কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বার্সার জার্সিতে জমে উঠেছে মেসি-নেইমার জুটি

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫
বার্সার জার্সিতে জমে উঠেছে মেসি-নেইমার জুটি
  • অতশী আলম

কিছুতেই জমে উঠছিল না তিন ত্রয়ীর বোঝাপড়া। যে কারণে ধুঁকতে হচ্ছিল বার্সিলোনাকে। অবশেষে একসঙ্গে জ্বলে উঠেছেন ক্যাটালানদের তিন বড় ও প্রধান তারকা লিওনেল মেসি, নেইমার ও লুইস সুয়ারেজ। যার ফসল হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ে সব ধরনের ফুটবলেই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিচ্ছে বার্সিলোনা। অবশ্য ক্যাটালানদের এই সাফল্যের বড় অংশজুড়ে আছে মেসি-নেইমার জুটি জমে ওঠা। বার্সায় নেইমার নাম লেখানোর পর শুরুর দিকে তেমন জমজমাট হয়নি আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল অধিনায়কের জুটি। তবে খোলস ছেড়ে দুজনেই সাম্প্রতিক সময়ে ঔজ্জ্বল্য ছড়াচ্ছেন। যার সুফল ভোগ করছে বার্সিলোনা।

সর্বশেষ স্প্যানিশ লা লীগায় মেসি ও নেইমার একসঙ্গে জ্বলে ওঠেন। করেন দুটি করে গোল। এর আগে স্প্যানিশ কোপা ডেল রে ফুটবলে মেসি ও নেইমার জাদুতে উড়ে যায় এলচে। ম্যাচটিতে বার্সা জয় পায় ৫-০ গোলে। নেইমার করেন জোড়া গোল। একটি করে গোল করেন মেসি ও সুয়ারেজ। ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক নেইমার বার্সিলোনার আক্রমণভাগ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আমাদের আক্রমণভাগে দুর্দান্ত সব ফুটবলার আছে। এটা ঠিক যে কিছুদিন আমরা ঠিকমতো নিজেদের মেলে ধরতে পারিনি। তবে আমি আশাবাদী এভাবেই আমরা খেলতে পারব। আমরা এখন দুর্দান্ত খেলছি। সবাই নিজের জায়গা সম্পর্কে সচেতন আছে। বিশেষ করে আমাদের আক্রমণভাগ অত্যন্ত শক্তিশালী। আমি বার্সার অ্যাটাককে স্যালুট করি। এখানে মেসির মতো বিশ্বসেরা ফুটবলার আছে। আমরা সবাই তাঁকে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত। লা লীগায় এলচের বিরুদ্ধে ম্যাচে একসঙ্গে আলো ছড়ান নেইমার ও মেসি। দুজনেই করেন দুটি করে গোল। আর তাতেই স্বাগতিক এলচের জালে গোলবন্যা করে ক্যাটালানরা। চলমান মৌসুমে যা এলচের বিরুদ্ধে ক্যাটালানদের চতুর্থ জয়। লীগের প্রথম পর্বে ৩-০ গোলে জেতার পর কোপা ডেল রের শেষ ষোলোর দুই লেগ মিলিয়ে ৯-০ ব্যবধানে জয় পায় বার্সিলোনা। ২০১৩ সালে বার্সিলোনায় নাম লেখানোর পর সাক্ষাতকারে নেইমার বলেন, ‘আমি খুব খুশি। ন্যূক্যাম্পে এসে আমার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। বার্সিলোনা ক্লাবের চেয়েও বেশিকিছু। এটা আমার ও পরিবারের জন্য দারুণ দিন। শিশুকাল থেকে যাদের খেলা দেখে শিহরিত হয়েছি, এখন তাদের সঙ্গে খেলার সুযোগ পেয়েছি। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ। ব্যালন ডি অ’র জয় কিংবা বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার কথা কখনই ভাবিনি। সেরা খেলোয়াড় এখানেই আছে। সে হলো লিওনেল মেসি। এখন আমি তাঁকে খুব কাছ থেকে দেখতে পারব। তাঁকে ফের সেরা হতে সহায়তা করতে পারব।’ ২২ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সিলোনার সঙ্গে চুক্তি করার পর ন্যূক্যাম্পে সংবাদ সম্মেলনে কথাগুলো বলেন। স্বপ্ন ছিল ইউরোপের বড় ক্লাবে খেলা। তবে সেটা ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপের পর। এমন কথা অনেকবারই বলেন নেইমার। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান ক্লাব সান্তোসে বিস্ফোরক নৈপুণ্য প্রদর্শন করায় ইউরোপের জায়ান্টরা কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ নিয়ে সময়ের অন্যতম সেরা তারকাকে দলভুক্ত করার পরিকল্পনা করে। জল্পনা-কল্পনার ইতি টেনে রিয়াল মাদ্রিদ, চেলসি, বেয়ার্ন মিউনিখ, ম্যানচেস্টার সিটির মতো বড় বড় ক্লাবকে টপকে আগামীর তারকাকে নিজেদের তাঁবুতে ভিড়িয়েছে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সিলোনা। যে কারণে এখন হরহামেশাই লিওনেল মেসি-নেইমার আকাক্সিক্ষত জুটির দেখা পাচ্ছে ফুটবলবিশ্ব। ৫৭ মিলিয়ন ইউরোতে সান্তোস থেকে বার্সায় এসেছেন নেইমার। বর্তমান চুক্তি অনুযায়ী ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত বার্সায় থাকবেন নেইমার। সাম্বা ছন্দের বর্তমান সেরা তারকাকে কী পরিমাণ অর্থ খরচ করে সান্তোস থেকে আনা হয়েছে, এটা নিযে এতদিন ছিল নানা রকম গুঞ্জন। তবে চুক্তির সময় ব্যাপারটা স্পষ্ট করেন বার্সার ভাইস প্রেসিডেন্ট জোসেফ বার্টোমিউ। তিনি বলেন, নেইমারের ‘ট্রান্সফার ফি’ ৫৭ মিলিয়ন ইউরো। এরইমধ্যে ১০ মিলিয়ন ইউরো অগ্রিম পরিশোধ করা হয়েছে। বাকি অর্থ আগামী তিন বছরে কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে। বার্সার ভাইস প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, নেইমারকে পেতে ৪০ মিলিয়ান ইউরোর বেশি খরচ করতে রাজি ছিল না বার্সা। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদসহ কয়েকটি ক্লাবের আগ্রহের কারণে মূল্য বাড়াতে হয়েছে। নেইমারকে নিয়ে ইউরোপের ক্লাবগুলোর আগ্রহ অনেক দিনের। স্প্যানিশ পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদও খুব করে দলভুক্ত করতে চেয়েছিল। কিন্তু বাজিমাত করেছে বার্সিলোনা। বার্সার সঙ্গে চুক্তি প্রসঙ্গে নেইমার বলেন, ‘অর্থ ঠিক আছে কিন্তু সুখ সবার আগে। আমরা ঠিক করেছি বার্সিলোনায় যোগ দেব। অনেক প্রস্তাব থাকলেও হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করে এখানে এসেছি।’ ইউরোপীয় ফুটবলে এই প্রথমবার খেলছেন নেইমার। এখানে মানিয়ে নেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় ইউরোপের ফুটবলে মানিয়ে নেয়া খুব কঠিন। কিন্তু আমি আশা করি দ্রুত মানিয়ে নিতে পারব।’ কথা রাখতে পেরেছেন ব্রাজিল অধিনায়ক। দ্রুতই তিনি ক্যাটালানদের ছন্দের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছেন।

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫

২৮/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: