মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সালাহউদ্দিনের সিঙ্গাপুরে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবে কোর্ট

প্রকাশিত : ২২ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমদকে নর্থ ইস্টার্ন ইন্দিরা গান্ধী রিজওনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ এ্যান্ড মেডিক্যাল সায়েন্সেস (নেগ্রিমস) হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সালাহউদ্দিন এ হাসপাতালটিতেই চিকিৎসাধীন থাকার কথা জানা গেছে। বৃহস্পতিবার সালাহউদ্দিনের নতুন করে কোন স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়নি। সালাহউদ্দিনকে এ হাসপাতালেই রাখা হবে, নাকি আবার শিলং সিভিল হাসপাতালে ফেরত নেয়া হবে তা চিকিৎসকদের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে।

এদিকে আবারও বৃহস্পতিবার আইনী পরামর্শের জন্য সালাহউদ্দিনের স্ত্রী মেঘালয়ের অপরাধবিষয়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এসপি মাহান্তর সঙ্গে হাইকোর্টে তাঁর চেম্বারে আলোচনা করেছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্রের পর সালাহউদ্দিনকে মেঘালয় আদালতে হাজির করা হবে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তার সিঙ্গাপুর যাওয়ার বিষয়টি আদালতের উপর নির্ভর করছে বলে শিলং পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

নেগ্রিমসের পরিচালক এ জি এহেনগার সাংবাদিকদের জানান, সালাহউদ্দিনের বেশকিছু স্বাস্থ্যবিষয়ক পরীক্ষা করা হবে। এরপর তাকে একজন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে রাখা হবে। স্বাস্থ্যবিষয়ক পরীক্ষার প্রতিবেদন পর্যালোচনার পর সালাহউদ্দিনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এদিকে স্বামীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আইনী সহযোগিতা পেতে সালাহউদ্দিনের স্ত্রী মেঘালয়ের অপরাধবিষয়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এসপি মাহান্তর সঙ্গে আলোচনা করে যাচ্ছেন। মঙ্গলবার প্রথম দফায় আইনজীবী মাহান্তর চেম্বারের কনিষ্ঠ আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করেন। বুধবার আইনজীবী এসপি মাহান্তর সঙ্গে আলোচনা করেন। বৃহস্পতিবার আবারও হাইকোর্টে এসপি মাহান্তর চেম্বারে আলোচনা করেন। যদিও আলোচনার বিষয়ে সালাহউদ্দিনের স্ত্রী ও আইনজীবী এসপি মাহান্ত তেমন কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে এসপি মাহান্তর জানিয়েছেন, বিএনপি নেতার স্ত্রীর পাশাপাশি এখানকার কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশও সালাহউদ্দিনের সুস্থ হওয়ার বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে।

গত ৫ মার্চ থেকে বিএনপির ডাকা দেশব্যাপী লাগাতার অবরোধ চলার মধ্যেই গত ১১ মার্চ সালাহউদ্দিনের স্ত্রী বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা আহমেদ দাবি করেন, তার স্বামীকে গত ১০ মার্চ রাতে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর গুম করা হয়েছে। দলের তরফ থেকেও এমন অভিযোগ করা হয়।

গত ১২ মে সালাহউদ্দিনের স্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, তার স্বামী বেঁচে আছে। তিনি ভারতের মেঘালয়ের একটি হাসপাতালে রয়েছেন। সেখান থেকে টেলিফোনে তার সঙ্গে কথা হয়েছে।

ভারতের মেঘালয়ের শিলং পুলিশের তরফ থেকে বলা হচ্ছে, গত ১১ মে স্থানীয়দের মাধ্যমে শিলং পলোগ্রাউন্ড এলাকায় উদভ্রান্তের মতো একজনকে ঘুরে বেড়ানোর খবর পায় পুলিশ। পুলিশ ওই ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। কথাবার্তায় ওই ব্যক্তি ভারতীয় নাগরিক নয় বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ। এরপরই তার কাছে ভারতে প্রবেশের বৈধ কাগজপত্র চাওয়া হয়। তা দিতে ব্যর্থ হলে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। তার বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে অবৈধভাবে ভারত প্রবেশের অপরাধে ওইদিনই একটি মামলা দায়ের করে।

বুধবার সালাহউদ্দিনকে নেগ্রিমসে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইতোমধ্যেই সালাহউদ্দিনের কিডনিতে পাথর ও শরীরে চর্মরোগ ধরা পড়েছে। এছাড়া তার হার্ট, কিডনি ও স্পাইনাল কর্ডে সমস্যাসহ ব্যাকপেইন রয়েছে। হার্টে রিং পরানো রয়েছে। গত বিশ বছর ধরে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা হয়ে আসছিল সালাহউদ্দিনের। এজন্য সালাহউদ্দিনকে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তার স্ত্রী।

তবে শিলং পুলিশ বলছে, বিষয়টি আদালতের বিষয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সালাহউদ্দিনকে ছাড়পত্র দেয়ার পর তাকে অবৈধভাবে ভারতে অনুপ্রবেশের কারণে দায়েরকৃত মামলার আসামি হিসেবে আদালতে সোপর্দ করা হবে। বাকি বিষয় আদালতের। আদালতই সালাহউদ্দিনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবেন।

প্রকাশিত : ২২ মে ২০১৫

২২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: