

যখোন চতুর্দিক অন্ধকার

অধঃপতন আর কি শেখাবে,

যখোন জীবন বোলতেই আমরা অধঃপতন বুঝি।

আর অই শিশির পতনের সঙ্গে আমি কতদূর আর

আত্মাকে সবুজ কোরতে পারি

যখোন নিশির সংহারী দিন আমাদের সম্মুখে দাঁড়ানো?

প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৪

১৬/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন



ব্রেকিং নিউজ: