মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

পরিস্থিতি দ্রুতই স্বাভাবিক হবে ॥ আশা চীনা রাষ্ট্রদূতের

প্রকাশিত : ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশে চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হবে বলে আশা প্রকাশ করেছে চীন। একই সঙ্গে এ দেশে শান্তি ও উন্নয়ন দেখতে চায় দেশটি। ঢাকায় নবনিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিং সিয়াং সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব কথা বলেন।

রবিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সৌজন্য সাক্ষাত করেন ঢাকায় নবনিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত। সাক্ষাত শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের চীনের রাত্রদূত মা মিং সিয়াং বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি দ্রুতই পর্যবেক্ষণ করছে চীন। সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করছি। আশা করছি এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে আলাপের বিষয়বস্তু সম্পর্কে রাষ্ট্রদূত জানান, বাংলাদেশ চীনের দীর্ঘদিনের বন্ধু। দুই দেশ কয়েক দশক আগে থেকেই নিজেদের উন্নয়নে একে অপরকে সহায়তা করছে। সামনের দিনগুলোতে এই সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে। দুই দেশ কিভাবে নিজেদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও গভীর করবে সেই বিষয়ে আলাপ হয়েছে। পাশাপাশি এই অঞ্চলের (দক্ষিণ এশিয়া) উন্নয়নেও চীন-বাংলাদেশ একসঙ্গে কিভাবে কাজ করতে পারে সেই বিষয়ে আলাপ হয়েছে। বৈঠকের বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বাংলাদেশে বিএনপি-জামায়াত জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ কর্মসূচীতে সাধারণ নিরীহ মানুষের মৃত্যুর বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি জানান, এই ধরনের সহিংসতা গণতন্ত্রের ভাষা হতে পারে না। এ প্রেক্ষিতে চীনের রাষ্ট্রদূত নিরীহ সাধারণ মানুষের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন। পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হবে বলেও রাষ্ট্রদূত আশা প্রকাশ করেন।

সৌজন্য সাক্ষাতকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী রাষ্ট্রদূত মা মিং সিয়াংকে জানান, চীনের নেয়া এক চীন নীতির (ওয়ান চায়না পলিসি) প্রতি বাংলাদেশর পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। চীনের রাষ্ট্রপতি জি জিনপিংয়ের নেতৃত্বে দেশটি অচিরেই পৃথিবীর বৃহত্তম অর্থনীতির দেশে পরিণত হবে। চীনের বৃহত্তম উদীয়মান অর্থনীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বাস করে এবং সমর্থন জানায়। পাশাপাশি এই শতকের বৃহত্তম অর্থনীতিতে চীনের প্রতিষ্ঠার জন্য বাংলাদেশ সক্রিয় ভূমিকা রাখতে আগ্রহী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী চীনের রাষ্ট্রদূতকে আরও জানান, দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে চীনের যে পদক্ষেপ তাতে বাংলাদেশের সমর্থন রয়েছে।

উল্লেখ্য, চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত গত ৩ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে তার পরিচয়পত্র পেশ করেন। বাংলাদেশে আসার পরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে তাঁর এটাই প্রথম বৈঠক।

প্রকাশিত : ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: