রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

‘বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি হলে অসমই লাভবান হবে’

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫
  • মোদিকে চিঠিতে গগৈ

আলোচনা না করে স্থলসীমান্ত চুক্তির আওতা থেকে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য অসমকে বাদ দেয়ায় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ। তিনি বলেছেন, ওই চুক্তির ক্ষেত্রে অসমকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করা হয়েছে। চুক্তি রূপায়নের সময় অসমকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানিয়ে রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি পাঠিয়েছেন গগৈ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

লোকসভা ভোটের আগে থেকেই স্থলসীমান্ত চুক্তি নিয়ে কংগ্রেস ও বিজেপির মতদ্বন্দ্ব চলছে। বিলটি এনেছিল কংগ্রেস। ওই সময় বিজেপি নেতারা জানিয়েছিলেন, অসমের এক ইঞ্চি জমি তাঁরা বাংলাদেশের হাতে যেতে দেবেন না। ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী মোদি অসমে গিয়ে অন্য কথা জানান। জমি হস্তান্তরে রাজ্যের মানুষের সম্মতি চেয়ে তিনি বলেছিলেন, স্থলসীমান্ত চুক্তি থেকে অসমবাসীর যাতে লাভ হয় আমরা সেই চেষ্টা করব।

বিধানসভার বাজেট অধিবেশন ও প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে গগৈ জানান, ভারত-বাংলাদেশের সীমান্ত চিহ্নিতকারী রেখা নতুন করে আঁকা হলে (২০১১ সালের বিল অনুযায়ী), করিমগঞ্জ জেলার লাঠিটিলা-দুমাবড়ি সেক্টরের লাঠিটিলা এলাকায় বাংলাদেশের দখলে থাকা ৭১৪ একর বিতর্কিত জমি অসমের হাতে আসবে। বদলে বড়ইবাড়ি কালাবাড়ি এলাকায় ১৯৩ দশমিক ৮৫ একর জমি ও পাল্লাঠাল এলাকার ৭৪ দশমিক ৫৫ একর জমি পাবে বাংলাদেশ। ওই জমি নামেই ভারতের সীমান্তভুক্ত।

তা বাংলাদেশের হাতেই রয়েছে। তাই জমি বিনিময় হওয়ার পর, অসম তথা ভারত ৪৪৫ দশমিক ৬ একর জমি বেশি পাবে। নতুন চুক্তি হলে লাভবান হবে অসমই। প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে গগৈ জানিয়েছেন, কেন্দ্রের মতবদল নিয়ে আমরা অন্ধকারে। কেন এই চুক্তি থেকে অসমকে বাদ দেয়া হচ্ছে এবং এতে কীভাবে অসমবাসীর স্বার্থ রক্ষা করা হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

০৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: