কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বড় পতন শেষে আশা জাগালো পুঁজিবাজার

প্রকাশিত : ৯ এপ্রিল ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ভীতি জাগানিয়া বড় পতনের পর বুধবারে দেশের পুঁজিবাজারে সূচক সামান্য বেড়েছে। ইউনাইটেড পাওয়ার নামের জ্বালানি এবং শক্তি খাতের কোম্পানির তালিকাভুক্তির পর পতনশীল বাজারটি যেন আরও এলোমেলো হয়ে গিয়েছিল। বুধবারে সেই এলোমেলো পরিস্থিতি থেকে কিছুটা হলেও উত্তরণ ঘটেছে। বাজারে নতুন ফান্ড না থাকলেও মূলত নতুন একটি কোম্পানির অস্বাভাবিক লেনদেনের অন্য কোম্পানিগুলো আশঙ্কাজনক হারে দর হারাচ্ছিল। বিনিয়োগকারীরা অতি মুনাফার আশায় নিজের হাতে থাকা শেয়ার লোকসানে বিক্রি করে নতুন শেয়ারের পেছনে ছুটছিল। প্রথম লেনদেন শুরু চার কার্র্যদিবস পরে অস্বাভাবিক দরপতনের কারণে নিয়ন্ত্রক সংস্থাসহ সংশ্লিষ্টরা ইউনাইটেড পাওয়ারের লেনদেন মনিটরিংয়ের সিদ্ধান্ত নিলেও দিনটিতে কিছুটা স্বাভাবিকতা ফিরে আসে। ফলে দিনশেষে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক লেনদেন দাঁড়িয়েছে পৌনে চারশ কোটি টাকা। সূচকের সঙ্গে লেনদেনের এই বৃদ্ধিকে আশা জাগানিয়া বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত সপ্তাহের বুধবার থেকে পুঁজিবাজারে পতন শুরু হয়। মঙ্গলবারও সূচকের বড় পতনে লেনদেন শেষ হয়। অর্থাৎ টানা ৫ দিন পতনের পর বুধবারে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় ছিল বাজার। এদিন পুঁজিবাজারে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ কোম্পানির দরপতন হয়েছে।

সকালে সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে লেনদেন শুরুর পরে ডিএসইতে ৩৭১ কোটি ৪০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় ৪৫ কোটি ৬৩ লাখ টাকা বা ১৪ শতাংশ বেশি। মঙ্গলবারে এই বাজারে লেনদেন হয়েছিল ৩২৫ কোটি ৭৬ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩০৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১২০টির, কমেছে ১৪৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির শেয়ার দর।

বুধবার ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৩৪৭ পয়েন্টে। তবে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট কমেছে। এই সূচক অবস্থান করছে এক হাজার ৬২ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৬৭১ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হচ্ছে - ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড, এসিআই লিমিটেড, ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রিসোর্ট লিমিটেড, ইফাদ অটোস, ফার্মা এইড, এমজেএল বাংলাদেশ লিমিটেড, শাশা ডেনিমস, গ্রামীণফোন লিমিটেড, এসিআই ফর্মুলেশনস এবং স্কয়ার ফার্মা।

ঢাকার মতো দেশের অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সব ধরনের মূল্য সূচক বেড়েছে। সেখানেও আগের দিনের চেয়ে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে। এই দিন সিএসইতে ৩০ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৩৬০ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৩০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯২টির, কমেছে ১১৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : ইউনাইটেড পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড, ইফাদ অটোস, বেক্সিমকো, মবিল যমুনা বাংলাদেশ, এসিআই ফর্মুলেশন, শাশা ডেনিমস, গ্রামীণফোন ও ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রিসোর্ট লিমিটেড।

প্রকাশিত : ৯ এপ্রিল ২০১৫

০৯/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: