কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গ্রেটদের পাশে সাকিব

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৪
  • এক টেস্টে দুইবার শতক ও ৫ উইকেট শিকারের রেকর্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার খুলনা থেকে ॥ বাংলাদেশ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বল ছুড়লেন। ম্যালকম ওয়েলার বলটি ছেড়ে দিতে চাইলেন। কিন্তু গ্লাভসে লেগে বল উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহীমের তালুবন্দী হলো। সঙ্গে সঙ্গে সাকিব এক টেস্টে শতক ও ৫ উইকেট নেয়া বিশেষ এক কীর্তি আবারও গড়ে ফেললেন। মনে করিয়ে দিলেন একের পর এক কীর্তিমানদের নামও। গ্যারি সোবার্স, মুশতাক মোহাম্মদ, জ্যাক ক্যালিসদের কাতারে নিজের নামটি লিখে নিলেন।

প্রতিনিয়তই নৈপুণ্য দেখিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু যেদিন মন ভরে খেলেন, সেদিন ব্যাটিং-বোলিং সব বিভাগেই তিনি অনন্য হয়ে ওঠেন। খুলনা টেস্টেও যেমনটি হলো। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে করলেন শতক (১৩৭ রান)। এরপর জিম্বাবুইয়ের প্রথম ইনিংসে নিয়ে ফেললেন ৮০ রানে ৫ উইকেট। বাংলাদেশের হয়ে প্রথম কোন অলরাউন্ডার হিসেবে দুইবার এক টেস্টে শতক ও ৫ উইকেট নেয়ার ক্ষমতা দেখালেন। রেকর্ড গড়লেন। এই ক্ষমতা আবার সাকিবকে বিশ্বক্রিকেটে এক টেস্টে শতক ও ৫ উইকেট নেয়ার ক্ষেত্রে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি স্যার গ্যারি সোবার্স, ‘বিস্ময় ক্রিকেটার’ হিসেবে পরিচিত পাকিস্তান অলরাউন্ডার মুশতাক মোহাম্মদ ও দক্ষিণ আফ্রিকার অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিসের পাশে বসিয়েছে। তিনজনই যে এক টেস্টে শতক ও ৫ উইকেট নেয়ার ক্ষমতা দেখিয়েছেন দুইবার করে।

১৯৬২ সালে ভারতের বিপক্ষে ও ১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যথাক্রমে ১০৪ ও ৫/৬৩ এবং ১৭৪ ও ৫/৪১ নৈপুণ্য দেখান গ্যারি সোবার্স। মুশতাক মোহাম্মদ ১৯৭৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ও ১৯৭৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে যথাক্রমে ২০১ ও ৫/৪৯ এবং ১২১ ও ৫/২৮ নৈপুণ্য দেখান। আর জ্যাক ক্যালিস ১৯৯৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ও ২০০২ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে যথাক্রমে ১১০ ও ৫/৯০ এবং ১৩৯* ও ৫/২১ নৈপুণ্য দেখান। এ তিনজনের সঙ্গে একই সাড়িতে এখন বাংলাদেশের সাকিবও। ২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে এর আগে ১৪৪ ও ৬/৮২ অলরাউন্ডার নৈপুণ্য দেখিয়েছিলেন সাকিব। এবার দ্বিতীয়বারের মতো দেখিয়ে দিলেন। এ তিনজনের উপরে এখন আছেন শুধু ইংল্যান্ড অলরাউন্ডার স্যার ইয়ান বোথামই। তিনি এক, দুইবার নন; ৫ বার এমন কৃতিত্ব দেখিয়েছেন।

এছাড়া একটি করে এমন নৈপুণ্যের মালিক হয়েছেন সর্বপ্রথম ১৮৯৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার জিমি সিনক্লেয়ার, এরপর এক এক করে দক্ষিণ আফ্রিকার জর্জ ফকনার, অস্ট্রেলিয়ার চার্লস কেলিওয়ে, জেক গ্রেগোরি, ভারতের ভিনু মানকড়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডেনিস এটকিনসন, অস্ট্রেলিয়ার কেইথ মিলার, রিচি বেনাউড, ওয়েস্ট ইন্ডিজের কুলি স্মিথ, ভারতের পোলি উমরিগাড়, নিউজিল্যান্ডের ব্রুচ টেইলর, ইংল্যান্ডের টনি গ্রেইগ, পাকিস্তানের ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, জিম্বাবুইয়ের পল স্ট্রেং, ভারতের রবীচন্দ্রন অশ্বিন ও সর্বশেষ এ তালিকায় যুক্ত হন বাংলাদেশেরই সোহাগ গাজী। এক ম্যাচে শতক ও ৫ উইকেট দুইবার নিয়ে অনন্য এক উচ্চতাতেই উঠে গেলেন সাকিব।

সাকিবের এ নৈপুণ্য দলকেও এনে দিয়েছে স্বস্তি। দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার পর এসেই যে নৈপুণ্য দেখালেন সাকিব যে কতটা নৈপুণ্যবান ক্রিকেটার তাই বুঝিয়ে দিলেন। খুলনা টেস্টের তৃতীয় দিনে ৩ উইকেট নিয়েছিলেন। ব্রেন্ডন টেইলর, ক্রেইগ এরভিন ও এলটন চিগুম্বুরার উইকেট শিকার করেছিলেন। আর চতুর্থদিনের শুরুতেই জিম্বাবুইয়ের সবচেয়ে মূল্যবান উইকেট হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে শুরুতেই আউট করে দেন।

এরপর ম্যালকম ওয়েলারকেও আউট করে দেন। ৫ উইকেট তুলে নেন। যখন ৫ উইকেট নেন তখনই সোবার্স, মুশতাক ও ক্যালিসদের কাতারে অবস্থান করে ফেলেন সাকিব। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে যে সাকিবের শতক ছিল।

চতুর্থদিন ৫ উইকেট পূরণ করার পর অবশ্য বিশেষ কোন স্টাইল দেখাননি। যেমনটি শতক করার পর ‘ফ্লাইং কিস’ ও ‘হৃদয়’ দেখিয়ে করেছিলেন। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১৮০ বলে ১৩৭ রান করেছিলেন সাকিব। যেটি ছিল তাঁর ক্যারিয়ারের তৃতীয় টেস্ট শতক। প্রায় তিনবছর পর শতক পেয়েছেন এ অলরাউন্ডার। দ্বিতীয় দিন শতক পেয়েছেন। তৃতীয় দিন খেলা শুরুর আগে জিটিভিকে বলেছিলেন ‘শতক পেয়ে অনেক ভাল লাগছে। দলও ভাল অবস্থাতেই আছে। এখন এখান থেকে দ্রুত জিম্বাবুইয়েকে বেঁধে রাখতে পারলে ভাল হবে।’

তৃতীয় দিন সাকিব ৩ উইকেট নিলেও জিম্বাবুইয়েকে বিপাকে ফেলা যায়নি। কিন্তু চতুর্থদিন এসে সাকিব যে মাসাকাদজার উইকেট নিয়ে ধস শুরু করলেন, তা থেকে আর বাঁচতে পারেনি জিম্বাবুইয়ে।

সেই ধসে ৬৫ রান পেছনে থাকতেই অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুইয়ে। সাকিব আরও ২ উইকেট তুলে নিয়ে মোট ৫ উইকেট শিকার করেন। যা তাঁকে সোবার্স, মুশতাক, ক্যালিসদের কাতারে দাঁড় করিয়ে দেয়। আর বাংলাদেশের হয়ে প্রথমবার কোন অলরাউন্ডারের দ্বিতীয়বারের মতো এক টেস্টে শতক ও ৫ উইকেট শিকারের রেকর্ডও দেখে নেয় সবাই।

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৪

০৭/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: