মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জেরার্ডের ৫০০তম ম্যাচে জয়বঞ্চিত লিভারপুল

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫
  • ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ, ফার্ণান্ডিনহোর শেষ মুহূর্তের গোলে রক্ষা ম্যানসিটির

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অধিনায়ক স্টিভেন জেরার্ডের মাইলফলক স্পর্শের ম্যাচটি সুখকর হয়নি লিভারপুলের। শনিবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচে দ্য রেডসরা গোলশূন্য ড্র করে ওয়েস্টব্রুমউইচের সঙ্গে। ইপিএলে জেরার্ডের এটি ৫০০তম ম্যাচ। মাত্র ষষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে এ কৃতিত্ব দেখিয়েছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক। ইপিএলে এর আগে পাঁচজন পাঁচশতাধিক ম্যাচ খেলা ফুটবলার হলেন রায়ান গিগস (৬৩২), ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড (৫৭৭), গ্যারি স্পিড (৫৩৫), ডেভিড জেমস (৫৩২) ও গ্যারেথ ব্যারি (৫২৯)।

আরেক ম্যাচে শেষ মুহূর্তে ফার্নান্ডিনহোর গোলে স্বস্তির জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। ঘরের মাঠে সিটি ৩-২ গোলে পরাজিত করে এ্যাস্টন ভিলাকে। পরশুর অন্য ম্যাচে লিচেস্টার সিটি ১-০ গোলে বার্নলিকে, হাল সিটি ২-০ গোলে ক্রিস্টাল প্যালেসকে, সোয়ানসি সিটি ৩-২ গোলে নিউক্যাসল ইউনাইটেড পরাজিত করে। সাউাদাম্পটন-টটেনহ্যাম হটস্পার ম্যাচ ২-২ ও স্টোক সিটি-সান্ডারল্যান্ড ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হয়। রবিবার রাতে ম্যাচের আগেই ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে চেলসি। ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ম্যানসিটি। ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে লিভারপুল।

ওয়েস্টব্রুমের মাঠ দ্য হাওয়াটহর্নসে ড্র করার আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে খেলার আশা অনেকটা নিভে গেছে লিভারপুলের। ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে খেলতে হলে লীগে সেরা চারে থাকতে হয়। কিন্তু দ্য রেডসদের বর্তমান অবস্থান পঞ্চম। খেলা বাকি পাঁচ। এই ম্যাচে গত নবেম্বরের পর প্রথমবারের মতো মাঠে নামেন স্ট্রাইকার মারিও বালোতেল্লি। কিন্তু ইতালিয়ান ব্যাডবয়ের ফিরে আসার পরও জয়বঞ্চিত থাকতে হয়েছে ব্রেন্ডন রজার্সের শিষ্যদের। বেশ কয়েকটি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করার মাশুল দিতে হয়েছে তাদের। এ কারণে লিভারপুল অধিনায়ক জেরার্ডের ৫০০ নম্বর ম্যাচও স্মরণীয় হয়নি।

নিজেদের মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুতেই অতিথি এ্যাস্টন ভিলার গোলরক্ষক ব্র্যাডলি গুজানের হাস্যকর ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে সিটিকে এগিয়ে নেন সার্জিও এ্যাগুয়েরো। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে ডাচ্ সতীর্থ রন ভলারের ব্যাকপাস বিপদমুক্ত করতে গিয়ে চরম ভুলটা করে বসেন এ্যাস্টনের গোলরক্ষক। ডান দিকে সতীর্থকে পাস দিতে গিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু তার আস্তে করে বাড়ানো বল দ্রুত ছুটে এসে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন তারকা। এবারের লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতা এ্যাগুয়েরোর এটা ২১ নম্বর গোল। বিরতির পর ৬৬ মিনিটে অসাধারণ ফ্রিকিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আলেকজান্ডার কোলারভ। ২২ গজ দূর থেকে বাঁকানো শটে পোস্ট ঘেঁষে বল জালে পাঠান সার্বিয়ার এই ডিফেন্ডার। দুই মিনিট পর ব্যবধান কমিয়ে নাটকীয়তার আভাস দেন টম ক্লেভারলি। সিটির ডি বক্সে জটলার মধ্যে থেকে বল পেয়ে জালে পাঠান এই ইংলিশ মিডফিল্ডার। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে এ্যাস্টনের কর্নার কিক সিটি গোলরক্ষক জো হার্ট ফিস্ট করলেও বল পেয়ে যান কার্লোস সানচেজ। অনেকটা বিনা বাধায় গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরান কলম্বিয়ান এই মিডফিল্ডার।

দুই গোলে পিছিয়ে থেকে দারুণভাবে সমতায় ফিরে আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে এ্যাস্টন ভিলা। কিন্তু ম্যাচের ৮৯ মিনিটে তাদের হাসি থামিয়ে দেন ফার্নান্ডিনহো। ডি বক্সের মধ্যে শূন্যে ভেসে দারুণ এক ভলিতে বল জালে জড়ান তিনি। ফলে দারুণ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সিটি। ম্যাচ শেষে সিটি কোচ ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনি দুই গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরও পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় গোসাস্ প্রকাশ করেন।

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫

২৭/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: