কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

হল বরাদ্দে ছোট দলগুলো বৈষম্যের শিকার হচ্ছে ॥ নিলয় রহমান

প্রকাশিত : ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
হল বরাদ্দে ছোট দলগুলো বৈষম্যের শিকার হচ্ছে ॥ নিলয় রহমান

নিলয় রহমান। ঢাকার মঞ্চে তরুণ নাট্যকর্মী। সুঅভিনয়ের জন্য মঞ্চপাড়ায় পরিচিত। ঢাকা মৌলিক নাট্যদলের সাধারণ সম্পাদক তিনি। দলের প্রতিটি প্রযোজনায় নিয়মিত অভিনয় করছেন। মঞ্চের পাশাপাশি টিভি নাটকেও কাজ করছেন। চলচ্চিত্রেও অভিনয় করতে যাচ্ছেন। তরুণ এই অভিনেতার সাম্প্রতিক ব্যস্ততা নিয়ে তার সঙ্গে কথা হয়।

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে জানতে চাই?

নিলয় রহমান : বর্তমানে একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে একটি কোলাজ আবৃত্তির রিহার্সেল করছি। পাশাপাশি দলের নতুন মঞ্চনাটক প্রযোজনা ‘অংকুর’ নাটকের মহড়া করছি। দুটি পথনাটক ও পুরাতন মঞ্চনাটকতো রয়েছেই।

আপনাদের দলের প্রযোজনাগুলো নিয়মিত মঞ্চায়ন হতে দেখা যায় না কেন?

নিলয় রহমান : দেখুন আমরা যারা ঢাকায় নাট্যচর্চা করি তাদের নাটক মঞ্চায়নে হল বরাদ্দ পাওয়ার জন্য তুমুল প্রতিযোগিতা করতে হয়। কারণ নাটক মঞ্চায়নের জন্য জাতীয় নাট্যশালার তিনটি হলের দিকে ঢাকা শহরের কয়েকশ’ নাট্যদল চেয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে বড় বড় দলগুলোই ঘুরেফিরে বরাদ্দ পায়। আমরা যারা ছোট দলে কাজ করি তারা হল বরাদ্দের ক্ষেত্রে অনেকটাই বৈষম্যের শিকার হই বলতে পারেন। তিন-চার মাস পরেও আমরা নাটক মঞ্চায়নের জন্য হল পাই না। আমার মনে হয়, সংশ্লিষ্টরা একটু সুদৃষ্টি দিলে নাট্য আন্দোলনের ক্ষেত্রে আমরা আরও উৎসাহিত হব।

আপনার টিভি নাটকে অভিনয়ের খবর কী?

নিলয় রহমান : কিছুদিন আগে দীপু হাজরা ভাইয়ের ধারাবাহিক ‘থ্রি কমরেডস’ নাটকের কাজ করলাম। পরিচালক জিএম সৈকত ভাইয়ের নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকে কাজের কথা হচ্ছে। আরও নতুন কয়েকজন পরিচালকের সঙ্গে খ-নাটকে কাজের কথা চলছে। তবে আমি কিন্তু মঞ্চনাটকেই কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি।

এ পর্যন্ত কতগুলো টিভি নাটকে কাজ করেছেন?

নিলয় রহমান : দেখুন আমি আসলে মঞ্চের মানুষ। মঞ্চে কাজ করতে ভালবাসি। তাই বেশি টিভি নাটক করা হয়নি। যেগুলো করেছি খুব ছোট ছোট চরিত্রে। তারপরেও যে নাটকগুলো প্রচার হয়েছে সেগুলোর মধ্যে দীপু হাজরা ভাইয়ের ঈদের নাটক ‘সেতু বন্ধন’ রেহমান খলিল পরিচালিত ‘স্বপ্নঘুড়ি’, ডায়াল রহমান পরিচালিত ‘ক্ষুদিরামের ফাঁসি’, নুর হোসেন রানা পরিচালিত ‘মা আমি যুদ্ধে যাব’, নুর আনোয়ার রঞ্জু পরিচালিত ‘স্বপ্নসিঁড়ি’, রানা পরিচালিত ‘চাক্কু মাস্তান’, বিল্লাল হোসেনের ‘কোন একদিন’ এইতো।

আপনি তো মাঝের কিছুটা সময় যাত্রাও করেছেন?

নিলয় রহমান : হ্যাঁ। আমাদের দেশের বিশিষ্ট যাত্রাশিল্পী, যাত্রা সংগঠক শ্রদ্ধেয় মিলন কান্তি দের নির্দেশনায় ও দেশ অপেরার প্রযোজনায় ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ এবং ‘বর্গি এলো দেশে’ নামের দুটি যাত্রাপালায় বেশ কয়েকটি প্রদর্শনীতে অভিনয় করেছি।

এক সময় তো নৃত্যচর্চাও করতেন?

নিলয় রহমান : হ্যাঁ এক সময় নিয়মিত নৃত্যচর্চা করতাম। নৃত্যশিল্পী হিসেবেও মঞ্চে এবং দেশের বিভিন্ন স্যাটেলাইট চ্যানেলে পারফর্ম করেছি। এরমধ্যে ডিএমএস ড্যান্স কোম্পানির হয়ে বেশ কয়েকটি কর্পোরেট কোম্পানির নিজস্ব অনুষ্ঠানে পারফর্ম করার সুযোগ হয়েছিল। এছাড়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবসের বিশেষ অনুষ্ঠানমালার নৃত্যানুষ্ঠানে পারফর্ম করেছি। তবে ২০০৭ সালের পর মঞ্চনাটকে অভিনয়ে নিয়মিত হওয়ায় আর করা হয়ে ওঠেনি। মঞ্চনাটকে কোরিওগ্রাফির কাজ করছি। ভবিষ্যতে আবারও নৃত্যটা করার ইচ্ছা আছে।

চলচ্চিত্রের কোন খবর?

নিলয় রহমান : কাসেম ম-ল পরিচালিত ‘একটু চাওয়া’ শিরোনামের একটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কথা হচ্ছে। তবে আমি মুখিয়ে আছি তারেক মাহমুদ ভাইয়ের ‘চটপটি‘ চলচ্চিত্রের কাজের জন্য। চলচ্চিত্রের নামটি আমার খুব পছন্দ। আশা করছি চলচ্চিত্রের কাজটি ভাল হবে।

Ñসংস্কৃতি ডেস্ক

প্রকাশিত : ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৭/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: