মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

রাজশাহীতে গির্জায় লুটপাট, বোমা ফাটিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫
  • পুরোহিতকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কাঁকনহাটের একটি গির্জায় লুটপাট শেষে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ফাটিয়ে পালানোর চেষ্টাকালে ডাকাত দলের এক সদস্য গ্রেফতার হয়েছে। উপজেলার কাঁকনহাট পৌর এলাকার পাইকাপুকুর গির্জায় শুক্রবার রাতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

পরে ধাওয়া দিয়ে পুলিশ আব্দুল আওয়াল নামে এক ডাকাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। আটক আওয়াল চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর হিরোপাড়া গ্রামের সায়েদ আলীর পুত্র।

গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম আবু ফরহাদ জানান, শুক্রবার রাত দুইটার দিকে পাইকাপুকুর গির্জায় একদল ডাকাত হানা দেয়। গির্জার পুরোহিত অনিল মুরমুকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এক লাখ ২১ হাজার টাকা, ৪ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও একটি ক্যামেরা লুট করে। পরে গির্জার ভেতরে স্কুলে গিয়েও লুটপাট করে মুখোশধারী ডাকাতরা। এ সময় পুরোহিতের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে চারিদিক থেকে ডাকাতদের ঘিরে ফেলে। খবর পেয়ে কাঁকনহাট তদন্ত কেন্দ্রের টহল পুলিশও ডাকাত সদস্যদের ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে কয়েকটি বোমা ফাটিয়ে ডাকাত দল ভটভটিযোগে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তবে ঘটনাস্থল থেকে আব্দুল আওয়াল নামে এক ডাকাত সদস্যকে আটক করে। অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ডাকাত দলের ফেলে যাওয়া ভটভটিসহ মালামাল জব্দ করেছে।

পার্বতীপুরে লম্পট প্রধান শিক্ষকের সালিশে অর্থদ- মুচলেকা

নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর, ১৮ এপ্রিল ॥ পার্বতীপুরে আমানতুল্ল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ লাম্পট্য আচরণের কারণে লাঞ্ছিত হয়েছেন। অবিবাহিতা সহকারী শিক্ষিকার সঙ্গে তার পরকীয়া ও দৈহিক মিলন নিয়ে প্রতিষ্ঠান ও এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে স্কান্ডেল ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে শিক্ষিকার পিতা পার্বতীপুর শহর সংলগ্ন তার নিজ বাড়িতে শুক্রবার সন্ধ্যায় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে লম্পট প্রধান শিক্ষককে ডেকে এনে ঘরে আটকে রাখেন। এখানে আটক অবস্থায় ভোর ৪টা পর্যন্ত চলে দুই পক্ষের লোকজনের দেন দরবার, আলোচনা।

অবশেষে সালিশে শিক্ষকের এ ধরনের নোংরামি ও অপরাধের জন্য ১০ লাখ টাকা অর্থদ- করে ব্যাংকের চেকে তার (শিক্ষকের) স্বাক্ষর নেয়া হয়। এছাড়াও ভবিষ্যতে শিক্ষিকাকে ডিস্টাব ও চাকরির নিশ্চয়তা বিধানে দলিলে মুচলেকা নেয়া হয়। যোগাযোগ করলে বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ রাজা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক হয়ে এ ধরনের অনৈতিক কার্যে জড়িত থাকার অপরাধে তার শাস্তি হওয়া উচিত।

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫

১৯/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: