কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সুপার সেন্টেনারিয়ানদের বেশিরভাগই নারী

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫

শতবর্ষের বেশি বয়সী অর্থাৎ ১১০ বছর কী তারও বেশি যাদের বয়স তাদের প্রায় সবাই মহিলা। এক গবেষণা সমীক্ষায় দেখা গেছে, ১১০ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকা নর-নারীর শতকরা ৯৫ জন মহিলা। কেন এমন হয়? কেন পুরুষদের তুলনায় নারীরা এত বেশিদিন বাঁচে?

গবেষকরা দীর্ঘদিন ধরেই লক্ষ্য করে আসছেন যে, দীর্ঘায়ু হওয়ার ক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের মধ্যে পার্থক্য আছে। তাই বলে মহিলারা কেন পুরুষের তুলনায় বেশিদিন বাঁচে তার সুস্পষ্ট কোন ব্যাখ্যা তাঁরা পাননি। তাঁরা বলছেন, মহিলাদের স্টেম সেলের বয়স ভিন্নভাবে বাড়ে কিনা এবং শারীরিক অবস্থা ও আয়ুর ওপর এর কোন প্রভাব পড়ে কিনা তা দেখার সময় এসেছে। তেমনি দেখার সময় এসেছে দেহকোষের পুনরুৎপাদনে নারী ও পুরুষের মধ্যকার পার্থক্য। এসব নিয়ে গবেষণা করা হলে যৌন হরমোন ইস্ট্রোজেন ও টেস্ট্রোস্টেরন ও অনান্য বিষয় কিভাবে আয়ুর ওপর প্রভাব ফেলে সে ব্যাপারে নতুন ব্যাখ্যার পথ উন্মোচিত হতে পারে।

বিজ্ঞানী মহলে এটা সুবিদিত যে, ইস্ট্রোজেন স্ত্রী জাতের ইঁদুরের স্টেম সেলের সংখ্যার ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে এবং সেটা রক্তের স্টেম সেলের সংখ্যা বৃদ্ধি (যা কিনা গর্ভাবস্থায় অত্যন্ত কল্যাণজনক) থেকে শুরু করে ঋতুকাল তুঙ্গে থাকার সময় মস্তিষ্কের স্টেম সেলের পুনরুৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি করা পর্যন্ত সর্বক্ষেত্রে। তবে এই পরিবর্তনগুলো আয়ুর ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে কিনা তা এখনও পর্যন্ত পরীক্ষা করে দেখা হয়নি। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, ইস্ট্রোজেন পরিপূরক ওষুধসামগ্রী পুরুষ জাতের ইঁদুরের আয়ু বাড়িয়ে তোলে। আরও দেখা গেছে, নপুংসক মানুষরা খোজা না করা পুরুষদের তুলনায় ১৪ বছর বেশি বাঁচে।

বুড়িয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া মন্থর করার এবং স্টেম সেলের পুনরুৎপাদন ক্ষমতা বজায় রাখার উপায় সন্ধান অব্যাহত রয়েছে। তারপরও আমাদের এ কথা ভুলে গেলে চলবে না যে, বুড়িয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া বিলম্বিত করার সবচেয়ে কার্যকর এক উপায় হলো সেক্স। খুব সম্ভব স্বাস্থ্য ও আয়ু উভয়ের ওপর সেক্স এক ইতিবাচক ভূমিকা রাখে। তবে নারী ও পুরুষের আয়ু বৃদ্ধির ব্যাপারে সেক্সের ভূমিকা এক ও অভিন্ন নয়।

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫

১৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: