আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভাবিকে ধর্ষণের পর হত্যা ॥ দেবরের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

কোর্ট রিপোর্টার ॥ সৌদি প্রবাসী ভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে দায়ের মামলায় দেবর আলমগীরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল। রবিবার দুপুরে ৫ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক তানজিনা ইসমাইল এ রায় দেন।

রায়ে বিচারক ধর্ষণের অভিযোগে আলমগীরকে ১৪ বছরের কারাদ- ও ধর্ষণ শেষে হত্যা করে লাশ গুম করার অভিযোগে মৃত্যুদ- দেন। এছাড়া আসামি রিপন ও রাহিদ হাসান মিলনকে ১৪ বছরের কারাদ- ও ২০ হাজার টাকা অর্থদ- ও অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদ- দেন বিচারক।

আসামি আলমগীর ও রিপনকে রায় ঘোষণার পর আদালত থেকে কারাগারে পাঠানো হয়। আর মিলন পলাতক রয়েছেন বলে ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আলী আসগর স্বপন জানান।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, সৌদি আরব প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রীকে বিভিন্ন সময়ে ‘অশালীন প্রস্তাব’ দিয়ে আসছিল আলমগীর। কিন্তু তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ২০০৬ সালের ১৪ জুলাই গৃহবধূ ডাক্তার দেখাতে যাওয়ার পথে দোহারের জয়পাড়া এলাকা থেকে তাকে অপহরণ করে আলমগীর ও তার দুই বন্ধু। পরে তাকে একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকায় তুলে ধর্ষণ ও হত্যা করা হয়। পেট কেটে ও গলায় ইট বেঁধে লাশ ফেলে দেয়া হয় ইছামতী নদীতে। চারদিন পর গলিত লাশ উদ্ধার হলে গৃহবধূর মা দোহার থানায় মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। আসামিদের মধ্যে দু’জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। ২১ জন সাক্ষীর জবানবন্দী শুনে আদালত এ রায় ঘোষণা করে। হত্যাকা-ের দীর্ঘ নয় বছর পর মামলার রায় দেয়া হয়।

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

০২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: