মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

না ভোটের অর্থ ইউরো ত্যাগ

প্রকাশিত : ১ জুলাই ২০১৫
  • গ্রীকদের প্রতি জার্মানি ফ্রান্স ও ইতালির হুঁশিয়ারি

ইউরোজোনের তিনটি বৃহত্তম দেশ রবিবার অনুষ্ঠেয় গণভোটে তাদের দাবি আরও জোরালো করেছে। তারা সম্মিলিত কণ্ঠে ভোটারদের সতর্ক করে দিয়েছে, না ভোট প্রদানের অর্থ একক মুদ্রা থেকে গ্রীসের বেরিয়ে যাওয়া ও পূর্বতন মুদ্রা দ্রাচমায় প্রত্যাবর্তন। গ্রীক অর্থনীতি পুঁজি প্রবাহের ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপের মাধ্যমে প্রথম কষ্টপীড়িত দিন অতিবাহিত করার প্রেক্ষাপটে জার্মানি, ফ্রান্স ও ইতালির রাজনীতিবিদরা ইউরোপীয় কমিশনের সঙ্গে মিলিত কণ্ঠে জোর দিয়ে বলেছে, এই ভোট এথেন্সের জন্য আরও অনুকূল বেল আউটের (দেউলিয়াত্ব ঠেকাতে ঋণ সহায়তা) শর্ত নিশ্চিত করবে কিনা সে জন্য নয়, বরং ইউরো সদস্যপদ অব্যাহত থাকবে কিনা সে জন্যই অনুষ্ঠিত হচ্ছে। খবর গার্ডিয়ান ও বিবিসির।

এদিকে গ্রীক প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপ্রাস গ্রীসের ঋণ সঙ্কট প্রশ্নে ডাকা রবিবারের গণভোটে ঋণদাতাদের দাবি প্রত্যাখ্যান করার জন্য ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সিপ্রাস বলেন, ব্যয় সংকোচন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে একটি সুস্পষ্ট ভোট গ্রীসকে সঙ্কটের আরও ভাল সমাধানে পৌঁছাতে সাহায্য করবে। তিনি সতর্ক করে দেন অন্যথায় আরও ব্যয় কর্তন দেখার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকবেন না। মঙ্গলবার গ্রীসের বেল আউটের শেষ দিন। একই দিন দেশটি আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলকে ১৬০ কোটি ইউরো পরিশোধের সঙ্কটময় সময়সীমা উত্তীর্ণ হওয়ার মুখোমুখি হচ্ছে।

ইইউ নেতৃবৃন্দ রবিবারের গণভোটে ঋণদাতাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের অর্থ গ্রীসের ইউরোজোন ত্যাগÑ এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করলেও সিপ্রাস বলেছেন, তিনি চান না এ ধরনের কিছু ঘটুক। গত সপ্তাহে গ্রীস ও ঋণদাতাদের মধ্যে আলোচনা ভেঙ্গে গেলে গ্রীক ব্যাংকগুলোকে এ সপ্তাহের জন্য বন্ধ করে দিতে হয়। এই অনিশ্চিয়তায় সোমবার শেয়ার বাজারেরও ব্যাপক পতন ঘটে। সোমবার সন্ধ্যায় সরকারের প্রস্তাবাবলীর প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করতে হাজার হাজার লোক গ্রীক পার্লামেন্টের বাইরে সমবেত হয়। মঙ্গলবার হ্যাঁ ভোটের সমর্থকদের একটি পাল্টা বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। ব্রিটিশ অর্থমন্ত্রী জর্জ অসবর্ন পার্লামেন্ট সদস্যদের বলেছেন, গ্রীসের ইউরোজোন ত্যাগজনিত বিশৃঙ্খলায় যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। রেটিংস এজেন্সি (ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা অর্জনের মান নির্ধারণী সংস্থা) স্ট্যান্ডার্ড এ্যান্ড গুডস গ্রীসের ইউরো ত্যাগের প্রতিক্রিয়ার একটি হতাশাব্যঞ্জক চিত্র আঁকার পর অর্থমন্ত্রী এই মন্তব্য করলেন। এজেন্সি ইউরো ত্যাগের সম্ভাবনা ৩৩ শতাংশ থেকে ৫০ শতাংশে উন্নীত করেছে। এস এ্যান্ড পি বলেছে, সেক্ষেত্রে ‘গ্রীসের বেসরকারী ও সরকারী খাতে বৈদেশিক্র মুদ্রার গুরুতর ঘাটতি দেখা দিতে পারে, যাতে শেষ পর্যন্ত জ্বালানির মতো প্রধান আমদানি পণ্যের রেশনিং করতে হতে পারে।’ এস এ্যান্ড পি আরও বলেছে, গ্রীক ব্যাংকগুলোকে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অব্যাহত সাহায্য ছাড়া দেশের ‘অর্থ পরিশোধ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাবে এবং ব্যাংকগুলো লেনদেনের ক্ষেত্রে অসমর্থ হয়ে পড়বে।’

গ্রীসের ঋণ সঙ্কটে সোমবার দিনের শেষে বিশ্বজুড়ে শেয়ার বাজারের তীব্র দরপতন ঘটে। ব্যাংক থেকে দৈনিক ৬০ ইউরোর বেশি উত্তোলনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপিত হওয়ায় গ্রীসবাসীরা স্তম্ভিত ভাব না কাটতেই সিপ্রাস সন্ধ্যায় এক টিভি ভাষণে আরেক দফা ব্যাপক কর বৃদ্ধি ও ব্যয় সংকোচনের কমিশন, ইসিবি ও আইএমএফের দাবির প্রতি তাঁর বিরোধিতাকে সমর্থনদানের আহ্বান জানান।

ওই ভাষণে সিপ্রাস গ্রীকদের প্রতি ঋণদাতাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের আবেদন জানিয়ে বলেন, এটি গ্রীসকে আলোচনা টেবিলে আরও শক্তিশালী অস্ত্র জোগাবে। তিনি বলেন, আমি আপনাদের বলছি, আপনাদের সর্বশক্তি দিয়ে এটি প্রত্যাখ্যান করুন, যত বড় ধরনের ব্যবধানে সম্ভব।’

প্রকাশিত : ১ জুলাই ২০১৫

০১/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: