আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফাইনালে জোকোভিচ-ওয়ারিঙ্কা লড়াই

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শুক্রবারই ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গিয়েছিলেন নোভাক জোকোভিচ। কিন্তু প্রচ- ঝড়ের কারণে সেদিন আর ম্যাচ শেষ হয়নি। যে কারণে মারে-জোকোভিচের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের বাকি অংশের খেলা হয় শনিবার। আর এদিন বৃটিশ টেনিস তারকা দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিলেও শেষ পর্যন্ত আর পেরে উঠেননি। এর ফলে টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই নোভাক জোকোভিচ ৬-৩, ৬-৩, ৫-৭, ৫-৭ এবং ৬-১ গেমে এ্যান্ডি মারেকে হারিয়ে মৌসুমের দ্বিতীয় গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেন। বিশ্ব টেনিস র‌্যাংকিংয়ের নাম্বার ওয়ান তারকা নোভাক জোকোভিচের প্রতিপক্ষ এখন স্টানিস্লাস ওয়ারিঙ্কা। সুইজার‌্যান্ডের ওয়ারিঙ্কা ফ্রেঞ্চ ওপেনের প্রথম সেমিফাইনালে স্বাগতিক জো উইলফ্রেইড সোঙ্গাকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেন।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের শীর্ষ বাছাই নোভাক জোকোভিচ। সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে আটটি গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট জিতেছেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্য সার্বিয়ান এই তারকার। এখন পর্যন্ত ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপাটাই ছোঁয়া হয়নি। সেমিফাইনালের লড়াইয়ে স্কটিশ তারকা মারেকে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালের মঞ্চে উঠলেন তিনি। এখন ফাইনাল জিততে পারলেই ক্যারিয়ার গ্র্যান্ডসøাম জয়ের মাইলফলক স্পর্শ করবেন টেনিস র‌্যাংকিংয়ের নাম্বার ওয়ান তারকা জোকোভিচ। রোঁলা গাঁরোয় ৭২ ম্যাচে দ্বিতীয়বারের মতো নাদালকে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেন জোকোভিচ। কোয়ার্টার ফাইনালে অপ্রতিরোধ্য নাদালকে হারিয়ে সেমিতে উঠা জোকোভিচ মারের বিপক্ষেও ছিলেন ফেবারিট। কিন্তু স্কটিশ তারকা দারুণভাবেই লড়াই করছিলেন জোকোভিচের বিপক্ষে। চতুর্থ সেট পর্যন্ত ব্যবধান ২-২ থাকায় ম্যাচের ফলাফল দুইজনের পক্ষেই কথা বলছিল। কিন্তু শেষ সেটে আর দাঁড়াতেই পারেননি মারে। নোভাক জোকোভিচ ৬-১ গেমে রীতিমতো উড়িয়েই দেন মারেকে। মারের সময়টাও দারুণ কাটছিল। যে মারে চলতি মৌসুমের আগে ক্লে কোর্টে কোন শিরোপাই জিততে পারেনি। সেই মারে এই মৌসুমে দুটি ক্লে কোর্টের শিরোপা নিজের শোকেসে তুলেছেন। মিউনিখ এবং মাদ্রিদ ওপেন জয়ের পর তাই এবার ফ্রেঞ্চ ওপেনেও ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মাখানো ছিল তার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বপ্নভঙ্গের বেদনায় ডুবতে হলো তাকে। ২৮ বছর বয়সী বৃটিশ তারকা মারে ক্যারিয়ারে দুটি মেজর শিরোপা জিতেছেন। উইম্বল্ডন আর ইউএস ওপেনে। যে কারণে ফ্রেঞ্চ ওপেনের মুকুটও পড়তে মরিয়া ছিলেন তিনি। আর সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার করে দিলেন নোভাক জোকোভিচ। তবে ম্যাচটা যে কঠিন ছিল সেটা স্বীকার করেছেন জোকোভিচ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটা খুবই কঠিন একটি ম্যাচ। আমি শুরুটা বেশ ভালো করেছিলাম। আক্রমণাত্মক খেলছিলাম। কিন্তু পরে সে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায়।’

এদিকে ফ্রেঞ্চ ওপেনের প্রথম সেমিফাইনালে আশা জাগিয়েও পারলেন না জো উইলফ্রেইড সেঙ্গা। নিজের দেশের সমর্থকরা গলা ফাটিয়ে উৎসাহ দিয়েছিল সোঙ্গাকে। ২৭ বছর পর রোঁলা গাঁরোর ফাইনালে এক স্বদেশিকে দেখতে চেয়েছিল। কিন্তু তাদের প্রত্যাশায় জল ঢেলে দিয়ে স্টানিসলাস ওয়ারিঙ্কা ৬-৩, ৬-৭ (১/৭), ৭-৬ (৭/৩) ও ৬-৪ গেমে সোঙ্গাকে হারিয়ে উঠেন ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে। গত মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতে ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট জিতেন ওয়ারিঙ্কা। এবার তার সামনে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় মেজর শিরোপা জয়ের হাতছানি।

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

০৭/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: