কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বাউফলে ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো জরাজীর্ণ

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫
  • রেকর্ড রুম নেই, নথিপত্র নষ্ট হয়ে যাচ্ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, ২৯ মার্চ ॥ বাউফলের ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। এর ফলে অফিসের স্বাভাবিক কাজকর্ম ব্যাহত হচ্ছে। নথিপত্র সংরক্ষণের রেকর্ড রুম ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসিক কোয়ার্টার নেই। জানা গেছে, বাউফলে ১৫ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ভূমিকর আদায়ের জন্য ৬টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস রয়েছে। এর মধ্যে বাউফল সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের আওতায় বাউফল পৌরসভা, নওমালা ও মদনপুর, কালাইয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের আওতায় চন্দ্রদ্বীপ, নাজিরপুর ও দাশপাড়া, কনকদিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের আওতায় সূর্যমনি ও কাছিপাড়া, বগা ইউনিয় ভূমি অফিসের আওতায় বগা ও আগদাবাড়িয়া, কালিশুরি ভূমি অফিস এবং ধুলিয়া ভূমি অফিসের আওতায় ধুলিয়া ও কেশবপুর ইউনিয়নের ভূমিকর আদায় করা হয়। ব্রিটিশ শাসন আমলে জমিদাররা প্রজাদের কাছ থেকে খাজনা আদায়ের জন্য কাচারিঘর নির্মাণ করেন। কাঠ আর টিনের ছাউনি দিয়ে কাচারিঘরগুলো নির্মাণ করা হয়। জমিদারি প্রথা বিলুপ্তির পর তা ইউনিয়ন ভূমি অফিস হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এরপর বিভিন্ন সময় টিনশেডের নির্মিত এ ভূমি অফিসগুলো মাঝে মধ্যে সংস্কার করা হলেও আজ পর্যন্ত নতুন করে কোন ভবন নির্মাণ করা হয়নি। বর্তমানে ভূমি অফিসগুলো জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। টিনের ছাউনিতে অসংখ্য ছিদ্র। বর্ষার সময় পানি পড়ে কাগজপত্র নষ্ট হয়ে যায়। জানালা-কপাট আর বেড়া ভাঙ্গাচোরা। এর মধ্যে দিয়ে অনাসায় যে কেউ ভেতরে ডুকতে পারেন। কোন রেকর্ড রুম নেই। গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র অযতেœ পড়ে থেকে নষ্ট হয়ে যায়। এ ছাড়াও কোন বাউন্ডারি দেয়াল না থাকায় অফিসগুলো অরক্ষিত।

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

৩০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: