কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চিকিৎসায় সাফল্যের চিত্র- নর্থ সাউথে ফার্মা উৎসব

প্রকাশিত : ৮ জুন ২০১৫
  • উত্তরা ভার্সিটিতে বই উৎসব

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চিকিৎসাসেবায় আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, নতুন ওষুধ উদ্ভাবন ও চিকিৎসা ক্ষেত্রে সাফল্যের চিত্র তুলে ধরার লক্ষ্যে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত হলো ‘ফার্মা উৎসব’। রবিবার প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাসে দিনব্যাপী এ আয়োজনে শিক্ষার্থীদের ছিল ব্যাপক সাড়া। এদিকে আরেক বেসরকারী উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান উত্তরা ইউনিভার্সিটিতে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী বই উৎসব।

রবিবার সকালে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে শুরু হয় ‘ফার্মা উৎসব’। চিকিৎসাসেবায় আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, নতুন ওষুধ উদ্ভাবন ও চিকিৎসা ক্ষেত্রে সাফল্য বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টিই ব্যতিক্রমী এ আয়োজনের লক্ষ্য। উৎসবে ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে স্থাপিত অর্ধশতাধিক স্টলের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত নানা তথ্য দর্শনার্থীদের কাছে তুলে ধরা হয়। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি ফার্মাসিউটিক্যাল ক্লাব এ উৎসবের আয়োজন করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের ২০১২ থেকে ২০১৫ সালে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। শিক্ষার্থীরা ছাড়াও বিভিন্ন ফার্মাসউটিক্যাল কোম্পানি ও বেসরকারি হাসপাতালের প্রতিনিধিরা তাদের নিজ নিজ সেবা ও সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে স্টল থেকে বিভিন্ন তথ্য জানান। ‘এসো প্রেজেন্টস ফার্মা ফেস্ট-২০১৫’ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে চিকিৎসার বিভিন্ন দিক নিয়ে একটি সেমিনারও অনুষ্ঠিত হয়। এতে ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক আমিন ইউ সরকার, সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেডের শিল্প বিষয়ক পরিচালক মঈন উদ্দিন মজুমদার প্রমুখ। ফার্মা উৎসবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ জনের একটি করে দলে বিভিক্ত হয়ে স্টলে অংশগ্রহণ করেন। ছাড়াও ওরিয়ন গ্রুপ, স্কয়ার, স্কয়ার হাসপাতাল, ঢাকা এ্যাপোলা হাসপাতাল, ইউনাইটেড হাসপাতাল, নাভানা ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড, জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ৩০টি স্টল দেয়া হয়। সন্ধ্যায় উৎসবের সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান বেনজীর আহমেদ। উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য আমিন ইউ সরকারসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

এদিকে উত্তরা ইউনিভার্সিটিতে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী বই উৎসব। যার উদ্বোধন করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ছাপা পাঠ্যবই বিতরণের পরিবর্তে সরকার শিক্ষার্থীদের হাতে ট্যাব তুলে দেয়ার কথা ভাবছে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। প্রথমে মাল্টিমিডিয়া শ্রেণীকক্ষের কথা বলায় অনেকেই পাগলের প্রলাপ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন। কিন্তু এখন দেশে সাড়ে ২৩ হাজার প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া শ্রেণীকক্ষ রয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে হলে প্রযুক্তির উৎকর্ষতার কোন বিকল্প নেই। আর তাই আমরা চিন্তা করছি ছাপা পাঠ্যবইয়ের পরিবর্তে শিক্ষার্থীদের হাতে ট্যাব তুলে দেব। এসব ট্যাবে পাঠ্যবই ডাউনলোড করে দেয়া হবে।

এ বছরই সবার হাতে ট্যাব তুলে দেয়া হয়ত সম্ভব হবে না। তবে ভবিষ্যতে যাতে দেয়া যায় সে বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা চলছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী। বইয়ের গুরুত্বের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বই পড়ার কোন বিকল্প নেই। প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হলেও তা আগে জানতে হবে। না জানলে তো প্রযুক্তি ব্যবহারই করতে পারবে না।

বইমেলার উদ্যোগ নেয়ায় উত্তরা ইউনিভার্সিটির প্রশংসা করেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, উত্তরা ইউনিভার্সিটির মতো অন্যান্য বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ও বইমেলার বিষয়ে নজর দিতে পারে। এতে শিক্ষার্থীদের বই পড়ার আগ্রহ বাড়বে। বই মানে তো এই না যে, ফেব্রুয়ারি এলেই গোটা চারেক বই কিনলাম। বই সব সময়ের জন্য। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমেরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, ফোকলোরবিদ অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। সাতদিনব্যাপী এ বইমেলা চলবে আগামী ১৩ জুন পর্যন্ত।

নাশকতায় নিহত শিক্ষকের পরিবারকে কল্যাণ ট্রাস্টের চেক প্রদান ॥ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকালে নির্বাচনবিরোধী বিএনপি-জামায়াতের হামলায় নিহত ঠাকুরগাঁও জেলার সালন্দর ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক এবিএম জোবায়দুল হকের পরিবারকে কল্যাণ ট্রাস্টের চেক তুলে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। রবিবার সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী বেসরকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের দুই লাখ ৫২ হাজার ৯৫ টাকার চেক তুলে দেন। শিক্ষামন্ত্রীর কাছ থেকে চেক বুঝে নেন নিহত শিক্ষকের স্ত্রী রাশিদা বেগম। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের রাতে ঠাকুরগাঁও সদরের ছেপড়িপুরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালনকালে গুলিতে নিহত হন জোবায়দুল। মৃত্যুর পর তার স্ত্রীর আবেদনের প্রেক্ষিতে নিহতের পরিবারকে সম্মান জানানোর জন্য দ্রুত অনুদানের ব্যবস্থা করা হয় বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। ভবিষ্যতে আরও সহায়তার ব্যবস্থার আশ্বাস দেন তিনি। এ সময় নিহতের মেয়ে তামান্না, ছেলে রিজভী, শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব শাহজাহান আলম সাজু উপস্থিত ছিলেন।

প্রকাশিত : ৮ জুন ২০১৫

০৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: