মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ওয়ানডে সিরিজটাও বড় ব্যবধানে জিততে চাই

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪
  • এনামুল হক বিজয়

স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে ॥ কী নিয়ত! মাত্র কয়েকদিন আগেও চট্টগ্রাম টেস্ট শুরুর আগে মাঠে এসেই উইকেট দেখতেন মুশফিকুর রহীম। আর এখন সেই কাজটি করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। মুশফিক যে আর ওয়ানডে অধিনায়ক নন। বুধবার যেমন জিম্বাবুইয়ে-বিসিবি একাদশের ম্যাচটি শেষ হতেই ওয়ানডে দলের ক্রিকেটাররা কৃত্রিম আলোর নিচে অনুশীলন করতে প্রস্তুত হচ্ছেন। একদিন ছুটি নেয়ায় সাকিব, তামিম অনুশীলনে আসেননি। অনুশীলনে নামার আগেই উইকেটটি ভালভাবে পরখ করে নিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি। উইকেটের দিকে গভীর মনোযোগে অনেকক্ষণ তাকিয়ে থাকলেন। বুঝতে চাইলেন, ওয়ানডেতে কেমন উইকেট হবে। যতদূর জানা গেল, টেস্টের মতোই উইকেট হবে ওয়ানডেতে। এবারও ব্যাটিং নির্ভর উইকেটই হবে। আর এ উইকেটেই পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দুটি ম্যাচ জিতে, এরপর ঢাকায়ও ম্যাচগুলো জিতে বড় ব্যবধানেই সিরিজ জিততে চায় বাংলাদেশ। বিসিবি একাদশের অধিনায়ক ছিলেন এনামুল হক বিজয়। ওয়ানডে দলেও আছেন তিনি। প্রস্তুতি ম্যাচে ৮৮ রানে জিম্বাবুইয়েকে হারানোর পর বিজয়কে খুব আত্মবিশ্বাসী মনে হলো। তাইত ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে বলতেও পারলেন, ‘বড় ব্যবধানে সিরিজটা আমরা জিতব।’

প্রশ্ন ॥ টেস্টের চেয়ে জিম্বাবুইয়ের ওয়ানডে দল তো একটু কঠিনই হবে। আপনি তো প্রস্তুতি ম্যাচ খেললেন। কী বুঝলেন?

এনামুল হক বিজয় ॥ আসলে আমার কাছে মনে হয় ওয়ানডে ম্যাচে যে কোন বোলার বা ব্যাটসম্যান মোমেন্টাম চ্যাঞ্জ করে দেয়। সেক্ষেত্রে বলব ওদের দুর্বল ভাবার কোন কারণ নেই। টিম হিসেবে বলব যদি ঠিক মতো পারফর্ম করে, তাহলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। আমার কাছে মনে হয় আমরা অনেকটাই এগিয়ে থাকব।

প্রশ্ন ॥ দলের জন্য কী মেসেস থাকব?

এনামুল ॥ অবশ্যই থাকবে। উইকেট আজ পেস বোলার সহায়ক ছিল। পেসাররা অনেক ভাল বল করেছে। স্পিনাররা তিন চারজন বোলিং করেছে। তবে ও রকম বোলিং করে নাই। তবে পেসাররা ঠিক জায়গা বল করলে ভাল কিছু হবে। আল-আমিন, মাশরাফি, রুবেল ভাইরা যদি ঠিক জায়গায় বল করতে পারে, তাহলে ইনশাল্লাহ ভাল কিছু হবে।

প্রশ্ন ॥ আমাদের সামনের সারির কোন খেলোয়াড় প্রস্তুতি ম্যাচে খেলেনি, তারপরও রেজাল্ট এসেছে। এটা কী আমাদের উজ্জীবিত রূপের কারণে, নাকি ওরা বিধ্বস্ত এ জন্য?

এনামুল ॥ দুটোই হতে পারে। ওদের দলে দু’তিনজন প্রধান খেলোয়াড় খেলে নাই। সেক্ষেত্রে আমার কাছে মনে হয়, ওরা যদি ব্যাট করে তাহলে টিমটা আরও বেশি শক্তিশালী হবে। আমাদের পেস বোলাররা বেশি ভাল বোলিং করেছে। আমার খুব ভাল লেগেছে উ্ইকেট সহায়ক ছিল, পেস বোলাররা ভাল বোলিং করেছে। আর স্পিনাররা যদি এ্যাড হয় ...।

প্রশ্ন ॥ আপনি তো ওয়ানডে দলে ফিরলেন, এ রকম ফেরায় কী নিজেকে আউটসাইডার মনে হয়। মানিয়ে নিতে কী সমস্যা হয়?

এনামুল ॥ বেশ কিছুদিন পর আমরা ওডিআই খেলছি। অনেক অনুশীলন হচ্ছে। ইনশাল্লাহ চেষ্টা করব আরও ভাল কিছু করার। চেষ্টা করব যতটুকু পারি, খেলার আগেই যেন এ্যাডজাস্ট করে নিতে পারি।

প্রশ্ন ॥ মেন টিমের জন্য আপনার কোন মেসেস থাকব, ক্যাপ্টেন অথবা কোচের জন্য?

এনামুল ॥ অবশ্যই। ওদের সম্পর্কে আমরা মোটামুটি জানি। ভিডিও এ্যানালাইসিস হয়েছে। আজকের ম্যাচের ভিডিও এ্যানালাইসিসটাও দেখব। কোথায় আমাদের উইকনেস আছে, তখন হয় তো ভালভাবে দেখতে পারব। কিভাবে বোলিং করা যায়, কিভাবে ওদের বিরুদ্ধে ব্যাটিং করা যায়, তখন আরও ভাল মতো বুঝতে পারব।

প্রশ্ন ॥ বলছিলেন ওরা খুব মোরালি ডাউন?

এনামুল ॥ যদি বাংলাদেশ টিমের কথা বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে ২০১৪ সালে প্রথমদিকে আমরা ম্যাচ হেরেছি। কিন্তু টিম যতই ভাল হোক না কেন, যখন ক্লোজ ম্যাচ দুই তিনটা হেরে যায়, তখন চার নম্বর, পাঁচ নম্বর ম্যাচে একটু ম্যানটালি ডাউন থাকে। এটা একটা ব্যাপার। সেক্ষেত্রে ওই টিমের কাছে যদি তাই মনে হয় পর পর ওরা হারছে, সেক্ষেত্রে ম্যানটালি ডাউন তো হবেই। আর সে ব্যাপারটা আমাদের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে কাজে লাগাতে হবে।

প্রশ্ন ॥ এখন কী মনে হয় ওয়ানডে সিরিজ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে?

এনামুল ॥ যদি আমরা পারফেক্টলি পারফর্ম করি, তাহলে বড় ব্যবধানে সিরিজটা আমরা জিতব।

প্রশ্ন ॥ দু’তিন সন্ধ্যায় অনুশীলন করলেন, শিশির কী ফ্যাক্টর আসলে?

এনামুল ॥ শিশির হয় তো একটা ফ্যাক্টর হবে। আমার কাছে মনে হয়, বলটা কেয়ার করা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হবে। আমরা চেষ্টা করব, যদি আমরা পরে বোলিং করি, তাহলে বলটা কেয়ার করা। এ ব্যাপারে আসলে আমাদের হাত হবে না। তারপরও চেষ্টা করব ম্যানটালি তৈরি থাকার। সেক্ষেত্রে টসটাও ভাইটাল হতে পারে।

প্রশ্ন ॥ বিশ্বকাপের আগে এটাই হয় তো আপনাদের শেষ সিরিজ। এই দলে নাসির নাই, রাজ্জাক নাই আপনাদের নিজেদের মধ্যে কী কোন ধরনের প্রতিযোগিতা হবে জায়গাটা ধরে রাখার?

এনামুল ॥ আসলে এভাবে যদি কেউ চিন্তা করে তাহলে দলীয় পারফর্মটা হয়ে উঠবে না। আমার কাছে মনে হয়, সবার আগে টিম ফাস্ট। টিম যখন রেজাল্ট করে, তাহলে ভাল পারফর্ম এমনিতেই বের হয়ে আসে। আমার কাছে মনে হয়, ব্যক্তিগত চিন্তা না করে টিম কী চাচ্ছে, কিভাবে চায় সেভাবে প্রতিটি বোলার, ব্যাটসম্যানের চিন্তা করা উচিত।

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪

২০/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: