মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গেইল ঝড়ে ক্যারিবীয়দের ইতিহাস

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫
  • ওয়ান্ডারার্সে দ্বিতীয় টি২তে ২৩১ রানের পুঁজি নিয়েও ৪ উইকেটে হার প্রোটিয়াদের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কেপটাউন থেকে জোহানেসবার্গ, গেইল-ঝড়ে ছিন্ন ভিন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা! গেইল ব্যাটিং দানব, গেইল অবিশ্বাস্য, ক্রিকেটপ্রেমী হিসেবে প্রোটিয়াদের তা অজানা নয়। কিন্তু রুদ্রমূর্তির ক্যারিবিয়ান উইলোবাজ যে এতটা ভয়ঙ্কর হতে পারেন, এবার সেটি চোখের সামনে দেখল তারা। ২৩১ রানের বিশাল স্কোর গড়েও দ্বিতীয় টি২০তে ফ্যাফ ডুপ্লেসিসের দল হারল ৩ উইকেটে! ম্যাচের নায়ক ক্রিস গেইলের ৪১ বলে ৯০ রানের টর্নেডো ইনিংসে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ২-০তে সিরিজ জিতে নিল ড্যারেন সামির দল। উইন্ডিজ ১৯.২ ওভারে ৬ উইকেটে ২৩৬Ñপরে ব্যাটিং করে রান সংগ্রহের ক্ষেত্রে টি২০-এর নতুন ইতিহাস এটি!

জোহানেসবার্গের নিউ ওয়ান্ডারার্স যেন পরে ব্যাটিং করা দলের স্বর্গরাজ্য! ২০০৬ সালের ১২ মার্চ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে ৪৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়ে আনন্দে লাফাচ্ছিলেন পন্টিং। হার্সেল গিবসের ১৭৫ ও অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথের ৯০ রানের সৌজন্যে ১ বল ও ১ উইকেট হাতে রেখে সেই ম্যাচ জিতে ওয়ানডের ইতিহাস নতুন করে রচেছিল প্রোটিয়ারা। ভেন্যু একই, কিন্তু ভাগ্যটা এবার বদলে গেল। গেইল হয়ে গেলেন গিবস, আর স্যামুয়েলস যেন স্মিথ! স্বাগতিকদের কাঁদিয়ে আরও এক নতুন রেকর্ডে নাম লেখাল ওয়ান্ডারার্স। টি২০তে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড। আগে যেটি ছিল ভারতের দখলে, ২০০৯ সালে মোহালিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৪ উইকেটে ২১১ রান করে জিতেছিল তারা। পরে ব্যাট করে ২১৪ রান সংগ্রহের নজিরও আছে, তবে ২০১০-এর ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টাই করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়াকে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঐতিহাসিক জয়ের রূপকার গেইল-স্যামুয়েলসের ধুরন্ধর ব্যাটিং। ব্যক্তিগত ১৭ রান করে ওপেনার ডোয়াইন স্মিথ যখন সাজঘরে উইন্ডিজের রান তখন মোটে ১৯। এর পরই দৃশ্যপটে ওই জুটি। দ্বিতীয় উইকেটে মাত্র ১১ ওভার ৫ বলে ১৫২ রান যোগ করেন তারা! অবিশ্বাস্য জয়ের ভিত তৈরি হয়ে যায় ওখানেই। ৩৯ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৬০ রান করে আউট হন স্যামুয়েলস। ৪১ বলে ৯ চার ও ৭ ছক্কায় ৯০ রান করে (ক্যারিয়ারের ১৩ নম্বর হাফ সেঞ্চুরি) ‘সত্যিকারের নায়ক’ গেইল। ২৩ বলে ৭ চার ও ৩ ছক্কায় হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন জ্যামাইকান ব্যাটিং-দানব। কেপটাউনে প্রথম ম্যাচে ১৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে যিনি একাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছিলেন। ইনজুরি কাটিয়ে ফেরার পর এ নিয়ে দুই ম্যাচেই ম্য্যাচসেরা ৩৫ বছর বয়সী ‘ড্যাশিং’ উইলোবাজ! টানা দুই জয়ে সিরিজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের।

তার আগে প্রোটিয়াদের বিশাল সংগ্রহের রূপকার অধিনায়ক ডুপ্লেসিস (৫৬ বলে ১১৯, ১১ চার ও ৫ ছক্কা, ক্যারিয়ারের প্রথম টি২০ সেঞ্চুরি)। ডারবানে নিয়ম রক্ষার শেষ ম্যাচ বুধবার।

স্কোর ॥

দক্ষিণ আফ্রিকা ॥ ২৩১/৭ (২০ ওভার; ডুপ্লেসিস ১১৯, মিলার ৪৭, অনটাং ১৯; ডোয়াইন ব্রাভো ২/৩২, জেসন হোল্ডার ২/৪০)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ॥ ২৩৬/৬ (১৯.২ ওভার; গেইল ৯০, স্যামুয়েলস ৬০, স্যামি ২০*, ডোয়াইন স্মিথ ১৭, আন্দ্রে রাসেল ১৪; ডেভিড ওয়েসে ৩/৪৩, এ্যারন ফ্যাঙ্গিসো ১/৩৩)

ফল ॥ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরা ॥ গেইল (উইন্ডিজ)

সিরিজ ॥ তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজে উইন্ডিজ ২-০তে এগিয়ে ।

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫

১৩/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: