কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সস্তার তেল নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবসার জন্য হুমকি

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সৌদি আরব, ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ইকুয়েডর, ইসরাইল, মেক্সিকো, জাপান, ভেনিজুয়েলাসহ বিভিন্ন দেশ বিদ্যুত উৎপাদনে তেলকেই প্রধান মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে। পাশাপাশি এসব দেশে নবায়নযোগ্য জ্বালানি সৌরশক্তি ব্যবহার করে বিদ্যুত উৎপাদিত হচ্ছে। কিন্তু, সস্তায় তেল এসব দেশে এই নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবসাকে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে; এমনকি বন্ধও করে দিতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জ্বালানি গবেষণা সংস্থা সিটি রিসার্চ এমন উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

গবেষণা সংস্থাটি বলছে, জ্বালানি তেল থেকে বিদ্যুতের চাহিদা মেটায় বিশ্বের অনেক দেশ। এর মধ্যে রয়েছে জ্যামাইকা, কিউবা, নিকারাগুয়া, সৌদি আরব, হুন্ডুরাস, ডোমিনিক রিপাবলিক, পাকিস্তান, ইকুয়েডর, যুক্তরাষ্ট্র, কোরিয়া, রাশিয়া, ইরান, ইসরাইল, মেক্সিকো, জাপান, ভেনিজুয়েলা, মিসর, আর্জেন্টিনা, আফ্রিকা এবং ব্রাজিল।

২০১২ সালে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা আইইএ ও সিটি রিসার্চের ডাটা থেকে জানা যায়, জ্যামাইকা তাদের বিদ্যুতের ৯১ শতাংশ উৎপাদন করে তেল দিয়ে। আর কিউবা ৮৫ শতাংশ, নিকারাগুয়া ৫৭ শতাংশ, সৌদি আরব ৫৫ শতাংশ, হুন্ডুরাস ৫৫ শতাংশ, পাকিস্তান ৩৬ শতাংশ, ইকুয়েডর ৩৫ শতাংশ, ইরান ২৭ শতাংশ, ইসরায়েল ২১ শতাংশ, মেক্সিকো ১৯ শতাংশ, জাপান ১৮ শতাংশ, ভেনেজুইলা ১৬ শতাংশ, মিসর ১৫ শতাংশ, আর্জেন্টিনা ১৫ শতাংশ, আফ্রিকা ১০ শতাংশ, যুক্তরাষ্ট্র ১ শতাংশ, কোরিয়া ৪ শতাংশ ও রাশিয়া ৩ শতাংশ বিদ্যুত উৎপাদন করে।

সিটি রিসার্চ বলছে, এসব দেশের বাইরের দেশগুলোয় বিদ্যুত উৎপাদনে এ দুই জ্বালানির মধ্যে সরাসরি সম্পর্ক কম। কারণ সেখানে কয়লা, গ্যাস, জীবাশ্মজ্বালানিসহ অন্যান্য উৎস দিয়ে বিদ্যুত উৎপাদিত হয়। কিন্তু যেসব দেশ বিদ্যুত উৎপাদনে তেলকে প্রাধান্য দিয়ে থাকে সেসব দেশে বায়ু ও সোলারের মতো নবায়নযোগ্য জ্বালানিও প্রতিযোগিতা করে যাচ্ছে। এর অর্থ, এসব দেশে সস্তায় তেল নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবসা বন্ধ করে দেবে, যা উদ্বেগের।

গবেষণা প্রতিবেদনে সিটি রিসার্চ জানিয়েছে, এ কথা পরিষ্কার যে, এসব অঞ্চলে বায়ু ও সোলারের মাধ্যমে বিদ্যুত উৎপাদনের পরিমাণ বাড়ার আগেই তেলের দাম ভয়াবহভাবে কমবে। আর সেটা ২০২০ সালের মধ্যেই হবে। এর ফলে আগামীতে এক ধরনের লড়াই হবে সস্তা তেল ও নবায়নযোগ্য জ্বালানির মধ্যে।

কারণ হিসেবে সংস্থাটি বলছে, বর্তমান বিশ্বের মোট বিদ্যুতের ৫ শতাংশ তেল থেকে উৎপাদিত হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে বিদ্যুত উৎপাদনে তেলের সাথে অন্য জ্বালানির তেমন প্রতিযোগিতা হয়নি। কিন্তু জরিপে দেখা গেছে, বিদ্যুত উৎপাদনে তেলের ওপর নির্ভরশীল কিছু অঞ্চলের জন্য কঠিন বাস্তবতা অপেক্ষা করছে। এসব অঞ্চলে সরাসরি প্রতিযোগিতা শুরু হতে পারে জ্বালানি তেল ও সোলারের মধ্যে।

উদাহরণ হিসেবে সংস্থাটি সৌদি আরবের কথা তুলে ধরেছে। সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০১৪ সালের হিসাব অনুযায়ী সৌদি আরব দিনে ৯০০ হাজার ব্যারেল তেল বিদ্যুতের পেছনে ব্যয় করে। ইরানও তাদের বিদ্যুত উৎপাদনে তেলকেই ব্যবহার করছে। তেল দিয়ে বিদ্যুতের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে গিয়ে সৌদির মতো দেশগুলো তেল রফতানিতে ব্যাপক হুমকির মুখে পড়তে পারে।

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

১০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অর্থ বাণিজ্য



ব্রেকিং নিউজ: