হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সংগ্রাম সম্পাদকসহ চারজনের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা

প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আদালত অবমাননার অভিযোগে দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে জারি করা রুলের শুনানি হয়েছে। শুনানিতে তাঁরা নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। এদিকে আসামি পক্ষকে ভুল সংশোধন ছাপানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কী ছাপা হয় তা দেখে ১২ মার্চ আদেশ প্রদান করবে ট্রাইব্যুনাল। অন্যদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের মাহিদুর রহমান ও মোঃ আফসার হোসেন চুটুর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ষষ্ঠ সাক্ষী মোঃ ফসি আলম ওরফে সাটু জবানবন্দীতে বলেছেন, রাজাকার মাহিদুর ও চুটু নিজ হাতে আজাহার ও সেন্টুকে গুলি করে হত্যা করে। ওই ঘটনায় সে দিন ১২-১৩ জনের সবাই মৃত্যুবরণ করেছিল। জবানবন্দী শেষে আসামি পক্ষের আইনজীবী সাক্ষীকে জেরা করেন। রবিবার সাক্ষীকে অসমাপ্ত জেরা করা হবে। বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ আদেশগুলো প্রদান করেছেন।

দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে জারি করা রুলের শুনানি শেষে আদেশের জন্য ১২ মার্চ দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক।

বৃহস্পতিবার আসামি পক্ষের আইনজীবী এ ওয়াই মশিউর জামান ও এম এইচ তামিম শুনানিতে তাঁরা নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ট্রাইব্যুনাল এ সময় তাদের ভুল সংশোধনী ছাপাতে বলেন। কি ছাপানো হয়, তা দেখে পরবর্তীতে ১২ মার্চ আদেশ দেয়া হবে। বিচারাধীন বিষয় নিয়ে বক্তব্য দেয়া এবং সেই বক্তব্য প্রকাশ করায় দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক আবুল আসাদসহ চারজনের বিরুদ্ধে ৩ আগস্ট আদালত অবমাননার রুল জারি করেন ট্রাইব্যুনাল। রুলের অন্য বিবাদীরা হলেনÑ সংগ্রামের রংপুর প্রতিনিধি মোঃ নুুরুজ্জামান, স্থানীয় সাবেক মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইকরামুল হক দুলু ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান সরকার রাঙ্গা। একাত্তর সালে আজহার নামে কোন রাজাকার কমান্ডারের নাম শুনিনি এবং ‘১৯৬৯ সাল থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত রংপুর কারমাইকেল কলেজে আজহার নামে কোন ছাত্রনেতা ছিলেন না’Ñ শিরোনামে সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইকরামুল হক দুলু এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আজিজুর রহমান সরকার রাঙ্গার উদ্বৃতি দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল দৈনিক সংগ্রাম। ওই প্রতিবেদন আজহারের পক্ষে ডকুমেন্ট হিসেবে উপস্থাপন করতে গেলে ট্রাইব্যুনাল সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে রুল জারি করে আদেশ দেয়।

মাহিদুর-চুটু ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের মাহিদুর রহমান ও মোঃ আফসার হোসেন চুটুর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ষষ্ঠ সাক্ষী মোঃ ফসি আলম সাটু জবানবন্দী প্রদান করেছেন। জবানবন্দী শেষে আসামি পক্ষের আইনজীবী সাক্ষীকে সংক্ষিপ্ত জেরা করেন। অসমাপ্ত জেরার জন্য রবিবার দিন ধার্য করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ বৃহস্পতিবার এ আদেশ প্রদান করেছেন।

প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৭/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: