আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মাশরাফির কাছে সাকিবের হার

প্রকাশিত : ৭ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মোহামেডানের কমিটি থেকে বের হয়ে একের পর এক দল বানাচ্ছেন, দল পাল্টাচ্ছেন ক্রীড়াঙ্গনে বর্তমানে ‘বিষফোঁড়া’ হিসেবে পরিচিত হয়ে যাওয়া লুৎফর রহমান বাদল। এবার তার মালিকানাধীন ‘গাজী ট্যাংক ক্রিকেটার্সে’র নাম বদলে ‘লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ’ করেছেন। এই রূপগঞ্জ একের পর এক ম্যাচে ধরা খাচ্ছে। যে মোহামেডান থেকে বের হয়ে গেছেন, সেই মোহামেডানের কাছে শনিবার প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে এজাজ আহমেদের ১৩৬ রানে ১২ রানে হেরে টানা চার ম্যাচে হেরেছে রূপগঞ্জ। সাকিবও রূপগঞ্জকে বাঁচাতে পারছেন না। অথচ মাশরাফির নেতৃত্বে মোহামেডান ঠিকই জিতে চলেছে। এদিন মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সৌম্য সরকারের ১২৭ রানে পারটেক্সকে ১৩৪ রানে হারিয়ে সবার আগে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগের সুপারলীগে উঠে গেছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। মুশফিকুর রহীমের নেতৃত্বে প্রাইম দোলেশ্বরও একের পর এক জয় তুলে নিচ্ছে। সানজামুল ইসলামের (৫/৩০) দুর্দান্ত বোলিংয়ে শেখ জামালকে ১৩০ রানে হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর।

বিকেএসপিতে এজাজ চমক

এজাজ আহমেদের ১৩৬ রানে মোহামেডান ৩১৩ রান করার পর শেষ ওভারে জিততে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের ২০ রান প্রয়োজন ছিল। বোলার জিম্বাবুইয়ের সোলেমন মিরে। হাতে আছে ২ উইকেট। ব্যাট করছেন আগের ওভারেই মাশরাফির বলে চার-ছক্কা হাঁকানো শরীফুল্লাহ। প্রথম বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দিলেন শরীফুল্লাহ। জেতার আশা জেগে যায় রূপগঞ্জের। ৫ বলে যে জিততে ১৬ রান লাগে। এরপর আর খুঁজেই পাওয়া গেল না কোন ঝলক। বাকি ৫ বলে শরীফুল্লাহকে হারানোর সঙ্গে মাত্র ৩ রান নিতে পারে রূপগঞ্জ। হারও নিশ্চিত হয়। শেষপর্যন্ত ৩০১ রান করতে পারে।

মিরপুরে সৌম্য দ্যুতি

পয়েন্ট তালিকার ১১ নম্বরে থাকা দলের বিপক্ষে ১ নম্বর দলের লড়াই, স্বাভাবিকভাবেই জয় সেরা দলটিরই হবে। তাই বলে ১৩৪ রানের এত বড় জয়ই ধরা দেবে! জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে পঞ্চম ওয়ানডেতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া সৌম্য সরকারের শতকেই তা সম্ভব হয়েছে। ১৩ চার ও ১ ছক্কায় ১২৯ বল খেলে ১০০ রান করা সৌম্য শেষপর্যন্ত আরও একটি বাউন্ডারি ও ছক্কা হাঁকিয়ে ১৪৭ বল খেলে ১২৭ রান করে রান আউট হয়ে যান। তবে দলের স্কোরবোর্ড ততক্ষণে ২৩৮ রানে পৌঁছে যায়। শেষপর্যন্ত প্রাইম ব্যাংক ২৫১ রান করে। জবাবে পেসার তাসকিন আহমেদের (৪/১৬) গতির সামনে ১১৭ রানেই গুটিয়ে যায় পারটেক্স।

ফতুল্লায় সানজামুল ঝলক

শেখ জামালের যখন ৮২ রান, পরপর দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের আশা জাগালেন স্পিনার ইলিয়াস সানি। কিন্তু হ্যাটট্রিক আর করতে পারলেন না। তবে টানা দুই বলে দুই উইকেট নিয়ে শেখ জামালের ইনিংসের মাজা পুরোপুরিই ভেঙ্গে দেন ইলিয়াস। নেন এক এক করে ৪ উইকেট। ইলিয়াসের চেয়েও ঝলক দেখান সানজামুল ইসলাম। ইলিয়াসের ঘূর্ণির দ্যুতির আগে ৮২ রানের আগে তিনটি, এরপর আরও ২টি উইকেট নিয়ে প্রাইম দোলেশ্বরকে জিতিয়ে দেন সানজামুল। প্রাইম দোলেশ্বর ২৩০ রান করে ১৩০ রানেই শেখ জামালকে গুটিয়ে দিয়ে বড় জয়ও তুলে নেয়। সানজামুল ৮.১ ওভারে ১ মেডেনসহ ৩০ রান দিয়ে ৫ উইকেট শিকার করে ম্যাচসেরা হন।

স্কোর ॥ মোহামেডান ইনিংস ৩১৩/৭; ৫০ ওভার (এজাজ ১৩৬, মিঠুন ৭০, মিরে ৩৯, তানভির ২৯, আরিফুল ২৫; ডয়েশচেট ২/৫৩, সাকিব ২/৬১)।

লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ইনিংস ৩০১/৯; ৫০ ওভার (জুনায়েদ ৯১, শরীফুল্লাহ ৭২, সাকিব ৪৯, ফয়সাল ৩২; অমিত ৩/৬৩)।

ফল ॥ মোহামেডান ১২ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ এজাজ আহমেদ (মোহামেডান)।

প্রাইম ব্যাংক ইনিংস ২৫১/৮; ৫০ ওভার (সৌম্য ১২৭, শুভগত ৩০, সৈকত ২৬, মাহমুদুল্লাহ ২৫; মাসুম ৪/২৩)।

পারটেক্স ১১৭/১০; ৪২ ওভার (রেজাউল ২৪, মামুন ২৩, মেহরাব জুনিয়র ২১, মাসুম ২০*; তাসকিন ৪/১৬, শুভগত ৩/১১)।

ফল ॥ প্রাইম ব্যাংক ১৩৪ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ সৌম্য সরকার (প্রাইম ব্যাংক)।

প্রাইম দোলেশ্বর ইনিংস ২৩০/৮; ৫০ ওভার (আসিফ ৫৫, ডেভিড ৪৯, মুশফিক ৩৩, সুমন ২৭; রুবায়েত ৪/৫০)।

শেখ জামাল ইনিংস ১৩০/১০; ৩৭.১ ওভার (আরাফাত ২৩*, মাইশুকুর ২৩, তুষার ২৩, অমিত ২০; সানজামুল ৫/৩০, ইলিয়াস ৪/৩২)।

ফল ॥ প্রাইম দোলেশ্বর ১৩০ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ সানজামুল ইসলাম (প্রাইম দোলেশ্বর)।

প্রকাশিত : ৭ ডিসেম্বর ২০১৪

০৭/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: