মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফকিরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিন জনসহ নিহত ৫

প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৫
  • অন্যত্র হত ৮

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ বাগেরহাটের ফকিরহাটে যাত্রীবাহী বাস ও পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের তিন জনসহ পাঁচ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয় আরও তিন জন। শুক্রবার দুপুরে খুলনা-মাওয়া মহাসড়কের বাগেরহাটের ফলতিতা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত তিন জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় আট জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীর পুঠিয়ায় বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে তিন মোটরসাইকেল আরোহী, চারঘাটে বালুবোঝাই ট্রাকচাপায় এক শিশু, যশোরে এক মোটরসাইকেল আরোহী, পাবনায় ঠিকাদারের গাড়ির নিচে পড়ে এক সরকারী কর্মচারী, বরিশালে এক ইমাম এবং ময়মনসিংহের ভালুকায় ট্রাকচাপায় এক সুইপার নিহত হয়েছে। এসব ঘটনায় কমপক্ষে সাতজন আহত হয়েছে। শুক্রবার এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

বাগেরহাটের ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনিসুর রহমান জানান, শুক্রবার দুপুর সোয়া দুইটার দিকে নলধা-মৌভোগ ইউনিয়নের দোহাজারী গ্রামের কয়েকজন মাছ ব্যবসায়ী গোপালগঞ্জে মাছ বিক্রি করে একটি পিকআপে ফকিরহাট যাচ্ছিল। পিকআপটি ফলতিতা এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস পরিবহনের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় পিকআপটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পিকআপের চালকসহ একই পরিবারের চার সদস্য নিহত হন।

নিহতরা হলেন ফকিরহাট উপজেলার দোহাজারী গ্রামের কেষ্টধন ওরফে ফটিক দাসের দুই ছেলে নীল কমল দাস (৪৫) ও বলরাম দাস (৩৫), তাদের ভাগ্নে একই গ্রামের সুভাস দাসের ছেলে শ্যামদাস (৩২) ও প্রতিবেশী কার্তিক দাসের ছেলে পানু দাস (৪৭) ও পিকআপ চালক আনসার আলী শেখ (৪৫)।

এছাড়া পিকআপে থাকা অপর তিন যাত্রী গুরুতর আহত হলে তাদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন খুলনা গোবরচাকার শাজাহানের ছেলে ইমরান (৩৬), গোপালগঞ্জের আবুল বাসারের ছেলে তুহিন (৩৪) ও মলয় দাস (৩৫)। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার এবং পিকাআপ ও পরিবহনটি জব্দ করেছে। দুর্ঘটনার পর প্রায় এক ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।

রাজশাহী ॥ পুঠিয়া উপজেলার তারাপুরে শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে নাটোর-রাজশাহী মহাসড়কে পুলিশের বিশেষ চেকপোস্ট বসানো হয়। ওই সময় এক মোটরসাইকেলে তিন আরোহী রাজশাহী থেকে নাটোরের দিকে যাচ্ছিলেন। চেকপোস্টে দায়িত্বে থাকা পুলিশ তাদের থামানোর চেষ্টা করলে দ্রুত গাড়ি চালিয়ে পুলিশকে পাশ কাটিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় আড়ানীগামী বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে পড়ে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় দু’জন। আর গুরুতর আহত একজনকে পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতরা হলো নাটোরের পিটিআই মোড় এলাকার আব্দুল হালিমের ছেলে মেহেদী হাসান (২৭), আজিজের ছেলে শুভ (২৮) ও দুলুর ছেলে সুমন (৩০)।

এদিকে শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টায় চারঘাটে বালুবাহী বেপরোয়া ট্রাকের চাপায় মৃদুল হোসেন (৮) নামে এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন তার বাবা শহীদুল ইসলাম ও মা রিনা বেগম। তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিহত মৃদুল সরদহ পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র।

সকালে কোচিং সেন্টার থেকে বাবার সঙ্গে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিল মৃদুল। এ সময় তার মা রিনা বেগমও পেছনে বসা ছিলেন। তারা মোটরসাইকেল নিয়ে মুক্তারপুর বালুরঘাট সড়কে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতির বালুবাহী ট্রাককে সাইড দিতে গিয়ে পড়ে যায়। এ সময় ট্রাকের পেছনের চাকা মোটরসাইকেলের ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃদুলের মৃত্যু হয়। এছাড়া তার বাবা শহীদুল ইসলামের ডান হাত ভেঙ্গে যায় এবং মা রিনা বেগমের বাঁ পায়ের ওপর দিয়েও ট্রাকের চাকা চলে যায়।

পাবনা ॥ শুক্রবার সকালে এলজিইডি অফিস চত্বরে এক ঠিকাদারের ব্যক্তিগত গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে মনির হোসেন (৩৪) নামে এক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। তবে ঘটনাটি ধাপাচাপা দিতে ওই ঠিকাদার এবং এলজিইডি কর্তৃপক্ষ পুলিশকে না জানিয়ে মনির হোসেনের মরদেহ দ্রুত দাফন করে। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। নিহত মনির হোসেন পাবনা এলজিইডি অফিসের এমএলএসএস এবং শহরের বাংলাবাজার এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

শহরের চকছাতিয়ানী এলাকার ঠিকাদার মিঠু মালিথা পাবনা এলজিইডি অফিস চত্বরে তাঁর ব্যক্তিগত গাড়িটি রাখতেন। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে গাড়িটি বের করার সময় এলজিইডি অফিস চত্বরে চাকায় পিষ্ট হয়ে মনির হোসেন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পাবনা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল কাদের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

বরিশাল ॥ বাবুগঞ্জ উপজেলার রাকুদিয়া-রাহুতকাঠী সড়কের রাকুদিয়া এলাকায় শুক্রবার বিকেলে বাসের ধাক্কায় আবুল কালাম ডিগ্রী কলেজ মসজিদের ইমাম মাওলানা আবদুর রব মুন্সী (৮০) ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। নিহতের বাড়ি দেহেরগতি ইউনিয়নের রাকুদিয়া গ্রামে।

যশোর ॥ যশোরে বাসের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত ও আরও দু’জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুরে যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কের সাতমাইল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত হুমায়ুন কবির জুয়েল (৩৮) যশোর শহরের রেলগেট এলাকার হারুন-অর রশিদের ছেলে। আহতরা হলেন শহরের বেজপাড়া এলাকার বরুণ মল্লিক (৩৬) ও বরুণের শ্যালক যশোর সদর উপজেলার ললিতাদহ গ্রামের মিলন কুমার বিশ্বাস (১৭)। আহত দু’জনকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভালুকা ॥ ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা উপজেলার সিডস্টোর বাজারে শুক্রবার ভোরে সড়ক ঝাড়ু দেয়ার সময় ময়মনসিংহগামী একটি ট্রাক চাপা দিলে সুইপার শ্রী চন্দন (৩০) ঘটনাস্থলেই মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন যাবত সিডস্টোর বাজারে সুইপারের কাজ করতেন।

প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৫

২৫/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: