মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হাই কোর্টের রুল: দুদক আইনের ১২(২) ধারা কেন বাতিল নয়

প্রকাশিত : ১৪ জুন ২০১৫, ০৫:৪৪ পি. এম.

অনলাইন রিপোর্টার॥ চেয়ারম্যানের কাছে কমিশনারদের জবাবদিহির বাধ্যবাধকতা স্বাধীন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মৌলিক নীতি ও আইনের সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়ায় কেন তা বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়েছে হাই কোর্ট।

একটি রিট আবেদনের শুনানি করে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের বেঞ্চ রবিবার এই রুল জারি করেন।

২০০৪ সালের দুদক আইনের ১২ (২) ধারা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. কামাল হোসেন এই রিট আবেদন করেন। তিনিই আদালতে এ বিষয়ে শুনানি করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

আদেশের পর কামাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, রাষ্ট্রপতির সচিব, আইন সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, দুদক চেয়ারম্যান, সব কমিশনার ও দুদক সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশন আইনের ১২ (২) ধারায় বলা হয়েছে, “চেয়ারম্যানের সার্বিক তত্ত্বাবধান ও নিয়ন্ত্রণে অন্যান্য কমিশনারগণ তাহাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন এবং সেইরূপ দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে চেয়ারম্যানের নিকট কমিশনারগণের জবাবদিহিতা থাকবে।”

কামাল হোসেন বলেন, আইন অনুযায়ী দুর্নীতি দমন কমিশন একটি স্বাধীন সংস্থা। এর ১৫ ধারা অনুযায়ী, এর সব সিদ্ধান্ত হবে কমিশন সভায়। ৫ ধারায় বলা হয়েছে, কমিশনের সদস্য সংখ্যা হবে তিনজন, তাদের মধ্যে একজনকে রাষ্ট্রপতি চেয়ারম্যান হিসাবে নিয়োগ দেবেন।

“কিন্তু কমিশনারদের যদি চেয়রাম্যানের কাছে দায়বদ্ধ রাখা হয়, তাহলে স্বাধীন সংস্থা হিসাবে এ প্রতিষ্ঠানের কাজ বাধাগ্রস্ত হবে”, বলেন তিনি।

প্রকাশিত : ১৪ জুন ২০১৫, ০৫:৪৪ পি. এম.

১৪/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: