মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

টাঙ্গাইলে চরমপন্থী নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারী ২০১৫
  • অন্যত্র দুই যুবক, শিশু ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ টাঙ্গাইলে চরমপন্থী দলের নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বরিশালে দুই যুবকের, গাজীপুরে শিশুর ও নারায়ণগঞ্জে ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার হয়েছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের-

টাঙ্গাইল ॥ সদর উপজেলার যুগনী এলাকার নিষিদ্ধঘোষিত পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টি (সর্বহারা) চরমপন্থী দলের আঞ্চলিক কমান্ডার গোলাম রাব্বানীকে (৩৭) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বাঘিল ইউনিয়নের কাঠুয়া যোগিনী গ্রামে রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। সোমবার সকালে সদর উপজেলার বাঘিল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

বরিশাল ॥ নগরী ও জেলার বাকেরগঞ্জ থেকে নিখোঁজের একদিন পর সোমবার সকালে ধনু পাটিকর (৩৮) ও শাহিন কারিকর (২৫) নামে দুইজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপরদিকে উপজেলার গাড়ুরিয়া ইউনিয়নের সুখিনীলগঞ্জ গ্রামের ধনু পাটিকর শনিবার সন্ধ্যায় নিখোঁজ হয়। সোমবার সকালে স্থানীয়রা ধাপরকাঠি এলাকার পা-ব নদীতে ধনুর মৃতদেহ দেখে পুলিশ খবর দেয়।

গাজীপুর ॥ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে তিন বছরের এক শিশুকে চুরি করে নেয়ার ২৫ দিন পর সোমবার বংশী নদী থেকে তার গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জ ॥ সোমবার সকালে উপজেলার সোনারগাঁওয়ের কাঁচপুর বড়িবাড়ি এলাকা থেকে রুহুল জামিল (৩৫) নামে এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কক্সবাজারে সন্ত্রাস নাশকতাবিরোধী সমাবেশে নারী পুরুষের ভিড়

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার থেকে ॥ সকালবেলায় অসংখ্য গাড়ির বহর। ঘর থেকে বের হয়নি লোকজন। হাওয়ায় কানে আসছে হরতালবিরোধী স্লোগান। হাজারও লোকের মুখে ধ্বনি- সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধের আহ্বান। বিএনপি-জামায়াতের অযৌক্তিক অবরোধ-হরতালের ২০ দিন পর এসব কী শোনা যাচ্ছে বলে কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কে সোমবার লোকে লোকারণ্যে পরিণত হয়েছে। অবরোধ-হরতালবিরোধী সাধারণ লোকজনের পাশাপাশি ছোট শিশুদের কোলে করে ঘর থেকে রাস্তায় বেরিয়ে এসে মহিলারাও সকলকে জানান দিচ্ছে অবরোধ-হরতাল চায় না। শান্তিতে বসবাস করতে চাই আমরা। কক্সবাজার জেলার ১৪ দলের সমন্বয়ে গঠিত সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে সোমবার সকালে অসংখ্য গাড়ির বিশাল বহর সহকারে সন্ত্রাস ও নাশকতার বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার লক্ষ্যে কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কে সফরকালে প্রতিটি স্টেশন ও বাজার এলাকায় হাজার হাজার লোকের সমাগম ঘটে। সকাল ১০টায় উখিয়া কোটবাজার স্টেশনে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে দোকানিরা কিছুক্ষণের জন্য দোকান বন্ধ করে, বাড়িঘরে থাকা নারী-পুরুষ ও পথচারীরা সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধে জনমত গড়ে তোলার পক্ষে সমর্থন জানাতে এগিয়ে এসেছেন। সাধারণ ব্যক্তিদের অনেকে জানিয়েছেন, আমরা শান্তিতে ছিলাম, নিত্যপ্রয়োজনীয় কোন পণ্যের দাম বাড়েনি। গাড়িতে আগুন দিয়ে, পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ খুন করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে বেকায়দায় ফেলে আমাদের সাধারণ লোকজনের মধ্যে কেন এমন অবরোধ আতঙ্ক ও অশান্তি ডেকে নিয়ে আনা হচ্ছে- তা আমরা খালেদা জিয়াকে প্রশ্ন রাখতে চাই।

প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারী ২০১৫

২৭/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: