ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দখলদারদের কবলে লাহিড়ী মোহনপুর রেলস্টেশন

নিজস্ব সংবাদদাতা, উল্লাপাড়া, সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ০১:০৮, ২২ মার্চ ২০২৩

দখলদারদের কবলে লাহিড়ী মোহনপুর রেলস্টেশন

প্রভাবশালীরা লাহিড়ী মোহনপুর রেল স্টেশনের উভয় পাশেই জবর দখল করে আছে

ঢাকা-ঈশ^রদী রেলপথের উল্লাপাড়া লাহিড়ী মোহনপুর রেল স্টেশনের দুই ধারে ফুটপাতের জায়গা এখন অবৈধ দখলদারদের কবলে। ফলে ট্রেনের যাত্রীসাধারণের চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। রেল কর্তৃপক্ষের ফুটপাতের জায়গা দিয়ে চলাচল বা হাঁটার মতো পথ নেই বললেই চলে। সরেজমিন দেখা যায়, ঢাকা-ঈশ্বরদী রেলপথের এক সময়ের পরিচিত উল্লাপাড়ার মোহনপুর রেল স্টেশন এলাকায় রেল লাইনের দুই পাশের সরকারি জায়গা দখল করে গড়ে উঠেছে বহু ভ্রাম্যমাণ দোকান, হোটেল, চা স্টল ও মৌসুমি ফলের দোকান। স্থানীয় প্রভাবশালী দখলদাররা দীর্ঘদিন ধরে রেলের সম্পত্তি দখল করে আছে। দখলদাররা প্রভাবশালী হওয়ায় সরকারি জমি দখলমুক্ত হচ্ছে না।

স্থানীয়রা জানান, রেল কর্তৃপক্ষের সুষ্ঠু তদারকির অভাবে বেদখল হয়ে আছে রেলের সম্পত্তি। দীর্ঘদিন যাবৎ দখলদারদের কবলে থাকায় দখলদাররা এসব সম্পত্তি নিজের মতো করে ভোগ দখল করে আসছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকে বলেন, রেল লাইনের দু’পাশে গড়ে ওঠা ভ্রাম্যমাণ দোকান থেকে চাঁদা আদায় করা হয়। চাঁদার টাকা বিভিন্ন মহলের লোকজনের মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা হয়। রেল কর্তৃপক্ষের সুষ্ঠু তদারকি ও সরকারি সম্পত্তি দখলমুক্ত করার দাবি জানান তারা।

উল্লাপাড়া রেলের আমিন মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, রেলের সম্পত্তি দখলদারদের থেকে উচ্ছেদে বাজেটের প্রয়োজন হয়। পাকশি ডিভিশনে অবৈধ উচ্ছেদে যে পরিমাণ টাকার প্রয়োজন হয় সরকার ওই পরিমাণ বাজেট দেয় না। এ জন্য সব জায়গায় প্রশাসন অভিযান চালাতে পারে না। লাহিড়ী মোহনপুর রেলর স্টেশন মাস্টার আব্দুল হামিদ জানান, অবৈধ দখলের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান হলে কিছুদিন যেতে না যেতেই আবার তারা দোকান বসায়। তবে এখানে কোনো চাঁদা নেওয়ার অভিযোগ নেই।

×