কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মিথ্যাচারের জন্য খালেদাকে গ্রেফতার দাবি আওয়ামী লীগের

প্রকাশিত : ১৪ মে ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ গুম-অপহরণ নিয়ে মিথ্যাচারের জন্য অবিলম্বে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তারা বলেন, সালাহউদ্দিন আহমেদ ভারতের শিলংয়ে আটক হওয়ার পর বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সব ষড়যন্ত্র ফাঁস হয়ে পড়েছে। এখন বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলমসহ নিখোঁজদের দায়-দায়িত্ব খালেদা জিয়ার। খালেদা জিয়াই এসব নেতাদের কোথাও লুকিয়ে রেখেছেন। অবিলম্বে সালাহউদ্দিন আহমেদকে দেশে ফিরিয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার সব ষড়যন্ত্রের তথ্য উদ্ঘাটনের জন্য তারা সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

বুধবার রাজধানী ঢাকায় পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে দলটির মন্ত্রী-নেতারা এ দাবি জানান। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপির যুগ্মমহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ নিজেই ভারতে লুকিয়ে ছিলেন। আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভারত থেকে তাকে ফিরিয়ে আনা হবে। তেজগাঁও আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের কাছে প্রদত্ত প্রতিক্রিয়ায় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সালাহউদ্দিন আহমেদকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তুলে নিয়ে যাননি। বিএনপির সব অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হলো। সালাহউদ্দিন সাহেব নিজেই আত্মগোপনে ছিলেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সালাহউদ্দিনকে গ্রেফতারের ব্যাপারে ভারত সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশকে কিছু জানায়নি।

ইলিয়াস-চৌধুরী আলমদের দায়ও খালেদারÑ সুরঞ্জিত ॥ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী ও চৌধুরী আলমসহ নিখোঁজদের দায়-দায়িত্ব বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ওপর বর্তায়। শিলংয়ে না দার্জিলিংয়ে, নেপালে না ভুটানেÑ কোথায় তাদের আত্মগোপনে রাখা হয়েছে, তা খালেদা জিয়াই বলতে পারবেন। বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন আহমেদের খোঁজ পাওয়ার মাধ্যমে থলের বিড়াল বেরিয়ে এসেছে।

বুধবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। সালাহউদ্দিন আহমেদ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি গুম, অন্তর্ধান কিংবা নিখোঁজ নয়, পুরোপুরি আত্মগোপন। আত্মগোপন আর গুম এক জিনিস না। সালাহউদ্দিনের আত্মগোপন দলের নির্দেশে হতে পারে, দলীয় নেতার নির্দেশেও হতে পারে। আবার রাজনৈতিক কারণেও হতে পারে। তবে এটি স্পষ্ট হয়ে গেছে, আত্মগোপন দলীয় প্রধানের নির্দেশে করা হয়েছে।

তিনি বলেন, গুমের নাটক সাজিয়ে খালেদা জিয়া ওই সময় রাজনীতিকে আরও সঙ্কটে ঠেলে দিতে চেয়েছিলেন। তবে আত্মগোপন করে সরকারকে গুমের অপরাধে অপরাধী করাটা অত্যন্ত শঠতাপূর্ণ রাজনীতি। এটি আক্রোশ, বিদ্বেষমূলক ও অপরাজনীতি। খালেদা জিয়া ও তার দল এর সঙ্গে জড়িত। সিলেটে ব্লগার অনন্ত হত্যাকা- প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একের পর এক ব্লগার হত্যা হচ্ছে। তাদের হত্যার ধরন একই। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হত্যাকারীরা কেউ ধরা পড়েনি। আমি মনে করি, আমাদের দেশের পুলিশ অন্য যেকোন দেশের পুলিশের চেয়ে ভাল। তারা যদি মনে করে কোন অপরাধীকে ধরবে তাহলে ধরতে পারে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে তারা এই অপরাধীদের ধরতে চাচ্ছেন না বলে ধরা পড়ছে না। এর পরিণতি শুভ হবে না।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহসম্পাদক নারায়ণ দেবনাথের সভাপতিত্বে সভায় সাম্যবাদী দলের নেতা হারুন চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই কানু, সংগঠনের নেতা হুমায়ুন কবির মিজি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

খালেদা জিয়ার সব ষড়যন্ত্র ফাঁস হয়েছেÑ ত্রাণমন্ত্রী মায়া ॥ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম বলেছেন, সালাউদ্দিন আহমেদ শিলংয়ে আটক হওয়ার পর বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সব ষড়যন্ত্র ফাঁস হয়ে পড়েছে। গুম, হত্যাকা- নিয়ে অপপ্রচার চালানোর দায়ে তাকে গ্রেফতার করা উচিত। বুধবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি আরও বলেন, ইলিয়াছ আলীসহ যে সব বিএনপি নেতা ও সাধারণ মানুষ গুম হয়েছেন তার জন্য দায়ী খালেদা জিয়া। তার নির্দেশে এ সব ঘটনা ঘটেছে।

খালেদা জিয়াকে ‘ঘাতক’ আখ্যায়িত করে মায়া চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়া আন্দোলনের নামে পেট্রোলবোমা মেরে, বাসে আগুন দিয়ে অসংখ্য মানুষ পুড়িয়ে মেরেছেন। অথচ এখনও সরকার ও দেশের বিরুদ্ধে উনি অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে তিন মাস দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে শেষ পর্যন্ত জনগণের কাছে ধরা পড়েছেন। তিনি বলেন, আসলে বিএনপি দেশ ও জাতির জন্য ক্ষতিকর। বিএনপির সকল ষড়যন্ত্র আমরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে মোকাবেলা করেছি। গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আবারও প্রমাণিত হয়েছে জনগণ আমাদের সঙ্গে আছে। তবে বিএনপি দেশে তৃতীয় শক্তি উত্থানের ষড়যন্ত্র এখনও করে যাচ্ছে। তাই তাদের সকল ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে আরও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

প্রকাশিত : ১৪ মে ২০১৫

১৪/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: