আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রধানমন্ত্রী আমিরাতে শ্রমিক নিয়োগের চুক্তি করতে ব্যর্থ হয়েছেন

প্রকাশিত : ২৯ অক্টোবর ২০১৪

জাগপার আলোচনায় ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আরব আমিরাত সফরে কোন সফলতা নেই মন্তব্য করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, সে দেশে গিয়ে তিনি শ্রমিক নিয়োগের চুক্তি করতে ব্যর্থ হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, আরব আমিরাতে নারী গৃহকর্মী নেয়ার ব্যাপারে সরকারের তরফ থেকে যে চুক্তির কথা বলা হচ্ছে, তা আগে থেকেই ছিল। দেশের উন্নয়ন করতে ব্যর্থ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেবল বিদেশে গিয়ে ফটোসেশন করেন আর সাকসেস সাকসেস বলে প্রচারণা চালান। সাকসেস হলে আমরা খুশি হব। তবে তার আগে দেশের মানুষকে খুশি করে তাদের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে। অন্যথায় জোর করে অতীতে কেউ ক্ষমতায় টিকতে পারেনি এ সরকারও পারবে না।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, দেশের ওপর ভয়াবহ দানব চেপেছে। যারা দেশ এবং দেশের মানুষের ওপর নির্যাতন নিপীড়ন ও হত্যার মধ্য দিয়ে জিম্মি করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চাচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এ সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন ছাড়া বিকল্প নেই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ জাতিকে বিভক্ত করে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা হরণ করে রাষ্ট্রের সকল প্রতিষ্ঠানকে আইনগতভাবে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিতে চাচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ২৮ অক্টোবর দেশের ইতিহাসে একটি কালো দিন। ২০০৬ সালের এই দিনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা লগি-বৈঠার মাধ্যমে এ দেশের নিরীহ জনগণকে হত্যা করেছে। ২৮ অক্টোবর থেকেই দেশে যারা গণতন্ত্র ও স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করা হয় তাবেদার সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য। ষড়যন্ত্রকারীরা দেশকে একটি তাবেদার রাষ্ট্রে পরিণত করেছে, যা এখনও অব্যাহত রয়েছে। ২৮ অক্টোবরের পর ওয়ান-ইলেভেন সৃষ্টি হয়। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নামে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশের রাজনীতিতে বিরাজনীতিকরণের নীলনক্সা শুরু হয়।

ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়। কিন্তু বিশ্ব রাজনীতির প্রেক্ষাপট ভিন্ন হওয়ায় তারা সরাসরি ঘোষণা না দিয়ে পরোক্ষভাবে সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করতে চায়। এর মাধ্যমে আইনগতভাবে তারা সবকিছু নিয়ন্ত্রণে নিতে চায়। তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর সরকার সম্প্রচার নীতিমালা ও অভিশংসন আইন করেছে। তিনি বলেন, এই ফ্যাসিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক আন্দোলন করা কষ্টকর। তাই এই দানবকে প্রতিহত করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামতে হবে।

ফখরুল বলেন, এ সরকারের আইনের প্রতি কোন শ্রদ্ধাবোধ নেই। এ জন্যই তারা বলছে, আগে উন্নয়ন পরে গণতন্ত্র। তারা গণতন্ত্র বিশ্বাস করেন না। এ জন্যই দেশ আজ মহাসঙ্কটে। এ সঙ্কট থেকে দেশকে উদ্ধার করতে হবে। তিনি বলেন, দেশে আজ শুধু বিএনপির নেতাকর্মীই নয়, সাধারণ মানুষকেও হত্যা-গুম করা হচ্ছে।

জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরী, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, এনপিপির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামিক পার্টির সভাপতি এ্যাডভোকেট আবদুল মোবিন, জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ।

শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে টেনেহিঁচড়ে নামাতে হবে -শাহ মোয়াজ্জেম ॥ প্রকৃত স্বাধীন দেশ কায়েম করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে টেনেহিঁচড়ে নামাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন। মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে মানবাধিকার পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, আবুল মাল আবদুল মুহিত, দুর্নীতিবাজ লতিফ সিদ্দিকী এবং হাসানুল হক ইনুরা শেখ হাসিনার বদৌলতে মন্ত্রী হয়েছেন। শেখ মুজিবকে মারার জন্য যে গণবাহিনী গঠন করেছিল সেই ইনুকে নিয়ে মন্ত্রিসভা গঠন করে শেখ হাসিনা দেশকে আইয়েমে জাহেলিয়াতে পরিণত করেছে।

জঙ্গীদের খরচ কে দিচ্ছে -হান্নান শাহ ॥ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) আ স ম হান্নান শাহ বলেছেন, ভারত সব সময় বলে আসছে বাংলাদেশে জঙ্গী আছে। এখন দেখা গেছে বাংলাদেশ নয় ভারতেই জঙ্গী লালন পালন করা হচ্ছে। সে জঙ্গীরাই বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কর্মকা-ের ষড়যন্ত্র করছে। এই জঙ্গীদের খরচ কে দিচ্ছে? মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

প্রকাশিত : ২৯ অক্টোবর ২০১৪

২৯/১০/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: