মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

হংকংয়ে ফ্ল্যাটের মালিক হওয়া এখন শুধুই স্বপ্ন

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪
  • ২৭৫ বর্গফুটের মাইক্রো ফ্ল্যাট ৭.২২ লাখ ডলার

হংকংয়ের লা রিভেয়ারা বিল্ডিংয়ের ২৩ তলায় একটি এ্যাপার্টমেন্ট ভবন সম্প্রতি বিক্রি হয়েছে। ২৭৫ বর্গফুটের ওই এ্যাপার্টমেন্ট থেকে ভিক্টোরিয়া হারবার দেখা যেত। বড়জোর দুটো বিছানা পাতা এ রকম এক বেডরুমের ফ্ল্যাটটি বিক্রি হয়েছে ৭ লাখ ২২ হাজার ডলারে।

এক বেডরুমের এ্যাপার্টমেন্ট হলেও এতে জার্মান মার্বেল, ইউরোপিয়ান ফিটিংস, স্প্যানিশ শিল্পীদের চিত্রকর্মসহ বিলাসী উপকরণের ঘাটতি ছিল না। তথা মাইক্রোফ্ল্যাটটির নতুন মালিক ৬০ বছর বয়সী ফ্র্যাঙ্ক উ বলছেন, এখন না কিনলে পরে এটি কেনার সামর্থ্য আমার থাকত না। হংকং আইল্যান্ডের মাছ ধরার পল্লী হিসেবে পরিচিত উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শাও কি ওয়ান এলাকায় এ্যাপার্টমেন্টটির অবস্থান। বিশ্বের অন্যতম ব্যয় বহুল স্থান হওয়ায় হংকংয়ে রিয়েল এস্টেট ব্যবসার প্রচলিত রীতিনীতির ধার ধারে না। এখানে এ্যাপার্টমেন্টের দরের রেকর্ড ভাঙ্গা কোন নতুন ঘটনা নয়। সম্পত্তির দাম বাড়ছে প্রতিনিয়ত। এত দ্রুত বাড়ছে যে কারও পক্ষে বাসস্থান সংকুলান করা খুব কঠিন হয়ে পড়ছে। লা রিভেয়ারার দুই-তৃতীয়াংশ এ্যাপার্টমেন্ট বিক্রি হয়ে গেছে। উ’র মতো ক্রেতারা এসব এ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন। হংকংয়ের ডেভেলপাররা এখন ক্রমেই ছোট ফ্ল্যাট নির্মাণের দিকে ঝুঁকছেন। তারা ১৬৫ বর্গফুটের মাইক্রোফ্ল্যাট পর্যন্ত তৈরি করেছেন। এ্যাপার্টমেন্ট মূল্যের উর্ধগতি প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছে সামাজিক বৈষম্যের দিকটিকে। দ্বীপাঞ্চলটিতে সম্প্রতি অধিকতর গণতন্ত্রের দাবিতে তরুণ সমাজ যেভাবে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে বাসস্থানের উর্ধমূল্য তার অন্যতম কারণ। যেসব তরুণ-তরুণী পিতামাতার সঙ্গে ছোট ফ্ল্যাটে গাদাগাদি করে বাস করে তারা স্বাভাবিকভাবেই নিজেদের জন্য একটি ফ্ল্যাটের স্বপ্ন দেখে বা দেখতে বাধ্য হয়। কিন্তু ফ্ল্যাট কেনা দূরের কথা ফ্ল্যাট ভাড়া করাই এখন তাদের সাধ্যের বাইরে চলে যাচ্ছে। অন্যদিকে উর্ধগতি হলেও রিয়েল এস্টেটের সঙ্গে জড়িতরা নিজেদের ভবিষ্যত নিয়ে নিশ্চিত নন। তাদের আশঙ্কা, যে কোন সময়ে এই ব্যবসায়ে ধস নামতে পারে। বিশেষ করে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ যদি আগামী বছর সুদের হার বাড়ায় তবে হংকংয়ে রিয়েল এস্টেটের দর পড়ে যেতে পারে। কারণ মার্কিন সুদের হার হংকংয়ের ঋণ প্রদানকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রভাবিত করে থাকে। ২০০৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত এই হংকংয়ে এ্যাপার্টমেন্টের দর ৩শ’ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। এখন হঠাৎ যদি দরপতন ঘটে তবে রিয়েল এস্টেট খাতে এক বিপর্যয় ঘটে যাবে, টো পুই লুই নামে এক রিয়েল এস্টেট এজেন্ট এমন মন্তব্য করেছেন। তিনি তার ডাক্তার মেয়েকে এই মুহূর্তে কোন এ্যাপার্টমেন্ট না কেনার পরামর্শ দিয়েছেন। Ñইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমস

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪

২০/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: