মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গ্রীসকে ইউরোজোনে রাখার সর্বশেষ প্রচেষ্টা

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫
  • ঋণ আলোচনা আরও চালাতে সিপরাস মেরকেল ও ওলাঁদের মতৈক্য

গ্রীস, ফ্রান্স ও জার্মানির নেতারা এথেন্সের ঋণদাতাদের সঙ্গে আলোচনা জোরদার করতে একমত হয়েছেন। কিন্তু তাদের কথাবার্তায় সামান্যই অগ্রগতি হওয়ার আভাস পাওয়া যায়। খবর বিবিসির।

ব্রাসেলসে বুধবার গভীর রাতের কথাবার্তার পর গ্রীক প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপরাস বলেন, সব পক্ষই অবশিষ্ট মতপার্থক্য নিরসনের লক্ষ্যে কাজ করে যাবে। ইইউ ও আইএমএফ চায়, তারা এথেন্সের নামে বেইল আউট তহবিল (দেউলিয়াত্ব থেকে রক্ষা পাওয়ার অর্থ সাহায্য) বাবদ ৭২০ কোটি ইউরো (৫৩০ কোটি পাউন্ড) ছাড় করার পূর্বে গ্রীসে আরও অর্থনৈতিক সংস্কার সাধন করা হোক। গ্রীস জুন মাস শেষ হওয়ার আগে আইএমএফকে ১৫০ কোটি ইউরো পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে খেলাপী বলে ঘোষিত হতে পারে। চলতি সপ্তাহের প্রথমদিকে এথেন্স ইইউ ও আইএমএফের কাছে এক সংশোধিত সংস্কার পরিকল্পনা পেশ করে। এর আগে সিপরাস ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট জাঁ ক্লদ জাঙ্কারের পেশ করা সংস্কার কর্মসূচী প্রত্যাখ্যান করেন। এথেন্স ভ্যাট সংস্কার, পেনশন ও দেশের প্রাথমিক বাজেট উদ্ধৃতির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ছাড় দিতে সম্মত হয়েছে বলে মনে হয়। গ্রীক প্রধানমন্ত্রী সাংবাদকিদের বলেন, আমরা আমাদের অবশিষ্ট মতপার্থক্য নিরসন করতে এবং এক সমাধানের লক্ষ্যে আমাদের চেষ্টা জোরদার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর আগে তিনি জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেল ও ফরাসী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন। মেরকেল ও ওলাঁদ প্রকাশ্যে কোন মন্তব্য না করেই আলোচনা ত্যাগ করেন। তবে জার্মান সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, আলোচনা অবশ্যই আরও জোরদার করতে হবে। বিবৃতিতে ব্রাসেলসের বৈঠক গঠনমূলক হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

সিপরাস তার মন্তব্যে তিনি গ্রীসের ঋণ কিছুটা মওকুফ করার দাবির প্রতি অবিচল রয়েছেন বলে আভাস দেন। কিন্তু গ্রীস সংস্কারের প্রতিশ্রুতি না দেয়া পর্যন্ত ইউরোপীয় নেতারা ঋণ অবলোপন করতে সম্মত হবেন না। কাজেই সামান্য কিছুই অর্জিত হয়েছে বলে মনে হয় এবং কোন সমাধান খুঁজে পেতে সব পক্ষের হাতে আর মাত্র কয়েক দিন সময় রয়েছে। ওই সংবাদদাতা এ কথা জানান। গত সপ্তাহে গ্রীস আইএমএফকে ৩০ কোটি ইউরোর কিস্তি পরিশোধ জুনের শেষ অবধি বিলম্বিত করার সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে তখন আইএমএফকে মোট ১৫০ কোটি ইউরো পরিশোধ করতে হবে।

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫

১২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: