মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

যশোরে ‘হরতাল সমর্থক’ দুই যুবককে হত্যার অভিযোগ ॥ পুলিশ বলছে অন্য কথা

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ মণিরামপুরে ‘হরতাল সমর্থক’ দুই যুবককে হত্যা’র অভিযোগ উঠেছে। পুলিশের দাবি, রাতে পেট্রোলবোমা নিক্ষেপ করতে গিয়ে ট্রাকচাপায় ওই দুই যুবক নিহত হন। আর পরিবারের অভিযোগ, কাঁচামাল (তরকারি) ব্যবসায়ী ইউসুফ ও লিটনকে পুলিশ পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার পর ট্রাকচাপা দিয়েছে। নিহতরা হলেন- মণিরামপুর উপজেলার তাহেরপুর গ্রামের আবদুল আজিজের ছেলে ইউসুফ আলী (২৮) ও দুর্গাপুর গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে লিটন (২৭)। তারা দু’জন মণিরামপুর বাজারের কাঁচামাল আড়ত ‘কেশবপুর ভা-ার’ এ ব্যবসা করতেন। মঙ্গলবার ভোর রাতে যশোর-মণিরামপুর সড়কের কুয়াদা এলাকার ব্যাগারিতলা নামকস্থানে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইউসুফ আলীর ভাই তাজাম্মুল হোসেনের অভিযোগ, ‘পুলিশই ওগের মাইরে ফেইলেছে। লাশ দেখলিতো বুঝা যাচ্ছে কুপিয়ে মাইরেছে। এক্সিডেন্ট করলি ছুইলে যাবে, গোশ কাইটে যাবে। প্রথম মেইরেছে, ভিম মার দিয়েছে। মাথায়-টাতায় গড়ান মাইর দিয়েছে। মারার পর হয়তো মোটরসাইকেল ডইলে (চাপা) দিয়েছে।

তিনি আরও দাবি করেন, ওরা কোন রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল না। কাঁচামালের ব্যবসা করতো। সোমবার রাত ১১টার দিকে তারা পাওনা টাকা আদায় করতে চালকিডাঙ্গার দিকে যায়। পুলিশ ওদের রাস্তায় ধরে ফেলে। এরপর মেরে ফেলেছে।

নিহত ইউসুফের চাচাতো ভাই মাহবুব জানান, সোমবার রাতে পুলিশ ওদের দুইজনকে আটক করে। এখন দেখছি তারা লাশ। এখন আপনারা বুঝে নেন কি হয়েছে।

পেট্রোলবোমা হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইউসুফ আলী ও লিটনের পরিবারের সদস্যরা। তাদের দাবি, পরিবার বিএনপি সমর্থক হলেও রাজনীতির মাঠে তারা থাকেন না। শুধু ভোট দেন। বিএনপির সমর্থক একথা শুনে পুলিশ আটকের পর তাদেরকে পিটিয়ে হত্যা করেছে।

তবে মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা খবির আহম্মেদ জানান, সোমবার রাতে মণিরামপুর সড়কে দুর্বৃত্তরা পিকআপে অগ্নিসংযোগ করে। অগ্নিসংযোগকারীদের ধরার জন্য পুলিশ তৎপর ছিল। পরে তারা জানতে পারেন, রাত ৩টা ১৫ মিনিটের দিকে ব্যাগারিতলা এলাকায় দু’জন পিকেটার মোটরসাইকেলে করে ট্রাকে পেট্রোলবোমার মারার উদ্যোগ নিয়েছিল। চালক বিষয়টি বুঝতে পেরে ওদেরকে চাপা দিয়েছে। ঘটনাস্থলে দুটি পেট্রোলবোমা পাওয়া গেছে। এ সময় দুর্ঘটনাকবলিত একটি মোটরসাইকেলও উদ্ধার করা হয়েছে।’

পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ প্রসঙ্গে মণিরামপুর থানার ওসি মোল্লা খবির আহম্মেদ জানান, এমন অভিযোগ সত্য নয়। আমি এমন শুনিনি।’ আর যশোরের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) রেশমা শারমিন জানিয়েছেন, এ ধরনের অভিযোগের কোনও সত্যতা নেই।

অপরদিকে, ভোর ৪টার দিকে যশোর-মাগুরা মহাসড়কের ভাটার আমতলা এলাকায় পেট্রোলবোমা নিক্ষেপকালে গণপিটুনির শিকার হয়েছে এক বিএনপি কর্মী। গণপিটুনির শিকার শাহীনের (৩০) বাড়ি বাঘারপাড়া এলাকায়। আহত অবস্থায় তাকে যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৪/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: