রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

হিলারিকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করেন না অনেক আমেরিকান

প্রকাশিত : ১০ মে ২০১৫
  • ডেমোক্রেটিক প্রার্থীর দুর্বল দিক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটনকেই ডেমোক্র্যাটদের প্রার্থী হচ্ছেন বলে অনুমান করা যায়- তিনিই এস্টাব্লিশমেন্টের অন্যতম প্রার্থী। দল তার উত্থান ব্যাপকভাবে অনুমোদন করছে। আর রিপাবলিকানরা তার মোকাবেলা করতে প্রস্তুত সব রাজনৈতিক মতাদর্শের এমন এক ডজনেরও বেশি ব্যক্তির দিকে দৃষ্টি রাখছেন। ডেমোক্র্যাটদের তিন চতুর্থাংশেরও বেশি হিলারিকে ভালবাসেন। আর রিপাবলিকানদের চার বা পাঁচ জন প্রার্থী রয়েছেন, যাদের সঙ্গেও তারা কাজ করে খুশি হন। এসব প্রার্থীর মধ্যে জেব বুশ থেকে শুরু করে সব প্রজন্মের ব্যক্তিই রয়েছেন। সাধারণত রিপাবলিকানরাই কি এস্টাব্লিশমেন্টের প্রার্থীদের দিকে ফিরে যান না? হ্যাঁ। কিন্তু এ সময়ে নয়, বা অন্তত এত তাড়াতাড়ি নয়। ওই কারণেই সম্ভবত কোন কোন ডেমোক্র্যাট তাদের নতুন কঠিন পরিস্থিতি নিয়ে কিছুটা অস্বস্তি বোধ করছেন। তারা বুঝতে পারছেন যে, হিলারির প্রার্থিতার প্রতি তাদেও অনুমোদন কোনক্রমেই সার্বজনীন নয়। তারা বুঝতে পারছেন যে, তিনি যখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন, তখনকার তুলনায় এখন তার প্রতি জনসমর্থন কমতির দিকে বলে ভবিষ্যদ্বাণী করা যায়। তিনি এখন একজন রাজনীতিক, আর সে কারণেই তাঁর জয়প্রিয়তা নিম্নমুখী। কিন্তু এমন অন্য কিছুতে ঘটছে যা কোন কোন ডেমোক্র্যাটকে অস্বস্তিতে ফেলছে। আর এটি ঠিক হিলারি সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা পোষণকারী ব্যক্তিদের সংখ্যা গত মাসে ৬ পয়েন্ট বেড়ে যাওয়ার ঘটনা সঠিক নয়। এনবিসি নিউজ/ওয়ানস্ট্রিট জার্নালের সর্বশেষ জরিপে ওই আভাস দেয়া হয়। যা আরও অস্বস্তিকর তা হলো কতজন লোক হিলারির সততা ও সরলতায় বিশ্বাস রাখেন, তাদের সংখ্যা। এনবিসি/ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের জরিপে ভোটারদের মাত্র এক চতুর্থাংশ হিলারির ওইসব গুণ রয়েছে বলে উল্লেখ করেন। এ হার এক বছর আগের শতকরা ৩৮ ভাগের তুলনায়ও কম। সেই হারও চমকপ্রদ ছিল না। এমন কি নতুন সিবিএস নিউজ/নিউইয়র্ক টাইমস জরিপে তিনি সৎ কিনা সেই প্রশ্নে তার পক্ষে সমর্থন কিছুটা বেড়েছে বলে দেখা গেলেও সাধারণ মানুষ এখনও ওই বিষয়ে বিভক্ত। আর কেউ যখন প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন, তখন বিশ্বাস কোন ছোট বিষয় নয়।

ইমেইল প্রসঙ্গেই হোক আর ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের এ সঙ্গেই হোক, এক ধরনের নেতিবাচক ধারণা গড়ে উঠছে। হিলারির উচিত মানুষকে একথা বোঝানো যে, তিনি উপহাসের পাত্র নন। কাজেই হিলারিকে কথা বলতে হবে। তাকে ক্লিনটন ফাউন্ডেশন বা ই-মেইল নিয়ে ও উত্থাপিত অভিযোগের মোকাবিলা করতে হবে। বিল ক্লিনটন হিলারিকে ও নিজেকে সমর্থন করছেন। এটি কোন উত্তর জবান নয়। ডেমোক্র্যাটিক পার্টিতে এমন কি এস্টাব্লিশমেন্টের প্রার্থীকেও এক সত্যবাদী বিদ্রোহীর মতো আচরণ করতে হবে। তাঁকে সাধ্যমতো সত্য কথা বলতে হবে। -সিএনএন

প্রকাশিত : ১০ মে ২০১৫

১০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: