কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রত্যাবর্তনে উজ্জ্বল সাকিব

প্রকাশিত : ১৬ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হোমসিরিজ খেলার জন্য দুই ম্যাচ খেলেই ফিরে এসেছিলেন। এবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল) শুরুর পরই নিজের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সে যোগ দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। টি২০ ক্রিকেটে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার আবারও যোগ দিয়েছেন কেকেআরে। বৃহস্পতিবার ফিরতি ম্যাচেই অবশ্য পরাজয় দেখেছেন দলের। তবে টি২০ বিশ্বসেরা এ বাংলাদেশী অলরাউন্ডার ব্যাটে-বলে ছিলেন উজ্জ্বল। বল হাতে দারুণ কিপটেমির পরিচয় দিয়ে ২২ রানে দুই উইকেট শিকারের পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছেন ১৫ বলে ২৩ রান। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচেও কেকেআর অলরাউন্ডার সাকিবের দিকে তাকিয়ে থাকবে। কারণ শেষ চারে যেতে হলে জয়ের বিকল্প নেই।

আইপিএলের শুরুতে মাত্র দুই ম্যাচ খেলেই দেশে ফিরে আসেন সাকিব। সেই দুটি ম্যাচে অবশ্য একেবারেই ভাল করতে পারেননি বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার। প্রথম ম্যাচে বল হাতে দারুণ খরুচে সাকিব ৪৮ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ১ উইকেট এবং ব্যাট করার সুযোগ পাননি। দ্বিতীয় ম্যাচে ১৭ রান দিয়ে আবারও এক উইকেট নেয়ার পর ব্যাট হাতে নেমে শূন্য রানেই ফিরে গিয়েছিলেন সাজঘরে। এরপর দেশে ফিরে আসেন সাকিব। সফরকারী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তিন ওয়ানডে, এক টি২০ ও এক টেস্টের সিরিজ খেলেন। কলকাতার অধিনায়ক গৌতম গাম্ভীর সে সময় বলেছিলেন, ‘আমরা সাকিবের অভাব অনুভব করছি।’ সেটা করারই কথা। কারণ অন্যতম নির্ভরযোগ্য স্পিনার সুনীল নারাইন এবার তেমন সুবিধা করতে পারছেন না। বোলিং এ্যাকশনে ত্রুটি চিহ্নিত হওয়ায় অনেক পরিবর্তন করে তাঁকে ফিরতে হয়েছে। সে কারণে প্রায় নখ-দন্তহীন হয়ে পড়েছেন নারাইন। তাই সাকিবই কলকাতার স্পিন ভরসা। পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে পারদর্শিতা তো আছেই। সে কারণে কেকেআর শিবিরে সাকিবের অনুপস্থিতিটা ভালভাবেই টের পেয়েছে কেকেআর।

সাকিব যে দুটি ম্যাচ খেলেছিলেন তার মধ্যে একটিতে জয় এবং আরেকটি পরাজয় দেখেছিল কেকেআর। সাকিববিহীন খেলে ১০ ম্যাচে ৬ জয় তুলে নিয়ে অবশ্য খুব একটা খারাপ অবস্থানে নেই দলটি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ব্যস্ততা কাটিয়ে আবার আইপিএলে ফিরেছেন সাকিব। আর ফিরলেন অন্যরূপেই। অন্য বোলারদের ব্যর্থতার দিনে বল হাতে দারুণ মিতব্যয়িতার পরিচয় দিলেন। ৪ ওভারে মাত্র ২২ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। কিন্তু অন্য বোলাররা এটা ধরে রাখতে পারেননি বলেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অনেক বড় সংগ্রহ গড়ে। বিশেষ করে শেষ ৫ ওভারে ৭০ রান তোলে কেকেআর বোলারদের পিটিয়ে। তবে রান তাড়া করতে নেমে জয়ের কাছাকাছি চলে গিয়েছিল কেকেআর। কিন্তু পিযুষ চাওলা ৭ বলে ১ রান করায় ৫ রানের পরাজয় বরণ করতে হয়েছে। এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, ‘পোলার্ড অনেক ভাল বল করেছেন। হয়ত আমরা শট নির্বাচনের ক্ষেত্রে আরেকটু সতর্ক হয়ে এটা করে ফেলতে পারতাম। কিন্তু শেষ ওভারে ১২ রান যে কোন ব্যাটসম্যানের জন্যই খুব চাপের। আমরা সবাই মানুষ এবং ভুল হতেই পারে। তারা শেষ ৫ ওভারে অনেক বেশি রান করেছে। এসব টি২০ ম্যাচে ঘটতেই পারে। দুয়েকটা ওভারে খেলার মোড় ঘুরে যায়।’

প্রকাশিত : ১৬ মে ২০১৫

১৬/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: