মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মাথাব্যথা ও ব্রেইন টিউমার

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

প্রায় প্রতিটি মানুষ জীবনের কোন না কোন সময়ে মাথাব্যথায় ভুগে থাকেন। মাথাব্যথার প্রধান দুই কারণ- ১. দুশ্চিন্তা, ২. মাইগ্রেন। এই দুই রোগের চিকিৎসা জানলে মাথাব্যথার ৭০% কারণ ও চিকিৎসা জানা যায়। অন্য কারনগুলোর মধ্যে সাইনুসাইটিস, দাঁতে ইনফেকশান, মধ্যকর্ণে প্রদাহ বা ASOM ev CSOM, Trigeminal neuralgia, cervical disc-prolapse, Atlanto Axial dislocation ইত্যাদি। ব্রেইন টিউমারের জন্য মাথাব্যথা, টোটাল মাথাব্যথার শতকরা এক ভাগ বা ১%

দুশ্চিন্তা, (ঞবহংরড়হ ঃুঢ়ব যবধফধপযব বা ঞঞঐ) মাথাব্যথার অন্যতম প্রধান কারণ। মানুষ যখন ঞবহংরড়হ বা দুশ্চিন্তায় ভোগে, তখন অফৎবহধষ মষধহফ নামক এক ধরনের গ্রন্থি থেকে অফৎবহধষরহ রক্তে জবষবধংব হয়। এই এড্রেনালিন মাথার মাংসপেশীকে সঙ্কুচিত করে। তখন মাথার টাইট ফিতা বা ব্যান্ড দিয়ে টাইট করে বাঁধলে যেমন অনুভূতি হয়, সেই রকম ব্যথা অনুভূত হয়।

ঈষধংংরপধষ সরমৎধরহব এর চধরহ সাধারণ মাথার যে কোনো এক পাশে হয়। এটাকে রোগী টন্টন্ করে, খুট্ মারে বা কোপায় বলে। মেডিকেল সায়েন্সে এ এই ব্যথার নাম ঞযৎড়ননরহম যবধফধপযব। রৌদ্রে গেলে, ঔড়ঁৎহবু করলে বা অধিক কোলাহলে এই ব্যথার প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। মাইগ্রেনের ব্যথা তীব্র হয়ে, কারও চোখে ঝাপসা লাগে আবার কারও বমি হয়। ঝরহঁংরঃরং-এর ব্যথা কপালে সামনের দিকে অনুভূত হয়। জ্বর থাকে। সর্দি লাগা এবং নাক বন্ধ থাকার যরংঃড়ৎু থাকে।

ইৎধরহ ঃঁসড়ৎ-এর ব্যথা সাধারন ভোর রাতে তীব্র হয়। কারণ ব্রেইন টিউমারে ওঈচ বৃদ্ধি পায়। ভোরবেলা ব্রেইন এর রক্তে ঈঙ২ এর পরিমাণ বাড়ে। এর ফলে ওহঃৎধপৎধহরধষ ঢ়ৎবংংঁৎব বা ওঈচ আরও বৃদ্ধি পায়। এর সঙ্গে সঙ্গে মাথার ব্যথার তীব্রতা বৃদ্ধি পায়।

ব্রেইন টিউমার হলে কোন কোন রোগী খিঁচুনি বা অজ্ঞান হওয়ার যরংঃড়ৎু দেয়। তার সঙ্গে যে কোন এক পাশে বা দুই পাশের হাতে ও পায়ে প্যারালাইসিস হতে পারে। অনেকের খাবার নাক দিয়ে চলে আসে, কানে কম শোনে, মাথা ঘোরায়। হাঁটার সময় কোন এক দিকে রসনধষধহপব হয়ে পড়ে যায়।

ইৎধরহ ঃঁসড়ঁৎ এর প্রধান পরীক্ষা, ঈঞ ংপধহ বা গজও ড়ভ নৎধরহ রিঃয পড়হঃৎধংঃ.

চিকিৎসা সাধারণত ঞবহংরড়হ যবধফধপযব, ধহীরড়ষুঃরপ যেমন ঞধন গবষরীড়ষ (০+১+০) (১ মাস), এর সঙ্গে ঞধন অফষড়পশ ১০ সম (১+১+১ মাস, এর সঙ্গে রোগীর টেনশন কমানোর পরামর্শ দেয়া হয়। ঞধন ঘধঢ়ধ ঊীঃবহফবফ (১+০+১) ভরাপেটে, ঞধন ঘবীঁস ২০ সম (১+০+১), ১৫ দিন.

গরমৎধরহ সাধারনত ইৎধরহ এ ংবৎড়ঃড়হরহ নামক একপ্রকার রাসায়নিক পদার্থের আধিক্যের জন্য হয়ে থাকে।

গরমৎধরহ এর চিকিৎসা হলো বয়স্ক মানুষের জন্য

ঞধন ঞৎুঢ়ঃরহ ২৫ মস

০+০+ ঙ্গ মাস ১৫ দিন

০+০+১ ৪ মাস

০+০+ ঙ্গ ১৫ দিন

ঞধন সরমৎধহরষ (১.৫ সম)

০+০+১ ৬ মাস

ঞধন. অফষড়পশ ১০ সম

১+১+১ ৬ মাস

ব্যথা বেশি হলে

ঞধন ঞঁভভহরষ ২০০ সম

১টা বড়ি ভরা পেটে

ইৎধরহ ঃঁসড়ৎ পড়হভরৎস করার জন্য গজও ড়ভ নৎধরহ রিঃয পড়হঃৎধংঃ, ঈঞ ংপধহ ড়ভ নৎধরহ রিঃয পড়হঃৎধংঃ করা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ঙঢ়বৎধঃরড়হ এর মাধ্যমে ইৎধরহ ঃঁসড়ৎ এর উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে।

ডা. হারাধন দেবনাথ

সহকারী অধ্যাপক, নিউরোসার্জারি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

০১৭১৩৫৪১২০

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

০৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: