আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রশ্ন মনোযোগ সহকারে পড়বে

প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৫

এইচএসসি পরীক্ষা আর অল্পদূরে। বলা যায় দরজায় কড়া নাড়ছে। পরীক্ষার্থী বন্ধুরা এই দিকনির্দেশনা অনুসরণ করলে উপকৃত হবে।

১. রিভিশন : এখন প্রতিটি বিষয় রিভিশন বা ঝালিয়ে নেবার সময়। পরীক্ষার রুটিনের প্রতি লক্ষ্য রেখে কোনটি আগে এবং কোনটি পরে রিভিশন দিতে হবে তা নির্ধারণ করে পরীক্ষা শুরুর তিন/চারদিন আগেই সমাপ্ত করতে হবে।

২. সময়ের প্রতি দৃষ্টি : এই মুহূর্তে সময়ের অপচয় করার সুযোগ নেই। উদাসীন হলে চলবে না। প্রতিটি ক্ষণের মূল্য অপরিসীম। তাই সময়ের প্রতি দৃষ্টি রেখে পড়ালেখা চালিয়ে যেতে হবে। তাহলে লক্ষ্য অর্জন অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে।

৩. স্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখা : ভাল পরীক্ষা দেবার জন্য নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখতে হবে। অনেক মেধাবী ছাত্র/ছাত্রী স্বাস্থ্যের প্রতি নজর বা যতœবান না হওয়ায় পরীক্ষাকালীন সময়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং ভাল ফলাফল অর্জন করা থেকে বঞ্চিত হয়। বিশেষ করে দেখা গেছে অনেক ছাত্র/ছাত্রী আছে যারা পরীক্ষার আগে মাস দুয়েক রাত-দিন পড়াশোনা করে। ঘুম এবং খাওয়া দাওয়াকে অবহেলা করে। এটা ঠিক নয়। এতে ফল বিপরীত হতে পারে। এজন্য লেখাপড়ার পাশাপাশি সময়মতো ঘুমানো এবং নির্দিষ্ট সময় খাওয়া দাওয়া করতে হবে। অর্থাৎ প্রয়োজনীয় ঘুমের ব্যাঘাত যাতে না হয় এবং খাওয়া দাওয়া সঠিক সময় সঠিক মাত্রায় বজায় রাখতে হবে।

৪. টেনশনমুক্ত থাকতে হবে : পরীক্ষার্থী বন্ধুদের অবশ্যই টেনশন মুক্ত থাকতে হবে। পারিবারিক ও সামাজিক ঝামেলা থেকে দূরে থাকতে হবে। যাতে মাথায় দুশ্চিন্তা এসে ভর না করে। অথবা টেনশন হয়, এমন কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে।

৫. বিষয়বস্তু আয়ত্ত করতে হবে : এখনও কোন পাঠ্যবইয়ের কোন প্রশ্নের বিষয়বস্তু বুঝে উঠতে না পারলে পরিষ্কার ধারণা পাবার জন্য দ্রুত সংশ্লিষ্ট বিষয়ের শিক্ষকের নিকট থেকে বুঝে নিতে হবে। মনে রাখতে হবে, মুখস্থ বিদ্যার চেয়ে বুঝে পড়া বেশি কার্যকর।

৬. পরীক্ষার পূর্বরাতে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুছিয়ে নিতে হবে : পরীক্ষার জরুরী জিনিসপত্র যেমন, রেজিস্টেশন কার্ড, প্রবেশপত্র, ২/৩টি কলম, যাতায়াতের নির্দিষ্ট অর্থ, কাঠপেন্সিল, স্কেল প্রভৃতি পরীক্ষার পূর্বরাতে গুছিয়ে নির্দিষ্ট জায়গায় রাখতে হবে। যাতে সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার সময় কোন কিছু ভুলবশত থেকে না যায়।

৭. পরীক্ষা শুরুর আধ ঘণ্টা পূর্বে হলে প্রবেশ : টেনশনমুক্ত এবং স্বাভাবিকভাবে পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু করার জন্য পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে আধ ঘণ্টা পূর্বেই নির্দিষ্ট সিটে আসন গ্রহণ করতে হবে।

৮. মোবাইল ও অপ্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে হলে প্রবেশ না করা : পরীক্ষার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছাড়া মোবাইল ও অন্য জিনিস নিয়ে হলে প্রবেশ করা উচিত নয়। এসব জিনিস সঙ্গে আসলে হলে প্রবেশের আগেই বাইরে দ-ায়মান অভিভাবকের নিকট জমা রেখে দিতে হবে।

৯. ভাল করে প্রশ্নপত্র পাঠ : হাতে প্রশ্ন নিয়েই লেখা শুরু করা ঠিক হবে না। অন্তত একবার ভালো করে মনোযোগ সহকারে পুরো প্রশ্নটি পাঠ করে নিতে হবে। অতঃপর অপেক্ষাকৃত সহজ প্রশ্নের উত্তর দিয়ে ক্রমান্বয়ে কঠিনতম প্রশ্নের উত্তর লিখে যাওয়া উত্তম।

১০. খাতায় প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান : পরীক্ষার খাতায় রোল নম্বর, রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্রভৃতি যতœ সহকারে ও নির্ভুলভাবে লিখতে হবে। অতিরিক্ত খাতা নিলে সেটির নম্বরও মূল খাতার নির্দিষ্ট জায়গায় লিখতে হবে। সেই সঙ্গে মূল খাতার সঙ্গে পিনআপ করে দিতে হবে।

শিউল মনজুর

সহকারী অধ্যাপক

রাগীব রাবেয়া ডিগ্রী কলেজ, সিলেট

প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৫

২৩/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: