মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইসলামাবাদে অনুশীলনে সুইনু বাহিনী

প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর ২০১৪
  • সাফ মহিলা ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অনুর্ধ-১৬ দলের মেয়েরা দেশের মাটিতে অভাবনীয় ফুটবল খেলেছে। এবার পালা জাতীয় মহিলা দলের। তারা কি পারবে সে রকম কিছু করতে? যদিও অগ্নিপরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়ার আগে তারা বলে গেছে টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলাই তাদের মূল লক্ষ্য। তারা আদৌ সাফল্য পাবে কি না, এ নিয়ে অনেকের মনেই রয়েছে কিঞ্চিৎ সংশয়, তেমনি আশাবাদীরাও তাদের সাফল্য চাক্ষুস করার জন্য প্রতীক্ষা করছেন অধীর আগ্রহ নিয়ে। পারবে কি বাংলাদেশের মেয়েরা? সোমবার থেকে পাকিস্তানের ইসলামাবাদের ৪৮ হাজার আসনবিশিষ্ট জিন্নাহ্ ফুটবল স্টেডিয়ামে ‘তৃতীয় সাফ উইমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৪’ শুরু হয়েছে। এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশসহ অংশ নিচ্ছে আফগানিস্তান, ভুটান, ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কা। এই আট দল দুটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে খেলছে। গ্রুপের সেরা দুই দল খেলবে সেমিফাইনালে। সেমিফাইনালের দুটি খেলাই অনুষ্ঠিত হবে ১৯ নবেম্বর। আর ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে ২১ নবেম্বর। সোমবার টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক পাকিস্তান ১-২ গোলে হেরে গেছে শ্রীলঙ্কার কাছে। ‘এ’ গ্রুপে আছে বাংলাদেশ, ভারত, মালদ্বীপ ও আফগানিস্তান। ‘বি’ গ্রুপে আছে পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ভুটান ও নেপাল। বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ১৩ নবেম্বর। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। খেলাটি হবে বাংলাদেশ সময় সাড়ে ৩টায়। তারপর ভারত ও মালদ্বীপের বিরুদ্ধে খেলবে যথাক্রমে ১৫ ও ১৭ নবেম্বর। সোমবার দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে বিমানে চাপেন বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা। প্রথমে তারা যান পাকিস্তানের করাচী, সেখান থেকে ভালমতোই পৌঁছেন ইসলামাবাদ। মঙ্গলবার তারা অনুশীলন করেন প্রথমবারের মতো। সেখানে তাদের বেশ সিরিয়াস এবং প্রাণবন্ত মনে হয়েছে। বাংলাদেশের লক্ষ্য ও প্রত্যাশা একটাইÑ ফাইনালে খেলা।’ তবে কোচ নোরিওর ভাষ্য ভিন্নÑ জেতার জন্য সেরাটাই দেয়ার চেষ্টা করবেন তিনি। গত ৪ অক্টোবর থেকে দলের সঙ্গে আছেন বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের প্রথম বিদেশী কোচ নোরিও। মধ্য অক্টোবরে দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৬ মহিলা দলের উপদেষ্টা কোচের দায়িত্বও। মহিলা দলের জন্য জাপানী কোচ আনা প্রসঙ্গে বাফুফে সভাপতি কাজী মোঃ সালাউদ্দিন বলেছেন, স্থানীয় যে কোচরা আছেন তাঁরাও ভাল। তবে জাপানী কোচ আনার কারণ হচ্ছেÑ জাপান মহিলা বিশ্বকাপজয়ী দেশ। তাই তাদের অভিজ্ঞতাটাও অনেক বেশি। এ কারণেই জাপানী কোচ আনা। নোরিও আসার আগে দলকে কোচিং করিয়েছেন স্থানীয় কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। নোরিও দায়িত্ব নেয়ার পর তাঁকে অবশ্য বাদ দেয়া হয়নি। করা হয়েছে সহকারী কোচ। ইসলামাবাদে অনুষ্ঠিতব্য সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপে ভাল ফল করাকেই লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন এই জাপানী কোচ। আরও বলেছেন, ‘হারতে আমি একদমই পছন্দ করি না। আমার মূলমন্ত্রই হচ্ছে জয়, জয় এবং জয়। ফুটবল বলতে আমি তেমন কিছু বুঝি না। শুধু জানি ফুটবল হচ্ছে ফুটবল।’

প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর ২০১৪

১২/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: