রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিসিসির লোগোতে লেগেছে ধানের শীষ

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ চুপিসারে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) মনোগ্রাম (লোগো/সিলমোহর) পরিবর্তন করে যোগ করা হয়েছে বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষের ছবি। বিএনপির মেয়র তাই এমনটা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সচেতন নগরবাসী। নিয়ম অনুযায়ী এ ব্যাপারে অবহিত করা হয়নি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়কে। এমনকি বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে লুকোতে তাদের সঙ্গে যোগাযোগের সময় পুরনো সিলমোহর দিয়ে ছাপানো প্যাডেই চিঠিপত্র চালাচালি করা হচ্ছে। তবে কর, পানির বিল, ট্রেড লেইসেন্স থেকে শুরু“করে গাড়ির স্টিকারসহ সকল স্থানে ধানের শীষ সংবলিত নতুন মনোগ্রাম ব্যবহার করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির সমর্থন নিয়ে আহসান হাবিব কামাল মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর সাধারণ সভার মাধ্যমে বিসিসি’র সিলমোহর পরিবর্তন করা হয়। এতে যোগ করা হয় বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষের ছবি এবং ধানের শীষের ছবিটির সঙ্গে মিলাতে লোগোর সবুজ ও লাল রঙ কিছুটা হালকা করা হয়েছে।

তবে সাধারণ সভায় গৃহীত নতুন এ মনোগ্রাম বা লোগো ব্যবহারের ব্যাপারে মন্ত্রণালয় থেকে কোন অনুমতি দেয়া হয়নি। সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে নতুন লোগো ব্যবহারের ব্যাপারেও মন্ত্রণালয়কে আলাদা করে অবহিত করা হয়নি।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব সরোজ কুমার নাথ জানান, সিটি কর্পোরেশনের মনোগ্রাম বা সিলমোহর পরিবর্তন করতে হলে তা সাধারণ সভায় পাস করে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করতে হয়। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মনোগ্রাম (লোগো) পরিবর্তন করার ব্যাপারে মন্ত্রণালয়কে অবহিত করা হয়নি। গত ১৪ জুন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো চিঠির সূত্রধরে তিনি আরও জানান, মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে আগের (পুরনো ধানের শীষ ছাড়া লোগো) সিলমোহর ব্যবহার করছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন। তাদের কাছে পাঠানো চিঠির প্যাডের লোগোতে ধানের শীষের কোন ছবি নেই। বিষয়টির খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করে আরও বলেন, সিটি কর্পোরেশনের মতো একটি প্রতিষ্ঠানের মনোগ্রামে রাজনৈতিক কোন দলের প্রতীক ব্যবহার দৃষ্টিকটূ। এ ব্যাপারে বিসিসি’র মেয়র আহসান হাবিব কামাল জানান, মনোগ্রাম (লোগো) পরিবর্তনের প্রস্তাবটি নিয়ম অনুযায়ী সাধারণ সভায় সর্বসম্মতভাবে পাস হয়েছে।

এতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নেয়ার কোন প্রয়োজন নেই। মন্ত্রণালয়ে সাধারণ সভার রেজুলেশনের কপি পাঠানো হয়েছে। তাতে কোন আপত্তি থাকলে তারা জানাতো। তবে মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগের ক্ষেত্রে পুরনো সীলমোহর ব্যবহার হচ্ছে কি না তা তার জানা নেই বলে উল্লেখ করেন।

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৫

০৪/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: