কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি

প্রকাশিত : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৪
  • অর্থনীতি

(পূর্ব প্রকাশের পর)

১. সরকারি ও বেসরকারি খাত বলতে কি বোঝ?

উত্তর : বাংলাদেশের বেশির ভাগ লোকের প্রধান জীবিকা কৃষি। এছাড়াও রয়েছে নানা পেশাজীবী ও শ্রমজীবী মানুষ। জনগণের অর্থনৈতিক ও সেবামূলক খাতগুলোকে প্রদানত দুইভাগে ভাগ করা হয়। রাষ্ট্রীয় মালিকানায় শিল্প কারখানা, রেল, সড়ক, নৌপরিবহন, শিক্ষা, স্বাস্থ্যবিষয়ক সেবামূলক খাতগুলোকে সরকারি খাত বলে। অর্থনৈতিক জীবনযাত্রা বিকাশের জন্য বেসরকারি মালিকানায় গড়ে উঠেছে শিল্প কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, যাকে বেসরকারি খাত বলা হয়।

২. এঘচ বলতে কি বোঝ?

উত্তর : একটি দেশ কতটা উন্নত বা অনুন্নত তা বিচারের মানদ- হলো দেশটির মোট জাতীয় উৎপাদন। এঘচ হলো এৎড়ংং হধঃরড়হধষ চৎড়ফঁপঃ. একটি নির্দিষ্ট সময়ে সাধারণত একটি আর্থিক বছরে কোন দেশের নাগরিকগণ দেশের ভেতরে ও বাইরে যে পরিমাণ দ্রব্য ও সেবা উৎপাদন করে তার মোট আর্থিক মূল্যকে মোট জাতীয় উৎপাদন বা এঘচ বলে অর্থাৎ দেশে ও বিদেশে অবস্থানরত দেশের নাগরিকদের অর্থনৈতিক কার্যাবলি দ্বারা সৃষ্ট চলতি উৎপাদনের অর্থমূল্যই হলো মোট জাতীয় উৎপাদন।

৩. এউচ বলতে কি বোঝ?

উত্তর : এউচ হলো এৎড়ংং উড়সবংঃরপ ঢ়ৎড়ফঁপঃ একটি নির্দিষ্ট সময়ে সাধারণত একটি অর্থবছরে কোন দেশের অভ্যন্তরে যে পরিমাণ চূড়ান্ত দ্রব্যসামগ্রী ও সেবা উৎপাদিত হয় তার অর্থমূল্যের সমষ্টিতে মোট দেশজ উৎপাদন বা এউচ বলা হয়। এটি হিসাবের সময় দেশের অভ্যন্তরে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগ দ্বারা উৎপাদিত চূড়ান্ত পর্যায়ের সব রকম দ্রব্য ও সেবাকর্মকে ধরা হয়। এর সাহায্যে কোনো দেশের অর্থনৈতিক মানদ- বিচার করা হয়।

৪. জাতীয় আয়ের ধারণাটি ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : একটি নির্দিষ্ট সময়ে সাধারণত একটি আর্থিক বছরে কোন দেশে যে পরিমাণ চূড়ান্ত পর্যায়ের দ্রব্যসামগ্রী ও সেবা উৎপাদিত হয় তার মোট বাজার মূল্যকে জাতীয় উৎপাদন বা সাধারণভাবে জাতীয় আয় বলে। অর্থৎ দেশের মানুষের অফুরন্ত অভাব পূরণের জন্য নির্দিষ্ট সময়ে দেশের উৎপাদনের উপকরণগুলোর সাহায্যে যে পরিমাণ চূড়ান্ত দ্রব্য ও সেবা উৎপন্ন হয় তার মোট আর্থিক মূল্যকে জাতীয় আয় বলা হয়। জাতীয় আয়কে সূচক ধরে কোন দেশের উন্নত বা অনুন্নত অর্থনৈতিক মানদ- বিচার করা হয়।

৫. মানবসম্পদ কাকে বলে?

উত্তর : মানুষ যখন সমাজ বা রাষ্ট্রের জন্য কিছু করে তখন সে সমাজের বা রাষ্ট্রের শক্তিতে পরিণত হয়। এদের কেউ শারীরিক শ্রম দিয়ে কেউবা মেধা দিয়ে সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য সম্পদ উদ্ভাবন বা তৈরিতে সহায়তা করে থাকে। এভাবে যারা শ্রম বা মেধা দিয়ে দেশের কৃষি, শিল্প, সেবাসহ যে কোন খাতে অবদান রাখে তাদের দেশের মানবসম্পদ বলা হয়।

৬. জনসংখ্যাকে কিভাবে জনসম্পদে পরিণত করা যায়?

উত্তর : একটি দেশের বেশির ভাগ জনসংখ্যাই নির্ভরশীল গোষ্ঠী হিসেবে পরিগণিত হয়। দেশের উন্নয়ন করতে হলে দেশের অধিকাংশ জনগণকে জনশক্তিতে রূপান্তর করতে হয়। অদক্ষ মানুষকে শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ইত্যাদির সাহায্যে দক্ষ মানুষ অর্থাৎ মানবসম্পদে রূপান্তর করা যায়। উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও শিক্ষায় শিক্ষিত করে জনসংখ্যাকে কর্মমুখী করে তুলে জনসম্পদে পরিণত করা যায়।

প্রকাশিত : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৪

২৩/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: